E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

নিজের ইচ্ছাতেই বিয়ে করেছি : আদালতকে সিনথিয়া 

২০১৮ সেপ্টেম্বর ২৪ ২৩:১৩:২৫
নিজের ইচ্ছাতেই বিয়ে করেছি : আদালতকে সিনথিয়া 

সমরেন্দ্র বিশ্বশর্মা, কেন্দুয়া (নেত্রকোনা) : গত কয়েক দিনের সব জল্পনা কল্পনার অবসান গঠিয়ে জয় হলো প্রেম পরিনয়ের। সোমবার নেত্রকোনার চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে গিয়ে নিজেই হাজির হন ৩৭ তম বি.সি.এস এ উত্তীর্ণ তাসলিমা সুলতানা সিনথিয়া।

সিনথিয়ার সঙ্গে নেত্রকোনার কেন্দুয়া পৌরসভার প্রথম মেয়র প্রয়াত আব্দুল হক ভূঞার ছোট ছেলে রাতুল হাসান বাবুর প্রেমের সম্পর্ক স্থাপন করে রেজিষ্ট্রী কাবিনমূলে বিয়ে হয় চলতি বছরের গত ১১ আগস্ট। কিন্তু বিয়ের ১ মাস ৯ দিন পর বি.সি.এসে উত্তীর্ণ ওই নারীকে অপহরনের অভিযোগ এনে গত ১৯ সেপ্টেম্বর কেন্দুয়া থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন সিনথিয়ার মা রাজিয়া সুলতানা। পরদিন বৃহস্পতিবার সিনথিয়ার মা রাজিয়া ও বাবা সুলতান আহমেদ তার কণ্যা সিনথিয়াকে উদ্ধারের দাবীতে থানায় অবস্থান নেন। সেদিন সিনথিয়ার মা বাবার দাবী ছিল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় (১৮) সেপ্টেম্বর কেন্দুয়া পৌর শহরের আরামবাগ মহল্লার বাসা থেকে কিছু দুষ্কৃতিকারী সিনথিয়াকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। অপহৃতাকে উদ্ধারের দাবিতেই তারা থানার প্রাঙ্গনে এসে অবস্থান নেয়।

রাজিয়া সুলতানা মামলার এজাহারে উল্লেখ, কেন্দুয়া পৌরসভার প্রথম মেয়র প্রয়াত আব্দুল হক ভূঞার ছোট ছেলে বর্তমান পৌর মেয়র মো: আসাদুল হক ভূঞার ভাতিজা রাতুল হাসান বাবু, অপর ভাতিজা সাফিম, ভাগিনা জুনায়েদ, পুলক ও কাউরাট গ্রামের মোজাম্মেল হকের নেতৃত্বে অজ্ঞাতনামা আরো ১৫/২০ জন তার কণ্যা সিনথিয়াকে অস্ত্রের মুখে অপহরণ করে নিয়ে যায়। সিনথিয়া কেন্দুয়া পৌর আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক ও কাউন্সিলর আশরাফ উদ্দিন ভূঞার ভাগিনী।

মামলা দায়েরের পর এ ঘটনাটি নিয়ে জন মনে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে। প্রাপ্ত বয়ষ্ক ছেলে মেয়ের প্রেম করে বিয়ের পর অপহরন নাটক সাজিয়ে মামলা দিয়ে উদ্ধারের জন্য থানায় অবস্থান নেয়ার ঘটনায় জন মনে তীব্র আলোচনা সমালোচনার সৃষ্টি করে। এর পর কদিন ধরেই বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় এ সংক্রান্ত খবর প্রকাশে আলোচনার মাত্রা আরো অনেকগুণ বেড়ে যায়। মামলা দায়েরের পর কেন্দুয়া পৌরসভার মেয়র মো: আসাদুল হক ভূঞা গত বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের বলেন, এটি কোন অপহরনের ঘটনা নয়।

৩৭ তম বি.সি.এসে উত্তীর্ণ তাসলিমা সুলতানা সিনথিয়ার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরেই রাতুল হাসান বাবুর প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। এ সম্পর্কের প্রতিষ্ঠিত করতেই প্রাপ্ত বয়স্ক ছেলেমেয়ে দুজনে মিলে চলতি বছরের ১১ আগষ্ট ৩৬১ এ্যালিফেন্ট রোড নিউ মার্কেট ঢাকা-১২০৫ কাজী মো: বিল্লাল হোছাইনের অফিসে ৩ লাখ টাকার দেন মোহর ধার্য করে রেজিষ্ট্রী কাবিন মূলে বিয়ে হয়। বিয়ের পর সিনথিয়া তার বাবার বাড়িতে যায়।

তিনি বলেন, সামাজিক আচার অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সিনথিয়াকে বধু হিসেবে বরণ করার জন্য সিনথিয়ার মামা আশরাফ উদ্দিন ভূঞার সাথে আমাদের আলাপ আলোচনা চলছিল। এছাড়া রাতুল হাসান বাবুর মা সহ আরো বেশ কয়েক জন মুরুব্বি সিনথিয়ার বাবা মার কাছে গিয়ে সামাজিক ভাবে আচার অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বধু বরণের প্রস্তাব দিয়েছিলেন। কিন্তু সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে গত ১৯ সেপ্টেম্বর রাতুল হাসান বাবু সহ ৫ জনের নাম উল্লেখ পূর্বক অজ্ঞাতনামা আরো ১৫/২০ জনকে আসামি করে কেন্দুয়া থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন সিনথিয়ার মা রাজিয়া।

মেয়র আসাদুল হক ভূঞা বলেন, আমাদের রাজনৈতিক পরিবারকে সামাজিক ভাবে হেয় করার জন্য প্রাপ্ত বয়ষ্ক ছেলে মেয়ের প্রেম সম্পর্কের বিষয়টির স্বীকৃতি না দিয়ে সিনথিয়ার মা থানায় এ মামলা দায়ের করেছিলেন। কিন্তু সোমবার সিনথিয়া নিজেই নেত্রকোনা চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে উপস্থিত হয়ে তার মতামত আদালতকে জানিয়েছে।

আদালতে সিনথিয়া বলেছে, তার নিজের ইচ্ছাতেই রাতুল হাসান বাবুর সঙ্গে প্রেম সম্পর্কের মাধ্যমে রেজিষ্ট্রী কাবিন মূলে বিয়ে হয়েছে। তাকে কেউ অপহরণ করেনি। আদালতের বিচারক তার বক্তব্য গ্রহনের পর তার নিজের জিম্মাতেই তাকে দিয়েছেন।

এদিকে সিনথিয়ার মামা কেন্দুয়া পৌর আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক ও কাউন্সিলর আশরাফ উদ্দিন ভূঞার সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, সিনথিয়া আদালতে গিয়েছিল, তবে আদালতে কি বক্তব্য দিয়েছে তা এখনও জানতে পারিনি।

কেন্দুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ ইমারত হোসেন গাজী বলেন, মামলার সূত্র ধরেই তাসলিমা সুলতানা সিনথিয়া আদালতে তার বক্তব্য উপস্থাপন করেছেন। আদালতের বক্তব্যের কপি এখনও আমরা হাতে পাইনি। তবে আদালত তাকে তার নিজের জিম্মায় নিজ বাড়িতে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন।

(এসবি/এসপি/সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

১৬ ডিসেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test