E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

কবি কামনা ইসলামের উদ্যোগে গড়ে উঠছে শিশুদের জন্য বহুমূখী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

২০১৮ জুলাই ১৮ ১৮:৩২:৫৯
কবি কামনা ইসলামের উদ্যোগে গড়ে উঠছে শিশুদের জন্য বহুমূখী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

রূপক মুখার্জি, লোহাগড়া প্রতিনিধি : নড়াইলের লোহাগড়ায় নিরক্ষরমুক্ত সমাজ গড়তে চান মহিলা কবি কামনা ইসলাম । স্বপ্ন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে নিজ উদ্যোগে গড়ে তুলেছেন একটি ছোট্ট বহুমুখী  শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

কবি কামনা উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের বসুপটি গ্রামের আব্দুল জলিল শেখের কন্যা। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি বিবাহিতা এবং দুই পুত্র সন্তানের জননী। তার স্বামী রিজাউল ইসলাম লোহাড়ার লাহুড়িয়া ফাজিল মাদ্রাসার সহকারি শিক্ষক।

উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত ( এম,এ পাশ) কামনা ইসলাম ইতোমধ্যে মহিলা কবি হিসেবে নড়াইল-লোহাগড়ায় ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেছেন। বর্তমান তার ৩টি গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। প্রকাশের অপেক্ষায় রয়েছে আরো কয়েকটি গ্রন্থ। এ ছাড়া তিনি বাংলাদেশ বেতার খুলনা কেন্দ্রের একজন নিয়মিত স্বরচিত কবিতা আবৃতিকার।

সাহিত্য-সংস্কৃতি চর্চার পাশাপাশি নিরক্ষরমুক্ত সমাজ গড়তে কবি কামনা ২০১৫ সালের ২ ফেব্রুয়ারী নিজ উদ্যোগে গড়ে তুলেছেন “কামনা শিশু সেন্টার” নামে একটি বহুমুখী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তার এই প্রতিষ্ঠানে সাধারন এবং ধর্মীয় শিক্ষার পাশাপাশি আবৃত্তি, সাধারন জ্ঞান, ছবি অংকন, বাংলা ও ইংরেজী সুন্দর হাতের লেখা শেখানো হয়।

ছোট শিশুদের একজন আদর্শ নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে চান মহিলা কবি কামনা ইসলাম। বর্তমান কামনা শিশু সেন্টার কবি কামনাসহ ৮জন শিক্ষক কর্মরত রয়েছে। এ সব শিক্ষকদের কামনা নিজ চেষ্টায় সামান্য বেতন-ভাতা দিয়ে থাকেন। এখানে শিক্ষার্থী রয়েছে প্রায় দেড় শতাধিক । তাদের অধিকাংশই সুবিধা বঞ্চিত। সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের কামনা পোষাক এবং বই,খাতা, কলম কিনে দেন।

কামনা শিশু সেন্টার সম্পর্কে প্রভাষক আবু আব্দুল্লাহ বলেন, আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারীর ক্ষমতায়নের যে স্বপ্ন দেখছেন, কবি কামনা সেই স্বপ্ন পূরনেই একজন সৈনিক। তার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় লক্ষীপাশা কামনা শিশু সেন্টার নামে যে সুন্দর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে,তার সাফল্য আসবেই। এর ফলে এলাকার সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের সু-নাগরিক হিসেবে গড়ে ওঠার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। তার এ মহতী উদ্যোগ নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবীদার।

কামনা শিশু সেন্টারের শিক্ষক শারমিন আক্তার, সোমা রানী, লিমা ও অঞ্জনা বলেন, সাংসারিক কাজের পাশাপাশি সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের শিক্ষাদানের আনন্দই আলাদা। আমরা চেষ্টা করছি শিশুদের মানবিক গুণাবলি অর্জনের জন্য।

এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী মিম, লামিয়া ও মারুফ জানান, পাঠ্য বইয়ের পাশাপাশি এ প্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন বিষয়ে সহ শিক্ষা প্রদান করা হয়। আমরা এ প্রতিষ্ঠানে পড়তে পেরে আনন্দিত ও গর্বিত।

কবি কামনা ইসলাম এ প্রতিনিধিকে জানান, প্রত্যেক মানুষের জীবনে কোন না কোন স্বপ্ন থাকে, আমারও তেমনি একটি স্বপ্ন আছে। সেই স্বপ্নটি হল পথ শিশু বা সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের খুঁজে বের করা এবং তাদেরকে আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে তোলা।’ তিনি তার এ কাজে সহযোগিতা জন্য বিভিন্ন সামাজিক প্রতিষ্ঠান, বিত্তবান ব্যক্তিসহ বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট সহযোগিতা কামনা করেছেন।

(আরএম/এসপি/জুলাই ১৮, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

১৭ নভেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test