Pasteurized and Homogenized Full Cream Liquid Milk
E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

উপজেলা নির্বাচন

আ.লীগের নির্যাতিত নেতার মূল্যায়ন চায় রায়পুরবাসী

২০১৯ ফেব্রুয়ারি ১২ ১৬:০৬:৪৪
আ.লীগের নির্যাতিত নেতার মূল্যায়ন চায় রায়পুরবাসী

রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি : সংসদ নির্বাচন শেষ হতে না হতেই উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে প্রার্থীদের পোস্টার, ব্যানার, গণসংযোগে সরব রয়েছে উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থীরা। নবীণ-প্রবীন মিলিয়ে আওয়ামী লীগের হাফ ডজন প্রার্থী মাঠে থাকলেও তৃণমূল নেতাকর্মীদের ভরসা  সিনিয়র ত্যাগী নেতা বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন মাস্টারকে নিয়েই। বিএনপি জামায়াত জোট সরকারের সময়ে সাতটি মামলাসহ খায়ের বাহিনীর নানা অত্যাচার নির্যাতনের শিকার এ নেতার আবারো মূল্যায়ন করতে দলের হাইকমান্ডের প্রতি আহবান জানিয়েছেন তৃণমূল নেতাকর্মীরা।

দু:সময়ের পরীক্ষিত নেতা হিসেবে পরিচিত আ’লীগ নেতা মাস্টার আলতাফ হোসেন হাওলাদার নৌকা প্রতিক নিয়ে বিগত উপজেলা নির্বাচনে জামায়াতের প্রার্থীকে হারিয়ে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন। গত ৩০ ডিসেম্বর সংসদ নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল খায়ের ভূঁইয়াকে (ধানের শীষ) পরাজিত করে কুয়েতের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আওয়ামীলীগ নেতা কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলকে বিপুল ভোটে জয়লাভ করতেও রাখেন গুবুত্বপূর্ন ভূমিকা। আওয়ামী লীগের রাজনীতির দুঃসময়ের কান্ডারী ও রায়পুর উপজেলাকে নৌকার ঘাটি হিসেবে তৈরি করার পেছনে তার ভূমিকা আর ত্যাগই সর্বোচ্চ বলে মনে করেন নেতাকর্মীরা।

আলতাফ মাস্টার ছাত্রজীবন থেকে ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে আওয়ামী লীগের দুঃসময়ে ২০১৪ সালে উপজেলা নির্বাচিত হওয়া এ নেতার আছে বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক ক্যারিয়ার। এ নেতাকে বলা হয় দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের সিংহ পুরুষ। যিনি বিএনপি জামায়াতের শাসনামলে রাজপথে আ.লীগের বিভিন্ন কর্মসূচীতে সক্রিয় অংশগ্রহণ করায় খঅয়ের ভুইয়া বাহিনীর হাতে অনেক অত্যাচার সহ্য করতে হয়েছিল তার পরিবারকে। মিথ্যা খূনের অভিযোগসহ সাতটি মামলা মাথায় নিয়ে ফেরারী হয়েও আলীগের হাল ছাড়েননি। ষ্বাধীনতা যুদ্ধে বড়ভাই মুক্তিযোদ্ধা চলে যাওয়ায় বাড়ীঘর জ্বালিয়ে দিয়ে ছিল পাক হানাদার বাহিনী।

উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়নপপ্রত্যাশীদের মধ্যে রয়েছেন বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান মাস্টার আলতাফ হোসেন হাওলাদার, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি ও রুস্তম আলী ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মামুনুর রশিদ, সাবেক পৌর মেয়র ও জেলা আ’লীগের নির্বাহী কমিটির সদস্য আলহাজ্ব রফিকুল হায়দার বাবুল পাঠান, জেলা আইনজীবি সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জেলা আ’লীগের সদস্য এডভোকেট মিজানুর রহমান মুন্সি, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক ও জেলা পরিষদের সদস্য মঞ্জুর হোসেন সুমন । মনোনয়নপ্রত্যাশীরা তাদের সপক্ষে সমর্থন পাওয়ার জন্য দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে আলাপ আলোচনা করছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও তারাও তাদের সমর্থকরা দলের নেতাকর্মীদের সমর্থন আদায়ের জন্য ব্যাপক প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন ।

লক্ষ্মীপুর-২ রায়পুর আসন থেকে নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য কাজী শহীদ ইসলাম পাপুল বলেন, জনগণ আমাকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করার পেছনে আলতাফ মাস্টারের বিশাল অবদান রয়েছে। স্থানীয় নির্বাচনে দলের পরীক্ষিত, ত্যাগী ও তৃণমূলে জনপ্রিয় ব্যক্তিকে মনোনয়ন দিলে আমরা সম্মিলিতভাবে নৌকার ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত রায়পুরের উন্নয়নে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে পারব। আমি মনে করি আমাদের প্রিয় নেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশ রত্ন শেখ হাসিনা দলের ত্যাগী নেতাদেরকে সবসময় মূল্যায়ন করে থাকেন।

(পিকেআর/এসপি/ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৯)

পাঠকের মতামত:

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test