E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

কালিগঞ্জের ইউপি চেয়ারম্যান হত্যায় আরো দুইজন গ্রেফতার

২০১৮ সেপ্টেম্বর ২২ ১৫:৪৫:২২
কালিগঞ্জের ইউপি চেয়ারম্যান হত্যায় আরো দুইজন গ্রেফতার

রঘুনাথ খাঁ, সাতক্ষীরা : সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউপি চেয়ারম্যান জাতীয় পার্টির নেতা কেএম মোশাররফ হোসেন হত্যা মামলায় আরো দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শুক্রবার দিবাগত রাত একটার দিকে ও শনিবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার হোসেনপুর গ্রামের নিজ বাড়ি ও কৃষ্ণনগর বাজার থেকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, কালিগঞ্জ উপজেলার হোসেনপুর গ্রামের অজিত ওরফে বাটুল হালদারের ছেলে নন্দ হালদার ও কৃষ্ণনগর গ্রামের ডাকাত ফজর আলীর ছেলে ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ইউপি সদস্য ফজলুর রহমান।

এদিকে চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেনকে হত্যার প্রতিবাদ ও দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে কালিগঞ্চ কাকশিয়ালী ব্রীজের পাশে শনিবার দুপুরে এক প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আওয়ামী লীগ নেতা মোজাহার হোসেন কান্টুর সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন নিহতের মেয়ে সাফিয়া পারভিন, জামাতা রাসেল আহম্মেদ, জাপা নেতা খান লতিফুর রহমান বাবলু, আওয়ামী লীগ নেতা ডিএম সিরাজুল ইসলাম, ছাত্রলীগ নেতা অনীক মেহেদী, নিহতের ভাগ্নে আব্দুল আজিজ প্রমুখ।

হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সাতক্ষীরা জেলা শাখার সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য গোষ্ট বিহারী মন্ডলের অভিযোগ, কৃষ্ণনগর বাজারে দুর্গা মন্দিরের জমি ও ব্যক্তিগত জমি নিয়ে চেয়ারম্যানেরসঙ্গে বিরোধকে কেন্দ্র করে লাল্টু ঘোষ, রণজিৎ মণ্ডল ও নন্দ দর্জিকে পুলিশ অহেতুক এ ধরণের স্পর্শকাতর মামলা গ্রেফতার করে হয়রানি করছে।

কালিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাসান হাফিজুর রহমান জানান, চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন হত্যার ঘটনায় অর্থযোগানদাতা হিসেবে সন্দিগ্ধ আসামী নন্দ হালদারকে শুক্রবার দিবাগত রাত একটার দিকে তাকে তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। একইভাবে যুবলীগ নেতা ফজলুর রহমানকে শনিবার সকাল ১০ টার দিকে কৃষ্ণনগর বাজারের সোহেলউদ্দিন এণ্ড করিমুন্নেছা কিণ্টার গার্টেন স্কুলের সামনে তেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গত ১০ সেপ্টেম্বর রাতে কৃষ্ণনগর বাজারে যুবলীগ অফিসের সামনে ইউপি চেয়ারম্যান কেএম মোশাররফ হোসেনকে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় ১৫ সেপ্টেম্বর প্রধান আসামী ইউপি সদস্য আব্দুল জলিলকে জনতা পুলিশের কাছ থেকে পিটিয়ে হতা করে। এ পর্যন্ত এ মামলায় ১০জনকে গ্রেফতার করা হলো। তিনজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

(আরকে/এসপি/সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

১৫ অক্টোবর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test