E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

ইউপি চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেনসহ তার দোসরদের গ্রেফতার দাবি

২০১৮ জুলাই ২৫ ১৮:৪৭:০৮
ইউপি চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেনসহ তার দোসরদের গ্রেফতার দাবি

রঘুনাথ খাঁ, সাতক্ষীরা : সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কেএম মোশারফ হোসেনসহ তার ৩১জন সহযোগি একটি হত্যা চেষ্টা মামলার আসামী হয়ে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও পুলিশ তাদের গ্রেফতার করছে না। উপরন্তু মামলা তুলে নেওয়ার হুমকি দেওয়ায় বাদি ও তার স্বজনরা নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে। বুধবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি মোস্তাফা কবিরুজ্জামান মন্টু।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, কালিগঞ্জ উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের ত্রাস, মুখোশধারী সন্ত্রাসী কৃষ্ণনগর গ্রামের ছৈলদ্দিন কাগুজীর ছেলে জেলা জাতীয় পার্টির সহঃ সম্পাদক কেএম মোশারফ হোসেন অবৈধ অর্থ আয় করে আজ কুলি থেকে কোটিপতি হয়েছেন। সে কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের সরল সোজা, অসহায় ও নিরীহ মানুষদের মিথ্যে মামলা এবং পুলিশের ভয় দেখিয়ে প্রতিনিয়ত মোটা অংকের চাঁদা আদায় করছে। মোশারফ হোসেনের নেতৃত্বে অন্যের জমি, ঘের ও বাড়ি দখলের ঘটনা ঘটেই চলেছে। তার রোষানল থেকে বাদ যাচ্ছে না স্থানীয় আ’লীগসহ সাধারণ মানুষ। ফলে কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের সাধারণ মানুষ বর্তমানে অজনা আতংকে দিনাতিপাত করছে।

তিনি আরো বলেন, ফতেপুর গ্রামের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মিতা রানী বালা, লক্ষীপদ মণ্ডলসহ একাধিক বাড়িতে অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের নেতৃত্বদানকারি মোশাররফ হোসেন আজও থেমে নেই। গত ১৭ জুলাই তার নেতৃত্ব সন্ত্রাসীরা কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের দক্ষিণ রঘুনাথপুর গ্রামের আবু মালাইকার দীর্ঘদিনের দখলীয় বসতবাড়িতে অর্তকিতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করে।

এ সময় বাধা দিতে গেলে মালাইকা’র ছেলে অদুদ, নাঈম ও জামাতা সিদ্দিকুরসহ চারজনকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে ও রাম দা দিয়ে নির্মমভাবে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করা হয়। এদের মধ্যে সিদ্দিকুর ও নাঈম আশংকাজনক অবস্থায় ঢাকার একটি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। এঘটনায় আবু মালাইকা বাদি হয়ে চেয়ারম্যান কেএম মোশারফ হোসেনসহ ৩২ জনকে আসামি করে থানা একটি মামলা দায়ের করেন।

মোস্তাফা কবিরুজ্জামান মন্টু অভিযোগ করে বলেন, হত্যা, লুটাপাট, অগ্নিসংযোগ, শ্লীলতাহানি, ঘের দখল, ডাকাতি ও মারপিটসহ প্রায় একডজন মামলার আসামি মোশারফ হোসেনসহ জিআর-১৪০/১৮ মামলা এজাহার নামীয় ৩২ আসামির কাউকে পুলিশ অদ্যবধি আটক করতে পারেনি।

অপরদিকে মোশারফ হোসেনসহ অন্য আসামিদের অব্যহত হুমকিতে বাদিসহ তার আত্মীয়স্বজনরা অজানা আতংকে দিন কাটাছে। সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে কেএম মোশারফ হোসেনসহ অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশ সুপারসহ পুলিশের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের সদস্য মোঃ আব্দুল জলিল ও ইউনিয়ন পুলিশিং কমিটির সভাপতি আবু হেনা বিশ্বাস।

(আরকে/এসপি/জুলাই ২৫, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test