Pasteurized and Homogenized Full Cream Liquid Milk
E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

সেতুর সংযোগ ভেঙে ট্রাক নদীতে লাখো মানুষের ভোগান্তি

২০১৮ এপ্রিল ২০ ১৬:১২:৫৩
সেতুর সংযোগ ভেঙে ট্রাক নদীতে লাখো মানুষের ভোগান্তি

শরীয়তপুর প্রতিনিধি : শরীয়তপুর জেলা সদর উপজেলার রাজগঞ্জ কীর্তিনাশা নদীর উপর অবস্থিত সেতুর সংযোগ ভেঙে একটি পন্যবাহি ট্রাক নদীতে পরে গেছে। ফলে বিপাকে পরেছে শরীয়তপুরের ৭টি ইউনিয়ন ও পার্শবর্তী মাদারীপুর জেলার কয়েকটি ইউনিয়নের লাখো মানুষ। সেতুর উপর দিয়ে চলাচলযোগ্য সকল ভারী পন্যবাহী গাড়ি ও যানবাহন বাধ্য হয়ে ১০-১২ কিমি ঘুড়ে বিকল্প রাস্তা দিয়ে চলাচল করছে। গত এক বছরেও তৃতীয়বার ভাঙ্গনের শিকার হলো সেতুটি।

শরীয়তপুর জেলা শহর থেকে মাত্র ২ কিমি দুরে কীর্তিনাশা নদীর উপর অবস্থিত ১০৫ মিটার দৈর্ঘের কংক্রিটের সেতুটি এলজিইডি নির্মান করে ২০০৮ সালে। নির্মানে ত্রুটি জনিত কারনে ২০১২ সালেই ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পরে সেতুটি।

নদীতে পানির প্রবল স্রোতের কারণে প্রথমে ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে সেতুর পশ্চিম পাশের সংযোগ সড়কটির মাটি ও বালু ধ্বসে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তখন স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় সাময়িক মেরামত করে কোন রকমে চলাচল উপযোগি করা হয় সেতুটি। এরপর গত বছরের অক্টোবর মাসে একই স্থানে অন্তত ২০০ ফিট এলাকা নিয়ে সম্পূর্ন বিলীন হয়ে যায় সেতুর সংযোগ সড়ক। তখন স্থানীয় জনপ্রতিনিধির সহায়তায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ সেতুর ক্ষতিগ্রস্ত অংশে বেইলী স্থাপন করে সেতুটি অস্থায়ীভাবে চলাচলের উপযোগি করে তোলে। শর্ত থাকে ভারী যান চলাচলে। কিন্তু শর্ত ভেঙ্গে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে ২৫ মে.টন ওজনের একটি বৈদ্যুতিক ট্রান্স ফর্মা নিয়ে পাড়াপাড়ের সময় ট্রান্সফর্মা বহনকারি ট্রাকটি মূল সেতুর সংযোগ বেইলী ভেঙ্গে নদীতে পরে যায়।

সেতুটি ভেঙ্গে যাওয়ার পর এলজিইডি কর্তৃপক্ষ শেষ খবর জানা পর্যন্ত কোন খোঁজ নেয়নি। তবে শরীয়তপুরের ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে তদারকি করেছেন সার্বিক অবস্থা। শরীয়তপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এর সহকারি পরিচালক নিয়াজ আহমেদ জানিয়েছেন, উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন ক্রেন ছারা ট্রাকটি তুলে উঠানো সম্ভব হবেনা।

স্থানীয় তুলাসার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম ফকির বলেন, সেতুটি মাত্র ৬ মাসের ব্যবধানে নতুন করে ভাঙনের শিকার হলো। এর আগেও দুই বার ভেঙেছে। আমরা বার বার প্রশাসনকে অনুরোধ করেছি স্থায়ীভাবে সেতুর সংযোগটি মেরামত করতে। কিন্তু তারা উদ্যোগী না হওয়ায় কয় দিন পর পরই ভোগান্তিতে পরে একটি বিশাল অঞ্চলের হাজার হাজার মানুষ।

(কেএনআই/এসপি/এপ্রিল ২০, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

২০ এপ্রিল ২০১৯

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test