E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

দেশ বাঁচাতে ফের শেখ হাসিনার প্রধানমন্ত্রীত্ব চান মুক্তিযোদ্ধা মানিক

২০১৮ সেপ্টেম্বর ০৯ ১৮:৫৯:২৬
দেশ বাঁচাতে ফের শেখ হাসিনার প্রধানমন্ত্রীত্ব চান মুক্তিযোদ্ধা মানিক

সমরেন্দ্র বিশ্বশর্মা, কেন্দুয়া (নেত্রকোনা) : মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশ বাঁচাতে, স্বাধীন দেশের জাতির পতাকা সমুন্নত রাখতে, দেশকে বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে দাড়ঁ করাতে আবারো বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রীর আসনে দেখতে চান বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রথম প্রতিবাদকারী ঢাকা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি নেত্রকোনা-৩  (কেন্দুয়া আটপাড়া) নির্বাচনী এলাকার আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট মো: সাইদুর রহমান মানিক। 

নির্বাচনী এলকায় ঘরে ঘরে গনসংযোগে গিয়ে দলের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের কাছে তিনি এসব কথাই তুলে ধরছেন।

গণসংযোগকালে তিনি বলছেন, ৩০ লাখ শহীদ ও ২ লাখ মা বোনের ইজ্জত সম্ভ্রমের বিনিময়ে ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বর্বর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীকে পরাজিত করে যে বিজয়, যে স্বাধীনতা আমরা এনেছি, সেই দেশের স্বাধীনতা, দেশের স্বাধীন পতাকা কোন স্বাধীনতা বিরোধীর, কোন যুদ্ধাপরাধীর গাড়িতে উড়ুক তা আমি চাইনা। চায়না দেশের মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্মের ছেলেমেয়েরাও। মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্মকে জাগ্রত করতেই এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে তুলে ধরতেই আবারো শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রীর আসনে বসাতে সকলের প্রতি আহবান জানান তিনি।

বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রথম প্রতিবাদকারী মানিক বলেন, মাদার অব হিউমেনিটি (বিশ্ব মানবতার মা) পদকে ভূষিত আমাদের প্রিয় নেত্রী শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন বলেই আমরা পেয়েছি বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচার। পেয়েছি যুদ্ধাপরাধীদের বিচার। পেয়েছি দেশের মুক্তিযোদ্ধারা প্রকৃত সম্মান। সেই সঙ্গে ভিশন ২০২১ ঘোষনার ফলে আমরা পেয়েছি ডিজিটাল বাংলাদেশ। তাছাড়া বাংলাদেশ হতে যাচ্ছে মাদক ও জঙ্গিমুক্ত একটি সুন্দর দেশ। বিশ্বে স্বীকৃতি পেয়েছি উন্নত দেশে এগিয়ে যাবার।

বিশিষ্ট আইনজীবি মুক্তিযোদ্ধা সাইদুর রহমান মানিক বলেন, বঙ্গবন্ধুর ডাকে ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে আমরা অংশ নিয়েছি। অস্ত্র হাতে তুলে নিয়ে যুদ্ধ করেছি, দেশ স্বাধীন করেছি এবার তাঁরই কণ্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশকে ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত করে চাই উন্নত দেশে রূপান্তরিত করতে।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, যুক্তফ্রন্টের নৌকা, স্বাধীনতার প্রতীক নৌকা, ৬ দফার নৌকা, ৭১’র নৌকা, মুক্তিযুদ্ধের প্রতীক নৌকা, বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার প্রতীক নৌকা, স্বাধীন বাংলাদেশের বাঙালীর প্রতীক নৌকা। এই নৌকামার্কায় সব ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে দেশের স্বার্থে আবারো সবাইকে নৌকায় ভোট দিতে হবে। আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নেত্রকোনা-৩ (কেন্দুয়া আটপাড়া) নির্বাচনী এলাকা চষে বেড়াচ্ছেন তিনি।

ইতিমধ্যে নিজেকে দলের নেতাকর্মী ও সর্থকদের বাইরেও সকল মহলের কাছে একজন গ্রহণযোগ্য অসাম্প্রদায়িক ব্যক্তি হিসেবে উপস্থাপন করতে পেরেছেন।

তিনি দৃঢ়তার সঙ্গে বলছেন, নৌকা প্রতীক একটি। আমরা এই নৌকার জন্য চেষ্টা করছি অনেকেই । তবে জননেত্রী নৌকা একজনের হাতেই তুলে দেবেন। কার হাত নৌকা তুলে দেবেন এটা একমাত্র জানেন মহান সৃষ্টি কর্তা এবং নেত্রী।

তিনি বলেন, নৌকা কে পেলাম আর কে পেলামনা সেটা বড় কথা নয়। নৌকা যার হাতেই তুলে দেন আমরা সবাই এক সঙ্গে সেই স্বাধীনতার প্রতীক নৌকার মাল্লা মাঝি হয়ে নৌকাকে নিয়ে গন্তব্যে যাব, যাব সংসদে। নৌকার বিজয় নিশ্চিত করে উপহার দেব আমাদের প্রিয় নেত্রী শেখ হাসিনাকে। তাই আসুন সবাই স্লোগান ধরি নৌকা যার আমি তার, নৌকা সবার, নৌকা শেখ হাসিনার।

(এসবি/এসপি/সেপ্টেম্বর ০৯, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test