E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

‘সকলের স্বার্থে পরিকল্পিতভাবে মৎস্য চাষ করতে হবে’

২০১৮ জুলাই ১৯ ১৭:০৫:৩৯
‘সকলের স্বার্থে পরিকল্পিতভাবে মৎস্য চাষ করতে হবে’

রঘুনাথ খাঁ, সাতক্ষীরা : ‘স্বয়ংসম্পর্ণ মাছে দেশ বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০১৮ উদ্যাপন উপলক্ষে বৃহষ্পতিবার সকালে সাতক্ষীরা শহরের পৌর দীঘিতে মৎস্য অবমুক্তকরণ করা হয়েছে। এ ছাড়াও শহরে র‌্যালি শেষে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

দিবসটি উপলক্ষে বৃহষ্পতিবার সকাল ১০টায় সাতক্ষীরা জেলা মৎস্য অফিসের আয়োজনে শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্ক থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে সদর উপজেলা পরিষদ চত্বরে যেয়ে শেষ হয়।

১৮ থেকে -২৪ জুলাই জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আলোচনা সভায় জেলা মৎস্য অফিসার মো. শহীদুল ইসলাম সরদারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইফতেখার হোসেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, বাংলাদেশের মধ্যে সাতক্ষীরা জেলা মৎস্য উৎপাদনে শীর্ষে অবস্থান করছে।

বর্তমানে যত্রতত্র অপরিকল্পিত ভাবে মৎস্য চাষ করা হচ্ছে। যেটা ঝুকিপূর্ণ ও জলাবদ্ধতা সৃষ্টি করছে। সকলের স্বার্থে পরিকল্পিতভাবে মৎস্য চাষ করতে হবে। ‘জাতীয় অর্থনৈতিক উন্নয়ন, জনগোষ্ঠীর পুষ্টির চাহিদা পূরণ, বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন ও দারিদ্র্য বিমোচনের সাতক্ষীরা জেলায় গুরুত্ব অনেক বেশি। এ জেলায় বার্ষিক মৎস্য উৎপাদন হয় এক লাখ ৩১ হাজার ৫১৬ মেট্রিক টন। জনগণের চাহিদা মিটিয়ে প্রায় ৮৯২২৩ মেট্রিক টন মাছ ও চিংড়ি বিদেশে রপ্তানি এবং অন্যান্য জেলায় সরবরাহ করা হয়। বর্তমানে মৎস্য উৎপাদনে বাংলাদেশের অবস্থান ৪র্থ।

চিংড়ি চাষে সাতক্ষীরা দেশের প্রথম স্থানে থাকলেও তা এখন নানাভাবে হুমকির মুখে পড়ছে। এক্ষেত্রে চিংড়ি পোনার ভাইরাস রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে। এজেলায় ৩০৯০ মেট্রিক টন কাঁকড়া উৎপাদন হয়। বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে কাঁকড়া গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছে। বাণিজ্যিকভাবে কাঁকড়া চাষের ক্ষেত্রে বন বিভাগের যে নীতিমালা রয়েছে ১০০ গ্রামের নিচে কোন কাঁকড়া ধরা যাবেনা তা সংশোধন করতে হবে। না হলে বৈদেশিকভাবে কাঁকড়া রপ্তানী হুমকির মুখে পড়বে। কারণ বিদেশে সাধারণত চাহিদা ৬০ গ্রামের কাঁকড়া। মৎস্য উৎপাদনে এ জেলার সম্ভাবনা অনেক বেশি। এটি আমাদের ধরে রাখতে হবে।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপ-পরিচালক স্থানীয় সরকার সাতক্ষীরা শাহ্ আবদুল সাদী, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আসাদুজ্জামান বাবু, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার তহমিনা খাতুন, সহকারি পুলিশ সুপার তালা সার্কেল মো. অপু সরোয়ার ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কোহিনুর ইসলাম প্রমুখ।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রাণিজ সম্পদ কর্মকর্তা সমরেশ চন্দ্র দাস, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা (সদর) মো.রাশেদুল হক, সদর উপজেলা সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মো. লুৎফর রহমান, বড় বাজার মৎস্য ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আ.স.ম আব্দুর রব, খুদ্র-নৃ-গোষ্ঠির সভাপতি মৎস্যজীবি মোখলেছুর রহমান প্রমুখ।

শুক্রবার সাতক্ষীরা শহীদ আব্দুর রাজ্জাজ পার্কে ৩দিন ব্যাপি মৎস্য মেলার উদ্বোধন, মৎস্য সেক্টরে সরকারের অগ্রগতি বিষয়ে আলোচনা সভা ও প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন। শনিবার ফরমালিন বিরোধী অভিযান, জেলার মৎস্য বাজারে মৎস্য বিষয়ক আইন বাস্তবায়নে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা। রোববার বিভিন্ন স্কুল কলেজে মৎস্য চাষ বিষয়ে আলোচনা সভা ও বির্তক প্রতিযোগিতা ও প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শণ, সোমবার হাট বাজার ও জনবহুল স্থানে মৎস্য চাষ বিষয়ে উদ্বুদ্ধকরণ সভা। মঙ্গলবার জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের মূল্যায়ন, পুরস্কার বিতরণী ও সমপানী অনুষ্ঠান।

সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন উর্দ্ধতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. নাজমুল হুদা।

(আরকে/এসপি/জুলাই ১৯, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test