Pasteurized and Homogenized Full Cream Liquid Milk
E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

নৌকার বিপক্ষে নির্বাচন : সাবেক সাংসদসহ ১০ জন অভিযুক্ত

২০১৯ জুলাই ২১ ১৭:৪৮:৫২
নৌকার বিপক্ষে নির্বাচন : সাবেক সাংসদসহ ১০ জন অভিযুক্ত

রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি : পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলে আ’লীগ মনোনীত প্রার্থীর (নৌকা) বিপক্ষে নির্বাচন করার অভিযোগে অভিযুক্ত হয়েছেন সংরক্ষিত ৩০১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য সেলনিা জাহান লিটা সহ ১০ জন আ’লীগ নেতা। দলের বিপক্ষে ভোট করা নেতাদের চিহ্নিত করার জন্য গঠিত কমিটি গত শনিবার উপজেলা আ’লীগের কার্যকরী কমিটির সভায় এক প্রতিবেদনে এ অভিযুক্ত করেন।

প্রতিবেদন সুত্রে জানা যায়, নৌকার বিপক্ষে ভোট করেছেন সাবেক সংরক্ষিত আসনের সাংসদ উপজেলা আ’লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক সেলিনা জাহান লিটা। উপজেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি প্রভাষক সফিকুল আলম, আব্বাস আলী, মোশারফ হোসেন বুলু। যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান বাকী উপজেলা আ’লীগের সদস্য মামুনুর রশিদ এলবাট, আব্দুল বারী । লেহেম্বা ইউপি আ’লীগ সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম নন্দুয়ার ইউপি আ’লীগ সম্পাদক আলতাব গহর হাবলু উপজেলা আ’লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক জমির উদ্দীন।

পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী উপজেলা আ’লীগের সভাপতি অধ্যাপক সইদুল হক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক নেতা শাহরিয়ার আজম মুন্নার নিকট বিপুল ভোটে পরাজিত হন।

পরাজয়ের কারণ হিসাবে লোক মুখে জানা যায়, রাণীশংকৈল আ’লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও সাবেক সাংসদ মরহুম আলী আকবর ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের আমৃত্যু সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমানের পরিবার এক হয়ে এবার স্বতন্ত্র প্রার্থী করেছিলেন মিজানুর রহমানের ছেলে ছাত্রলীগ নেতা শাহরিয়ার আজম মুন্নাকে। এতে দুই পরিবারের যৌথ প্রয়াসে এবং অন্যান্য দলের অঘোষিত সমর্থনে ও সাধারণ মানুষের আন্তরিক প্রচেষ্ঠায় বিপুল ভোটে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন মুন্না। সেলিনা জাহান লিটা রাণীশংকৈল আ’লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সাবেক সাংসদ আলী আকবরের জোষ্ঠ কন্যা।

ভোট পরবর্তী সময়ে উপজেলা আ’লীগের কার্যনিবার্হী কমিটির সভায় দলীয় প্রার্থী হেরে যাওয়ার কারণ নিয়ে আলোচনা ও আ’লীগের কোন কোন পদধারী নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থীর ভোট করেছেন তা নিয়ে আলোচনা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৫মে দলীয় প্রার্থীর বিপক্ষে কাজ করা নেতাদের তালিকা করতে উপজেলা আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক তাজউদ্দীন আহম্মেদকে আহবায়ক করে চার সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা আ’লীগ সভাপতি অধ্যাপক সইদুল হক বলেন, গত শনিবার তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনটি পেয়েছি। এ বিষয়ে শোকচ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা আ’লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক সাবেক সাংসদ সেলিনা জাহান লিটা বলেন, আমি উপজেলা নির্বাচনে ব্যক্তিগত সমস্যায় ঢাকায় ছিলাম। আমরা প্রকৃত আ’লীগ কখনোই আ’লীগের সাথে বেঈমানি করি না ভবিষ্যৎও করবো না। আমার বিরুদ্বে আনিত অভিযোগের কোন তথ্যভিত্তিক প্রমাণ নেই। আমি কোথাও নৌকার বিপক্ষে ভোট চাই নি কোন মাধ্যমেই চাই নি। উপজেলা আ’লীগের সভাপতি বরাবরই আমার ও আমাদের পরিবারের বিরুদ্বে লেগেই রয়েছে। এটি তার অপরাজনীতির বহিঃপ্রকাশ মাত্র।

(কেএস/এসপি/জুলাই ২১, ২০১৯)

পাঠকের মতামত:

১২ ডিসেম্বর ২০১৯

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test