Ena Properties
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

সাতক্ষীরায় যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা, গ্রেফতার ২

২০১৭ ডিসেম্বর ০৭ ১৭:১৮:২৪
সাতক্ষীরায় যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা, গ্রেফতার ২

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : যৌতুকের দাবিতে লক্ষ্মী রানী দাস নামের এক গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার পর লাশ ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলিয়ে আত্মহত্যার প্রচার দেওয়া হয়েছে। বৃহষ্পতিবার সকালে সাতক্ষীরার তালা উপজেলার তেরছি গ্রাম থেকে পুলিশ তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ দু’জনকে গ্রেফতার করেছে।

নিহত গৃহবধূ সাতক্ষীরার তালা উপজেলার তেরছি গ্রামের বিপুল দাসের স্ত্রী ও যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলার পাজিয়া গ্রামের অসীম কুমার দাসের মেয়ে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, নিহতের শ্বাশুড়ি করুণা দাস ও বড় ভাসুরের স্ত্রী জ্যোস্না দাস। তবে এ ঘটনার পর থেকে তার স্বামী বিপুল দাস পলাতক রয়েছে।

নিহত লক্ষ্মী রানীর দাদু গোরাচাঁদ বসু জানান, আট বছর আগে কেশবপুরের পাজিয়া গ্রামের তার নাতনী লক্ষ্মীর(২৬) সাথে তালা উপজেলার তেরছি গ্রামের বিপুল দাসের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে মুরগির খামার তৈরি, জমি কেনা, বাড়ি তৈরি এবং নগদ টাকাসহ কমপক্ষে ২৫ লাখ টাকার যৌতুক গ্রহন করে বিপুল। এরপরও সে তার ওপর যৌতুকের জন্য চাপ দিতে থাকে। এ নিয়ে বিরোধ চরমে উঠলে লক্ষ্মী বাপের বাড়ি চলে যায়। পরে বিপুল সালিশ মীমাংসার মাধ্যমে তাকে বাড়িতে নিয়ে আসে। এ নিয়ে বিপুলের বিরুদ্ধে আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতনের মামলা চলমান রয়েছে।

গোরাচাঁদ বসু অভিযোগ করে বলেন, বুধবার সকালে লক্ষ্মীকে বাপের বাড়ি থেকে যৌতুক বাবদ আরো পাঁচ লাখ টাকা আনতে বলে বিপুল দাস। যেতে রাজী না হওয়ায় বুধবার গভীর রাতে বিপুল, তার মা, বড় ভাই ও বড় ভাইয়ের স্ত্রীসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা লক্ষ্মীরানী দাসকে বেঁধে পিটিয়ে হত্যা করে লাশ ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলিয়ে প্রচার দেয় সে গলায় দড়িয়ে দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। লোকমুখে খবর পেয়ে বৃহষ্পতিবার সকালে তেরছি গ্রামে যেয়ে লক্ষ্মী রানীকে তার স্বামীর ঘরের বারান্দায় শুইয়ে রাখা অবস্থায় দেখতে পান। তার শরীরের হাটু, গলা, মাথা, নাকসহ বিভিন্ন অংশে পিটিয়ে থ্যাতলানো, রক্ত ছড়িয়ে রয়েছে।

সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ ফরহাদ জামিল জানান, মৃতের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

তালা সহকারি পুলিশ সুপার আতিকুল ইসলাম জানান, বৃহষ্পতিবার বিকেলে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ময়না তদন্ত শেষে নিহতের লাশ তার স্বজনদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।এ ঘটনায় মৃতের ভাই সঞ্জয় দাস বাদি হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে মৃতের শ্বাশুড়ি করুনা দাস ও ভাসুরের স্ত্রী জ্যোস্না দাসকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

(আরকে/এসপি/ডিসেম্বর ০৭, ২০১৭)

পাঠকের মতামত:

১৭ ডিসেম্বর ২০১৭

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test