E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

ফরম পূরণের টাকা শিক্ষকের পকেটে 

পাথরঘাটায় এসএসসি পরীক্ষা থেকে বঞ্চিত ৪৭ শিক্ষার্থী

২০১৮ ফেব্রুয়ারি ০২ ১৬:৪৪:৫৩
পাথরঘাটায় এসএসসি পরীক্ষা থেকে বঞ্চিত ৪৭ শিক্ষার্থী

অমল তালুকদার, পাথরঘাটা (বরগুনা) : বরগুনার পাথরঘাটায় এসএসসি পরীক্ষার্থীর ফরমপুরণের টাকা শিক্ষক আত্মসাৎ করেছে। এঘটনায় ৪৭ জন পরীক্ষার্থী চলতি এসএসসি পরীক্ষা থেকে বঞ্চিত হয়েছে বলে জানাগেছে।

উপজেলার কাকচিড়া ইউনিয়নের জালিয়াঘাটা এসইএসডিপি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের এই কেলেংকারীর ঘটনায় পরীক্ষা বঞ্চিত শিক্ষার্থী পরিবার গুলোতে চরম ক্ষোভের সৃস্টি হয়েছে।

পরীক্ষা থেকে বঞ্চিত পরীক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে ২০১৬-২০১৭ শিক্ষাবর্ষের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের মধ্যে উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয় থেকে টেস্ট পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে একাধিক বিষয়ে অকৃতকার্য পরীক্ষার্থীরা সংশ্লীষ্ট বিদ্যালয় থেকে পরীক্ষা দিতে ব্যর্থ হয়। পরে ওই সকল অকৃতকার্য পরীক্ষার্থীদের মধ্যে উপজেলার লেমুয়া আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়,রুপদন বন্দর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, নাচনাপাড়া মানিকখালি মাধ্যমিক বিদ্যালয়সহ ৬টি বিদ্যালয়ের ৪৭জন পরীক্ষার্থীকে জালিয়াঘাটা এসইএসডিপি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ ফেরদৌস খান ও একই বিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিষয়ের শিক্ষিকা মোসাঃ দুলি আক্তার তাদের বিদ্যালয় থেকে উক্ত পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করিয়ে পরীক্ষায় পাসকরাসহ ভাল ফলা-ফলের প্রলোভন দেখিয়ে পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে জন প্রতি ১৩ হাজার থেকে ২৫ হাজার টাকা পর্যন্ত হাতিয়ে নেন ।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে উক্ত বিদ্যালয়ের একাধিক শিক্ষক জানান, উল্লেখিত প্রধান শিক্ষক মোঃ ফেরদৌস খান ও সহকারি শিক্ষিকা দুলি আক্তার দু’জনে উক্ত পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে টাকা গ্রহণ করলেও পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরণের মুল দায়িত্ব নেন দুলি আক্তার। যার ফলে উক্ত টাকা দুলি আক্তারের কাছে ছিল। তবে দুলি আক্তার বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে পরীক্ষার্থীদের ব্যাপারে কোন যোগাযোগ না করেও বিভিন্ন ভাবে টালবাহানা করে এবং পরীক্ষার্থীদের ফরমপুরণের নির্ধারিত ফি জমা না দেওয়ায় হতভাগ্য ৪৭ জন পরীক্ষার্থী চলতি পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করতে পারেননি।

এ ব্যপারে প্রধান শিক্ষক ফেরদৌস খান এর কাছে জানতে চাইলে তিনি টাকা গ্রহণ করার কথা স্বীকার করে বলেন, আমি ১৬জন পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে জন প্রতি ৫হাজার টাকা করে গ্রহণ করে উক্ত টাকা সহকারি শিক্ষিকা দুলি আক্তারের কাছে জমা দিয়ে ছিলাম, তার পরেও পরীক্ষার্থীদের চাপের মুখে আমি বাধ্য হয়ে ২৮ জানুয়ারি ১৬ জন পরীক্ষার্থীর ৮০হাজার টাকা ফেরত দিয়েছি।

বাকি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে কত টাকা করে গ্রহণ করা হয়েছে জানতে চাইলে ফেরদৌস বলেন, তা আমার জানা নাই।

ফেরদৌস আরো বলেন যে, দুলি আক্তার উক্ত পরীক্ষার্থীদের ফরমপুরণসহ সকল দায়িত্ব গ্রহন করায় উক্ত পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে গ্রহণ করা সকল টাকাই দুলি আক্তারের কাছে জমা ছিল।

এ ব্যাপারে পরীক্ষা বঞ্চিত আশ্রাফুল ইসলাম, মো.রাব্বি, মো. আউয়াল, মো.তুহিনসহ একাধিক পরীক্ষার্থীর কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন, আমাদেরকে জালিয়াঘাটা এসইএসডিপি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ ফেরদৌস খান ও একই বিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিষয়ের শিক্ষিকা মোসাঃ দুলি আক্তার তাদের বিদ্যালয় কর্তৃক পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করিয়ে ভাল ফলা-ফলের প্রলোভন দেখিয়ে আমাদের কাছ থেকে জন প্রতি ১৩ হাজার টাকা থেকে ২৫ হাজার টাকা পর্যন্ত গ্রহণ করলেও ওই টাকা উক্ত বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা দুলি আক্তার নিজের কাজে খরচ করেছে। আমরা শুনেছি পরে দুলি আক্তার ঋণ গ্রহন করে বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে টাকা জমা দেওয়ার ইচ্ছা করলেও ঋণ না-পাওয়ায় অবশেষে টাকা জমা দিতে ব্যার্থ হয় যার ফলে আমাদের পরীক্ষার ফরমপুরণ হয়নি তাই আমরা চলতি এসএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করতে পারিনি।

পরীক্ষার্থীরা বলেন, আমরা ১৫ শত টাকার পরিবর্তে ২৫ হাজার টাকা পর্যন্ত দিয়েও অর্থলোভী দুলি আক্তারের কারণে চলতি এসএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করতে পরিনি তাই আমার এর বিচার চাই।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত শিক্ষিকা দুলি আক্তারের ০১৭৫৬৪৭১০৮২ মোবাইল নাম্বারে একাধিক বার ফোন করা হলেও সে রিসীভ নাকরায় তার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

এ ব্যাপারে পাথরঘাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ হুমায়ুন কবির ও মাধ্যমিক শিক্ষাকর্মকর্তা মোস্তফা আলম এর কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন আমরা এরকম ঘটনা মৌখিক শুনেছি লিখিত অভিযোগ পেলে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

(এটি/এসপি/ফেব্রুয়ারি ০২, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

১৩ নভেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test