E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

আ.লীগ ক্ষমতায় বলেই আমরা ভালো আছি : দোলন

২০১৮ আগস্ট ১২ ১৫:১৯:০৪
আ.লীগ ক্ষমতায় বলেই আমরা ভালো আছি : দোলন

ফরিদপুর প্রতিনিধি : বাংলাদেশ কৃষক লীগের সহসভাপতি এবং ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী কমিটির সদস্য আরিফুর রহমান দোলন বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আছে বলেই আমরা ভালো আছি এবং ভবিষ্যতে আরও ভালো থাকার স্বপ্ন দেখি। ঘাতকেরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে মনে করেছিল তারা বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে হত্যা করেছে। কিন্তু তারা তা পারেনি।’

রবিবার সকালে ফরিদপুরের বোয়ালমারীর কাটাগড় দেওয়ান শাগীরশাহ দাখিল মাদ্রাসা মিলনায়তনে নিম্ন আয়ের মানুষের মধ্যে চশমা বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

কর্মসূচির আয়োজন করে সমাজসেবামূলক সংস্থা কাঞ্চন মুন্সী ফাউন্ডেশন। সংস্থাটির প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান দোলন।

গত ৪ আগস্ট বোয়ালমারীর সহস্রাইল পাবলিক পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে কাঞ্চন মুন্সী ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বিনামূল্যে চক্ষুক্যাম্পের আয়োজন করা হয়। ওই ক্যাম্প থেকে ১৪৫ জনকে চশমা দেয়ার জন্য বাছাই করা হয়। এছাড়া ৩৭ জনের চোখের ছানি অপসারণ ও লেন্স সংযোজন করা হয়।

দেশ গঠনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবদানের কথা স্মরণ করে দোলন বলেন, ‘আগস্ট মাস হচ্ছে শোকের। আমরা যে ভালো আছি এই ভালো থাকা হতো না যদি স্বাধীন বাংলাদেশ সৃষ্টি না হতো। স্বাধীনতার জনককে এই আগস্ট মাসে ১৪ আগস্ট কালরাতে হত্যা করেছিল ঘাতকেরা। শুধু তাকেই নয়, তার পরিবারের প্রায় সব সদস্যকে হত্যা করা হয়েছিল।’

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ‘মহান রাব্বুল আলামিনের কাছে আমাদের কৃতজ্ঞতার ভাষা নেই। কারণ তার দুই কন্যা বিদেশ থাকার কারণে বেঁচে গিয়েছিলেন। তাদের একজন জননেত্রী শেখ হাসিনা এখন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী। এই কারণেই আপনারা-আমরা ভালো আছি। নিরাপদে আছি।’

কাঞ্চন মুন্সী ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে চশমা বিতরণ প্রসঙ্গে সংস্থাটির কর্ণধার বলেন, ‘শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আছে বলেই আমরা এই ধরনের ভালো কাজে নিজেদের নিয়োজিত রাখতে পারছি। যদি শেখ হাসিনা ক্ষমতায় না থেকে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় থাকতো তাহলে দেশে অরাজক-অস্থিতিশীল পরিবেশের সৃষ্টি হতো। কোনো ভালো কাজ করা যেতো না। কারণ আপনারা জানেন, কীভাবে বিএনপির সময়ে জঙ্গিবাদ মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছিল। সারাদেশে একযোগে বোমা বিস্ফোরণ করা হয়েছিল। জঙ্গিরা তাদের অস্তিত্ব জানান দিয়েছিল। এরই ধারাবাহিকতায় শেখ হাসিনার ওপর ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা হয়েছিল।’

ফরিদপুর-১ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী দোলন বলেন, ‘দুঃখের বিষয় এখানে অনেকে বললেন চোখের সমস্যার কারণে পবিত্র কোরআন শরিফও পড়তে পারেন না। কিন্তু এই দায়িত্ব ছিল জনপ্রতিনিধিদের। যাদেরকে আপনারা ভোট দিয়েছেন। আপনাদের সমস্যার সমাধান, ভালো চিকিৎসা দেয়া এবং আপনাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখার কথা ছিল তাদের।’

‘ফরিদপুর জেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি চোখের রোগী বোয়ালমারী, আলফাডাঙ্গা ও মধুখালী এই তিন উপজেলায়। যারা রাজনীতিবিদ তাদের কাছে এই তথ্য নেই। আমরা যারা সমাজসেবার মানসিকতা নিয়ে, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে এসেছি, আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ কীভাবে বাস্তবায়ন হতে পারে সেই কাজ করছি।’

ঢাকাটাইমস ও এই সময় সম্পাদক বলেন, ‘মানবসেবা হচ্ছে সবচেয়ে বড় রাজনীতি। মানবসেবার চেয়ে বড় আর কিছু হতে পারে না। এই সেবা করার জন্য আপনার সরকার, এই সেবা করার জন্যই রাজনীতি। এই সেবা করার জন্যই রাজনৈতিক দল। এই সেবা করার কথা বলেই নেতারা ক্ষমতায় আসেন। আপনারা তাদের ভোট দেন। কিন্তু পরে কিছুই করেন না।’

দোলন বলেন, ‘সারাজীবন বঙ্গবন্ধু মানুষের সেবা করে গেছেন। মানুষের সেবা করতে গিয়ে নিজের জীবনটাও দিয়ে গেছেন। বঙ্গবন্ধুর সেই সোনার বাংলা গড়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কত কষ্টই না করছেন।’

‘শেখ হাসিনা চাচ্ছেন, বাংলাদেশের সাধারণ মানুষ, যারা খেটে খাওয়া মানুষ, মেহনতি মানুষ তাদের যেন কোনো অভাব ও কষ্ট না থাকে। এ কারণে, বিধবা ভাতা, বয়স্ক ভাতা, মুক্তিযোদ্ধা ভাতা চালু করেছেন। এছাড়া ভিজিএফ দেয়া হয়। এরকম আরও অনেক সুবিধা দিয়েছেন।’

কৃষক লীগের সহসভাপতি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ হলো ঘুষমুক্ত, দালালমুক্ত, দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গঠন করা। শেখ হাসিনা এমনই সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে চান। এই পথে তারাই বাধা যারা এগুলো মানেন না।’

‘যত বড় নেতাই হোন না কেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়ন করতে হলে বঙ্গবন্ধু যেভাবে জীবনযাপন করে গেছেন, যেভাবে জীবন যাপন করতে বলে গেছেন সেটি মানতে হবে। সেটি না মানলে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হওয়া যাবে না।’

আরিফুর রহমান দোলন বলেন, ‘শেখ হাসিনা সরকার আপনাদের জন্য অনেক কিছুই করছেন। যদি আপনাদের কাছে সেটি না পৌঁছায় তাহলে যাদের ভোট দিয়েছেন তাদের জিজ্ঞাসা করবেন।’

‘শেখ হাসিনা যে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়তে চান সেই বাংলাদেশে কারো কোনো অভাব অভিযোগ দুঃখ কষ্ট থাকবে না। সেই বাংলাদেশ গড়তে হলে এই সমস্ত দালালমুক্ত করা দরকার। প্রতিটি আসনে সৎ নেতাদের মনোনয়ন দেয়া দরকার। প্রধানমন্ত্রী নিজেই এমন কথা জানিয়েছেন।’

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ‘শেখা হাসিনা তার বাসভবনকে বাসভবন বলেন না। তিনি বলেন জনগণের ভবন। শেখ হাসিনা বলেছেন, যে সমস্ত নেতা টাকার বিনিময়ে কাজ করেন, সেসব নেতাকে আগামী সংসদে প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেবেন না। আপনারা যেন সেবা পান তেমন নেতাদেরই তিনি মনোনয়ন দেবেন। আপনারা যদি না থাকেন তাহলে কিছুই থাকবে না। আপনারা নিজেদের দুর্বল ভাববেন না। আপনারাই হচ্ছেন প্রকৃত ক্ষমতার উৎস। আপনাদের কেউ দাবায়া রাখতে পারবে না।’

উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে দোলন বলেন, ‘আপনাদের টাকায় পদ্মা সেতু হচ্ছে। সারাদেশে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হচ্ছে। এ কারণে শেখ হাসিনাকে সহযোগিতা করা, তাকে সমর্থন করা এবং তাকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পুনরায় নির্বাচিত করা আমাদের দায়িত্ব। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের বাস্তবায়ন করতে হবে। সে অনুযায়ী দেশ গঠন করতে হবে।’

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন, ফরিদপুর জেলা পরিষদ সদস্য ও জেলা কৃষক লীগের সদস্য সচিব শেখ শহীদুল ইসলাম শহীদ, বোয়ালমারী উপজেলা কৃষক লীগের আহ্বায়ক সৈয়দ আব্দুর রহমান বাশার, কৃষক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য শেখ শওকত আহমেদ, আলফাডাঙ্গা সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান একেএম আহাদুল হাসান আহাদ, কাটাগড় দেওয়ান শাগীর শাহ দাখিল মাদ্রাসার সুপার সিদ্দিকুর রহমান প্রমুখ।

আরও উপস্থিত ছিলেন বোয়ালমারী উপজেলা কৃষক লীগের সদস্য সচিব মনিরুজ্জামান মৃধা লিটন, গোপালপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ইনামুল হাসানসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

(ওএস/এসপি/আগস্ট ১২, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

১৭ নভেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test