E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

পিকনিকে মাংস কম পাওয়ায় শিক্ষককে জুতা পেটা 

২০১৮ মার্চ ১৮ ১৮:৪১:১৩
পিকনিকে মাংস কম পাওয়ায় শিক্ষককে জুতা পেটা 

নীলফামারী প্রতিনিধি : নীলফামারীা ডিমলায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সহকারী প্রধান শিক্ষক সহকর্মী এম শিক্ষক কে জুতা দিয়ে পেটানোর ঘটনায় সম্পুর্ন উপজেলা জুড়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। আকাশকুড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক সামচুল হক পিকনিকে কম মাংস পাওয়াকে কেন্দ্র করে একই প্রতিষ্ঠানের সহকারী শিক্ষক ( শরীর চর্চা) এনামুল হককে পিটিয়েছেন। এ ঘটনায় বিচার চেয়ে এনামুল হক প্রতিষ্ঠানের সভাপতি ও প্রধান শিক্ষককে লিখিতভাবে অভিযোগ করেছেন । 

ঘটনার সুত্রে জানা যায়, গত রবিবার আকাশকুড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬৬জন শিক্ষার্থী ও ৬জন শিক্ষক ভিন্নজগতে পিকনিকে যায়। সেখানে সামচুল হক খাওয়ার সময় মাংস কম পেলে ঘটনাস্থলেই সহকর্মী এই শিক্ষককে জুতা খুলে পেটায়। এতে প্রতিবাদ করার উক্ত প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয় এসে ক্ষিপ্ত হয়ে এনামুলের মুখে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে হাত দিয়ে কিলঘুষি মেরে রক্তাত্ব করে। এনামুল হক বিষয়টি বিদ্যালয়ের সভাপতি খয়রাত হোসেন ও প্রধান শিক্ষক কামিনী মোহন রায়কে লিখিতভাবে অভিযোগ করেন।

বিদ্যালয়ের সভাপতি খয়রাত হোসেন বলেন, সামান্য ঘটনাকে কেন্দ্র করে সহকারী প্রধান শিক্ষক সামচুল হক যে আচরন করেছে এর বিচার করা হবে। কমিটির জরুরী সভায় বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হবে। প্রধান শিক্ষক কামিনী মোহন রায় বলেন, সহকারী প্রধান শিক্ষক সামচুল হক সম্পুর্ন অন্যায় ভাবে ঘটনাটি ঘটিয়েছে যা অত্যন্ত দুঃখজনক। বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

এ ব্যাপারে সহকারী প্রধান শিক্ষক সামচুল হক বলেন, আমি সহকারী প্রধান শিক্ষক হিসেবে অন্য শিক্ষকদের শ্বাসন করতে পারি! বিষয়টি প্রতিষ্ঠানের বিষয় সাংবাদিকদের নয় বলে ফোনে কেটে দেয়।

সহকারী শিক্ষক এনামুল হক বলেন, আমি পিকনিকের দায়িত্বে ছিলাম, সামান্য মাংস কম হওয়ার কারনে সহকারী প্রধান শিক্ষক আমাকে জুতা খুলে পিটিয়েছে। পরে বিদ্যালয়ে এসে শিক্ষার্থীদের সামনে আবারও কিলঘুশি মারে। আমি লিখিতভাবে বিচার চেয়েছি। এর প্রতিবাদ করায় এখন বিভিন্নভাবে হুমকি দিচ্ছেন সামচুল হক।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল হালিম বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটিকে জরুরী ভিত্তিতে সভা করে সীদ্ধান্ত নেয়ার জন্য জন্য বলা হয়েছে। সহকারী প্রধান শিক্ষক যে ন্যাক্কারজনক কাজ করেছে তার শাস্তি হওয়া দরকার।

অভিযোগ আছে সহকারী এই প্রধান শিক্ষক সামচুল হক, এর আগেও এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক কামিনী মোহন রায় সহ একাধিক শিক্ষকের সাথে অশোভনীয় আচরন করেছেন ।

(এমআই/এসপি/মার্চ ১৮, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

২০ নভেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test