E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

শিরোনাম:

 অধ্যক্ষ অপসারণ দাবি

দ্বিতীয় দিনেও উত্তাল বাগেরহাট মেরিন ইন্সটিটিউট 

২০১৮ ফেব্রুয়ারি ১৩ ১৬:৫৭:৩২
দ্বিতীয় দিনেও উত্তাল বাগেরহাট মেরিন ইন্সটিটিউট 

শেখ আহসানুল করিম, বাগেরহাট : অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগে অধ্যক্ষ অপসারণের দাবিতে দ্বিতীয় দিনের বিক্ষোভে অচল হয়ে পড়েছে বাগেরহাট সদর উপজেলার বেমরতা ইউনিয়নের বৈটপুর এলাকায় অবস্থিত ইন্সটিটিউট অব মেরিন টেকনোলজি। 

অধ্যক্ষ মো. সিরাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ এনে গত রোববার মধ্যরাত থেকে এ বিক্ষোভ শুরু হয়। দ্বিতীয় দিন মঙ্গলবার সকালে ইন্সটিটিউটের শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন ও ইন্সটিটিউটের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে। পরে তারা একটি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিন ও ক্যাম্পাস চত্বরে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করতে থাকে।

এদিকে ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলামের অনিয়ম দূর্নীতির বিষয়ে মুখ খুলতে শুরু করেছে ইন্সটিটিউটের অন্যান্য শিক্ষকরা। তারাও অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলামের অপসারন দাবী করে শিক্ষার্থীদের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করেছেন।

মেরিন ইন্সটিটিউটের একাধিক শিক্ষক বলেন, অধ্যক্ষের অনিয়ম দূর্নীতির কারনে হোস্টেলের রুমে ভাড়ার বিনিময়ে বহিরাগত লোকদের রাখা হয়। ইন্সটিটিউটে গ্যাস বাবদ ১লক্ষ ৮৪ হাজার টাকা বাৎসরিক বাজেট থাকা সত্তেও অধ্যক্ষ জোর করে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে গ্যাস বিল দিচ্ছে। ইন্সটিটিউটে পানির প্লান্ট সম্পূর্ণ হওয়া সত্তেও দূর্ণীতির কারনে শিক্ষার্থীদের খাবার পানি থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। ইন্সটিটিউটে ক্লিনার নিয়োগ আছে এবং তার বেতন-ভাতা প্রিন্সিপাল কর্তৃক উরত্তোলন করা হলেও ক্লিনার পদে কোন লোক নেই। এমন আরো অনেক বিষয় আছে যা এতদিন সবাই মুখ বুজে সহ্য করেছে। তাই অধ্যক্ষের অপসারনের দাবীতে বাধ্য হয়ে সবাই বিক্ষাভ ও প্রতিবাদ শুরু করেছে।

বাপ্পিসহ আন্দোলনরত একাধিক শিক্ষার্থীরা বলেন, অধ্যক্ষ অপসারন না করা পর্যন্ত আমাদের এ বিক্ষোভ কর্মসূচী অভ্যাহত থাকবে। আমাদের দাবী মানা না হলে আরো কঠোর কর্মসূচীর ঘোষনা দেয়া হবে।
শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের মুখে গা ঢাকা দেয়া অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম মঙ্গলবার বিকাল পর্যর্ন্ত ইন্সটিটিউটে প্রবেশ করতে পারেনি। তিনি প্রশাসনের উদ্ধতন কর্তৃপক্ষসহ শহরের প্রভাবশালী নেতা ও রাজনৈতিক ব্যাক্তিদের ব্যবহার করে বিষয়টি নিয়ে শিক্ষার্থীদের সাথে আপসের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গেছে।

বাগেরহাট ইন্সটিটিউট অব মেরিন টেকনোলজির অধ্যক্ষ মোঃ সিরাজুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ব্যাস্ত আছেন, পরে কথা হবে বলে জানিয়ে মোবাইল ফোনটি কেটে দেন।

(এসএকে/এসপি/ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test