Occasion Banner
Mobile Version

মৌলভীবাজারের জোড়া খুন 

পাঁচ দিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে আরাফাত 

২০১৮ জানুয়ারি ১৩ ১৭:৫২:৩৬
পাঁচ দিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে আরাফাত 

আব্দুল কাইয়ুম, মৌলভীবাজার প্রতিনিধি : মৌলভীবাজারের বহুল আলোচিত জোড়াখুন মামলার অন্যতম আসামী আরাফাত রহমানের পাঁচদিনের রিমান্ড শেষ হয়েছে। শুক্রবার (১২জানুয়ারী) দুপুর আড়াইটার দিকে ৫ দিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে প্রেরণ করা হয় মামলার ৩নং আসামি আরাফাতকে। 

শনিবার (১৩ জানুয়ারী) দুপুরের দিকে বিষয়টি নিশ্চিত করে মৌলভীবাজার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সুহেল আহম্মদ জানান, আসামী আরাফাত আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে। মামলার সর্বশেষ অগ্রগতির বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন এমামলায় এটাই সর্বশেষ এবং সবচেয়ে বড় অগ্রগতি ।

এ মামলায় আরাফাত রহমান গত ৪ জানুয়ারী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট এর ১নং আমলী আদালতে আত্মসমর্পন করে জামিন চাইলে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন ।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৬ ডিসেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে শহরের সাইফুর রহমান অডিটোরিয়ামের পিছনের নির্জন জায়গায় ছাত্রলীগের অভ্যান্তরিন কোন্দলের শিকার হয়ে দুই ছাত্রলীগ কর্মী সিলেটের লিডিং ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগের শিক্ষার্থী ও শহরের ২৯ পুরাতন হাসপাতাল সড়কের বাসিন্দা, সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিকের কনিষ্ঠ পূত্র মোহাম্মদ আলী সাবাব (২২) ও দূর্লভপুর গ্রামের বিল্লাল হোসেনের ছেলে এবং মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের এস.এস.সি পরিক্ষার্থী নাহিদ আহমদ মাহির (১৭) কে ডেকে নিয়ে ছুরিকাঘাত করে কুঁপিয়ে নৃশংস কায়দায় হত্যা করা হয় ।

ঘটনার ৩ দিন পর মৌলভীবাজার মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। নিহত সাবাবের মা সেলিনা চৌধুরী বাদী হয়ে ৩০২/৩৪ ধারায় ১২ জনকে আসামী করে মামলাটি দায়ের করেন। মামলা নং (জিআর ৭/৩৬৩)। এই মামলার ১২ আসামীর মধ্যে এপর্যন্ত ৪ আসামী কারাগারে আটক রয়েছেন।

আলোচিত এ ঘটনার সুষ্টু বিচার ও সব আসামীদের গ্রেফতারের দাবীতে শহরের সচেতন নাগরিকদের অংশগ্রহনে দু’টি বড় বড় মানববন্ধন হলেও এখন পর্যন্ত মাহির পরিবার থানায় কিংবা আদালতে কোন মামলা দায়ের করেনি।

(একে/এসপি/জানুয়ারি ১৩, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

২১ আগস্ট ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test