Pasteurized and Homogenized Full Cream Liquid Milk
E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

সচেতনতা যক্ষ্মা হ্রাসে অবদান রাখবে

২০১৯ জুন ২৫ ২২:৩৩:৪৩
সচেতনতা যক্ষ্মা হ্রাসে অবদান রাখবে

নিউজ ডেস্ক : মঙ্গলবার জাতীয় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচি ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের যৌথ উদ্যোগে ষাণ্মাসিক মনিটরিং সভা ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব মোস্তাফিজুর রহমান, বিশেষ অতিথি ছিলেন আরবান প্রাইমারি হেলথ কেয়ার সার্ভিস ডেলিভারি প্রজেক্টের পরিচালক জনাব আবদুল হাকিম মজুমদার। জাতীয় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির প্রতিনিধি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিভাগীয় যক্ষ্মা বিশেষজ্ঞ ডা. আহমদ পারভেজ জাবীন।

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জাতীয় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির টিবি ফোকাল পারসন ডা. সায়েদুল বাসার । মনিটরিং সভায় সভাপতিত্ব করেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. মো. শরিফ আহমদ।

প্রধান অতিথি জনাব মোস্তাফিজুর রহমান তাঁর বক্তব্যে বলেন, কুসংস্কার যক্ষ্মা রোগ নিয়ন্ত্রণে প্রধান অন্তরায়। যক্ষ্মা রোগ সম্পর্কে সচেতনতা এ কুসংস্কার দূর করে যক্ষ্মা রোগ হ্রাসে অবদান রাখবে। তিনি আরও বলেন, বর্তমান সরকার স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও সামাজিক নিরাপত্তা খাতে ব্যাপক কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। এ কার্যক্রমের আওতায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এলাকায় বিনামূল্যে যক্ষ্মা রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হচ্ছে।

বিশেষ অতিথি জনাব আবদুল হাকিম মজুমদার বলেন, মসজিদের ইমাম, মন্দিরের পুরোহিতগণ যক্ষ্মা রোগ সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারেন। তিনি আরও বলেন, আরবান প্রাইমারি হেলথ কেয়ার সার্ভিস ডেলিভারি প্রজেক্টের ক্লিনিকসমূহে যক্ষ্মা চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম সম্প্রসারণের মাধ্যমে যক্ষ্মা সেবাকে জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়া সম্ভব।

জাতীয় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির প্রতিনিধি ডা. আহমদ পারভেজ জাবীন বলেন, জাতীয় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচি শীঘ্রই দু’টি ভ্রাম্যমাণ ভ্যানের মাধ্যমে কফ পরীক্ষা, এক্স-রে ও সর্বাধুনিক জিন-এক্সপার্ট সুবিধা নগরবাসীর দোরগোড়ায় পৌঁছে দেবে যার ফলে যক্ষ্মা রোগ নির্ণয় দ্রুত ও সহজ হবে।

সভাপতির বক্তব্যে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. মো. শরিফ আহমদ বলেন, জাতীয় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচি ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের সমন্বিত কার্যক্রম যক্ষ্মা হ্রাস করে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে অবদান রাখবে, যা ২০৩৫ সালে এন্ড টিবি কৌশলের আওতায় শূন্য যক্ষ্মায় উপনীত হতে সহায়তা করবে।

(পিআর/অ/জুন ২৫, ২০১৯)

পাঠকের মতামত:

১৭ নভেম্বর ২০১৯

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test