E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

শিরোনাম:

বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় স্কুলছাত্রী শ্লীলতাহানির শিকার, আটক ১

২০১৮ জুলাই ১৫ ১৪:৪৯:৩৬
বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় স্কুলছাত্রী শ্লীলতাহানির শিকার, আটক ১

উজ্জ্বল হোসাইন, চাঁদপুর : বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় দশম শ্রেণীর এক স্কুলছাত্রীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে এক বখাটে দুর্বৃত্ত। এ ছাত্রীকে জঙ্গলে নিয়ে গামছা দিয়ে মুখ বেঁধে শ্লীলতাহানির চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত শুক্রবার ১৩ জুলাই রাতে চাঁদপুর সদর উপজেলার ১২নং চান্দ্রা ইউনিয়নের দক্ষিণ বালিয়ায়। 

জানা গেছে, ওই ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ছৈয়াল বাড়ির অলিউল্লা ছৈয়ালের বখাটে ছেলে রুবেল (২৩) একই বাড়ির ওই স্কুলছাত্রীকে জোরপূর্বক শ্লীলতাহানির চেষ্টা চালাতে গিয়ে ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে স্কুলছাত্রীটি অচেতন হয়ে পড়ে। তখন বখাটে রুবেল পালিয়ে যায়। অনেক পরে ওই ছাত্রীর পরিবারের স্বজনরা তাকে খোঁজাখুঁজি করে অচেতন অবস্থায় জঙ্গল থেকে উদ্ধার করে।

খবর পেয়ে বখাটে রুবেলের মামা কাজী সায়েদুর রহমান ও ৯নং ওয়ার্ড মেম্বার সিদ্দিক ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে ওই ছাত্রীকে নিয়ে চাঁদপুর শহরের নাভানা হাসপাতালে ভর্তি করায়। বিষয়টি জানাজানি হয়ে গেলে ওই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ স্কুলছাত্রীকে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করে। পরে ছাত্রীটির পরিবার তাকে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের গাইনী বিভাগে ভর্তি করায়। সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেয়ে রুবেলের মামা ও পরিবারের লোকজন হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায়।

স্কুলছাত্রীর ভাই মাসুদ জানান, তার বাবা কয়েক বছর পূর্বে মারা যাবার পর সিএনজি স্কুটার চালিয়ে টাকা উপার্জন করে একমাত্র আদরের ছোট বোনকে স্কুলে পড়ালেখা করাচ্ছিলেন। গত কয়েক মাস ধরে পাশের বাড়ির রুবেল তার বোানকে স্কুলে আসা-যাওয়ার পথে উত্ত্যক্ত করতো। তাকে বিয়ে করার জন্যে চাপ প্রয়োগ করতো। এতে তাদের পরিবার রাজি না হওয়ায় ঘটনার দিন রাত ১০টায় রুবেল ও তার ভগ্নিপতি হারুন ছৈয়াল তাদের ঘরে ঢুকে তার বোনকে জোরপূর্বক গামছা দিয়ে মুখ বেঁধে পার্শ্ববর্তী জঙ্গলে নিয়ে শ্লীলতাহানির চেষ্টা চালায়। পরে রাত ১টায় জঙ্গল থেকে অচেতন অবস্থায় তার বোনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়।

এ ব্যাপারে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের গাইনী বিভাগের সার্জন ডাঃ ফাতেমা বেগম জানান, ধর্ষণের আলামত পাওয়া যায়নি। মেডিকেল রিপোর্ট আসার পর বিস্তারিত বলা যাবে। এ ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রীর মা বাদী হয়ে পুলিশ সুপারের কাছে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন এবং থানায় মামলা করেছেন। মামলার আসামী করা হয় রুবেল ও তার ভগ্নিপতি হারুন ছৈয়ালকে। পুলিশ গতকাল রাতে ঘটনার সাথে জড়িত অলি উল্যা ছৈয়ালের ছেলে আসামী রুবেল ছৈয়ালকে আটক করে। বিষয়টি নিয়ে এলাকার তোলপাড়ার সৃষ্টি হয়।

(ইউএইচ/এসপি/জুলাই ১৫, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test