E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

বিএনপির অত্যাচার ভোলা কঠিন : এরশাদ

২০১৮ আগস্ট ১৯ ১৮:৪৭:৩০
বিএনপির অত্যাচার ভোলা কঠিন : এরশাদ

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি : বিএনপির অত্যাচার ভোলা কঠিন বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ। বলেছেন, আমি ৬ বছর জেলে ছিলাম। এসব ভোলা কঠিন।

রবিবার দুপুরে কুড়িগ্রাম সার্কিট হাউজে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন এরশাদ। আগামী জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে শনিবার থেকে নির্বাচনী প্রচারণায় উত্তরবঙ্গ সফর করছেন তিনি।

এরশাদ বলেন, ‘বিএনপি আমার ওপর যে অত্যাচার করেছে, আমি ৬ বছর জেলে ছিলাম। বিনা অপরাধে আমার বউ, ছেলে-মেয়েকেও জেলে দিয়েছিল তারা। এসব ভোলা কঠিন।’

এরশাদের বিরুদ্ধে যত মামলা, সবগুলোই হয়েছে তার ক্ষমতাচ্যুতির পর বিএনপি সরকারের আমলে। বিচারপতি শাহাবুদ্দীন আহমদের তত্ত্বাবধায়ক সরকার এরশাদকে প্রথম গ্রেপ্তার করে কারাগারে নেয়।

এরপর ১৯৯১ সালের ফেব্রুয়ারিতে ক্ষমতায় আসেন খালেদা জিয়া। খালেদা সরকারের মেয়াদের পুরোটাই জেল খাটতে হয় এরশাদকে। এ সময় আওয়ামী লীগের পাশে থেকে খালেদা জিয়ার সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করে এরশাদের দল জাতীয় পার্টি। ১৯৯৬ সালে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে ১৯৯৭ সালের জানুয়ারিতে কারামুক্ত হন এরশাদ।

আগামী নির্বাচনে যদি বিএনপি না আসে তাহলে জাতীয় পার্টি জোটের বাইরে নির্বাচন করে জানিয়ে এরশাদ বলেন, ‘আমরা নির্বাচন করবো। আমি সরকারের সাথে আছি, জোটেও আছি। আর বিএনপি না আসলে আলাদাভাবে তিনশ আসনেই নির্বাচন করবো। এখন এটাই আমাদের পরিস্থিতি, রাজনৈতিক পরিস্থিতি।’

নির্বাচনকালীন সরকার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচনকালীন সরকার গঠন হবে। সেখানে ৭/৮ জন মন্ত্রী থাকবে। তার মধ্যে আমরাও থাকবো।’

কুড়িগ্রাম-২ আসনের সংসদ সদস্য ও বিরোধী দলীয় চীফ হুইফ তাজুল ইসলামের মৃত্যুতে আসনটি খালি হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আসনটি সবে মাত্র খালি হয়েছে। এখানে চৌধুরী শফিকুল ইসলামসহ যারা প্রার্থী হতে আগ্রহী তাদের ব্যাপারে পরে বসে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

এসময় কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন, কুড়িগ্রাম-১ আসনের সংসদ সদস্য মোস্তাফিজার রহমান, কুড়িগ্রাম-৩ আসনের সংসদ সদস্য ডা. আক্কাছ আলী সরকার, জেলা জাতীয় পার্টির নেতা চৌধুরী শফিকুল ইসলামসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ সার্কিট হাউজে পৌছিলে তাকে গার্ড অব অর্নার দেয়া হয়। পরে তিনি চিলমারী উপজেলায় জাতীয় পার্টি আয়োজিত কর্র্মীসভায় যোগ দেন।

(ওএস/এসপি/আগস্ট ১৯, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

১৯ নভেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test