E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

মাদক সংশ্লিষ্টতায় এসআই মহিউদ্দিনকে পুলিশ হেডকোয়ার্টারে তলব

২০১৮ অক্টোবর ১৫ ১৮:৫১:৫৫
মাদক সংশ্লিষ্টতায় এসআই মহিউদ্দিনকে পুলিশ হেডকোয়ার্টারে তলব

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, বরিশাল : কোতোয়ালী মডেল থানার স্বল্প অতীত সময়কার ব্যাপক সমালোচিত সাবেক কর্মকর্তা মহিউদ্দিন শেখ। কনস্টেবল থেকে এসআই হওয়া মহিউদ্দিন বরিশাল থাকাকালে কতটা বিতর্কিত ছিলেন তা তার বদলীর খবরে নগরের চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীদের চোখের পানি দেখেই অনুমান করা গিয়েছিল। বদলীর পর মধ্যখানে বছর কয়েকের ব্যবধানে বর্তমানের তার কর্মস্থল বরিশাল শহর লাগোয়া ঝালকাঠি জেলার নলছিটি থানায়। ওই থানায় এসআই মহিউদ্দিন শেখ যোগদানের কয়েক মাসের মধ্যেই গোটা নলছিটিজুড়ে শুরু হয় অস্থির পরিবেশের। 

সম্প্রতি তার বিরুদ্ধে নলছিটির চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী, র‌্যাবের হাতে আটক হওয়া নূর আলমকে সরাসরি শেল্টার দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। শুধু মাদক ব্যবসায় শেল্টার নয়, নূর আলমের দোকানে চলছে এসআই মহিউদ্দিনের গঠিত ‘নলছিটি থানার দ্বিতীয় শাখার’ কার্যক্রম -এমনটাই ভাষ্য স্থানীয়দের। নির্ভরযোগ্য সূত্র নিশ্চিত করেছে, এসআই মহিউদ্দিন বর্তমানে ঢাকায় অবস্থান করছেন। কারণ, তার মাদক ব্যবসার সঙ্গে সম্পৃক্ততা বিষয়ে পুলিশের হেডকোয়ার্টার্সে অভিযোগ দাখিলের পর দপ্তরের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জবাবদিহি করতে গেছেন তিনি।

নলছিটির দপদপিয়া ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গোপন সূত্রে খবর, ওই ইউনিয়নে মাদক ব্যবসা ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে নূর আলমের নামটি শীর্ষে। তার রয়েছে নিজস্ব বাহিনী। যে বাহিনী মাদক সরবরাহ সহ এহেন অপকর্ম নেই যা করে না। ২০১৫ সালে বিপুল পরিমাণ ফেন্সিডিলসহ নূর আলমকে আটক করে র‌্যাব-৮। যার মামলা নং- ২৩, তারিখ- ২৯/৭/১৮ (জি.আর- ১৩৮/১৫)। নূর আলম কারাগারে থাকাকালে বাহিনীর সদস্যরা যে যার মত সটকে পড়ে। স্বস্তি ফেরে এলাকায়।

সাধারণ জনতা, ছোট-বড় ব্যবসায়ী মহল নিশ্চিন্তে দিন যাপন করেন। নূর আলম কারামুক্ত হওয়ার পরেও কিছুটা নিবৃত থাকতে দেখা যায়। কিন্তু ‘পড়ে থাকা কেরোসিনে’ যেন দিয়াশলাইয়ের মত কাজ করলেন এসআই মহিউদ্দিন শেখ। নলছিটি থানায় যোগদানের পরই স্বরূপে ফিরেছে নূর আলম ও তার বাহিনী।

থানা সূত্র জানায়, নলছিটির ৯নং দপদপিয়া ইউনিয়নে নিরাপত্তা তদারকির দায়িত্ব পড়ে এসআই মহিউদ্দিনের ওপর। এরপর সখ্যতা গড়ে ওঠে নূর আলমের সাথে। শুরু হয় মাদক ব্যবসার বিস্তৃতি। দপদপিয়া জিরো পয়েন্টে থাকা নূর আলমের দোকান পরিণত হয় এসআই মহিউদ্দিনের অপকর্মের আস্তানা হিসেবে। নূর আলমের বাহিনীর সদস্যরা জিরো পয়েন্টে বসেই মাদকের বিষ ছড়িয়ে দিচ্ছে নলছিটি, বাকেরগঞ্জ ও বরিশাল নগরে। দুই উপজেলা ও নগরীর মিলনস্থল জিরো পয়েন্টে গিয়ে ইয়াবা-ফেন্সিডিল সংগ্রহ করে মাদক সেবীরা। এসব কিছুই হয় এসআই মহিউদ্দিন ছত্রছায়ায়।

এছাড়া ওই দোকানে বসেই হয় জমি দখল, চাঁদাবাজিসহ অসাধু কর্মকান্ডের পরিকল্পনা, বাস্তবায়ন ও ভাগবাটোয়ারা। ওই দোকানে ডেকে অপরাধী ও নিরাপরাধ মানুষের সাথে এসআই মহিউদ্দিনের রফাদফা হয় বলে আশপাশের লোকজন প্রতিনিয়ত প্রত্যক্ষ করে। দপদপিয়া ইউনিয়নের যে কোন সমস্যার মিমাংসা হয় নূর আলমের দোকানে বসেই। ওই দোকানকেই এসআই মহিউদ্দিন তার “দ্বিতীয় থানা” বানিয়েছেন বলে মন্তব্য এলাকাবাসীর।

অভিযোগ আছে, নূর আলমের বাহিনী ছেড়ে কেউ সুপথে ফিরতে চাইলে এসআই মহিউদ্দিন তাদের বাবা-মাকে ডেকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর হুমকি দিয়ে অপকর্মে জড়িত থাকতে বাধ্য করে। এসকল অপকর্মের কেউ প্রতিবাদ করলে নূর আলমের লালিত সন্ত্রাসী দ্বারা তাদের লাঞ্ছিত করা হয় বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।

এসআই মহিউদ্দিনের ঘনিষ্ট একটি সূত্র জানিয়েছে, তিনি ‘আর ওয়ান ফাইভ’ মডেলের যে মোটরসাইকেলটি ব্যবহার করেন সেটি রেজিস্ট্রেশনবিহীন। গাড়ির নম্বর প্লেটে যে নম্বর লেখা আছে (ঢাকা মেট্রো-ল ২৩-০৭০২) তা ওই গাড়িটির নয়। ওই গাড়িটি মাদক ব্যবসার কাজে ব্যবহার করে নূর আলম। বিভিন্ন স্থানে পুলিশ তাকে ধরলেও এসআই মহিউদ্দিনের মোটরসাইকেল বলে পার পেয়ে যায়।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কড়া নির্দেশে দেশজুড়ে মাদকবিরোধী অভিযান চললেও নলছিটির দপদপিয়ায় এসআই মহিউদ্দিনের প্রত্যক্ষ মদদে চলছে রমরমা মাদকের কারবার। সূত্র জানায়, এসআই মহিউদ্দিনের অপকর্মের বিষয়ে বরিশাল রেঞ্জ ডিআইজির কাছে একাধিক অভিযোগ দেওয়া হয়। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে মহিউদ্দিন রয়ে গেছেন বহাল তবিয়তে। সূত্রের দাবি- বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানায় একের পর বিতর্কিত কর্মকান্ড করে এসআই মহিউদ্দিন হয়েছেন অঢেল সম্পত্তির মালিক। বরিশাল নগরীসহ বিভিন্ন স্থানে রয়েছে নামে-বেনামে বাড়ি ও জমি।

এলাকার মানুষের ভাষ্য- এসআই মহিউদ্দিন দম্ভোক্তি করে বলে বেড়ান তার ওপর প্রভাবশালী মহলের আশির্বাদ রয়েছে। উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে অভিযোগ দিয়ে কোনো লাভ হবে না।

এদিকে পুলিশের একটি সুত্র যানায়, মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত থাকার বিষয়ে পুলিশের হেডকোয়ার্টারে অভিযোগ জমা পড়েছে। পুলিশ হেড কোয়ার্টারস এসআই মহিউদ্দিনকে ঢাকায় তলব করা বর্তমানে তিনি ঢাকায় অবস্থান করছেন।

সূত্রটি আরও জানায়, বদলী এবং মাদক সংশ্লিষ্টতার তদন্ত ঠেকাতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন এসআই মহিউদ্দিন।

এমনকি অভিযোগকারী সন্দেহের নলছিটির অনেককে ফোন করে হুমকি দিয়ে মহিউদ্দিন বলছেন, আমি আবার নলছিটি থানায় আসতেছি। তারপর দেখা হবে আপনাদের সাথে। সার্বিক বিষয়ে এসআই মহিউদ্দিন শেখ’র কাছে জানতে তার মুঠোফোনে কল দিলে রিসিভ না করায় তার সাক্ষাৎকার নেওয়া সম্ভব হয়নি।

(টিবি/এসপি/অক্টোবর ১৫, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

১৫ নভেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test