Pasteurized and Homogenized Full Cream Liquid Milk
E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

চাঁদার দাবিতে গ্রেপ্তারকৃত সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেল হাজতে

২০১৯ সেপ্টেম্বর ১৭ ১৭:১৯:২০
চাঁদার দাবিতে গ্রেপ্তারকৃত সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেল হাজতে

রঘুনাথ খাঁ, সাতক্ষীরা : দাবিকৃত পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় এক মৎস্যজীবীকে পিটিয়ে পা ভেঙে দেওয়ার ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা আনারুল ময়নাকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। 

মঙ্গলবার জামিন শুনানী শেষে জ্যেষ্ট বিচারিক হাকিম রাজীব রায় এ আদেশ এ দেন। অপর আসামী নিত্যজিৎ বিশ্বাসকে জামিনে মুক্তি দেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, চলতি বছরের ১৩ মে তারা খোদ্দ বাওড়ের একসনা বন্দোবস্ত নিয়ে ১০০ জন সংখ্যালঘু জেলে সম্প্রদায়ের লোকসহ ১১৪ জন মাছ চাষের প্রস্তুতি নেন। আট লাখ টাকার মাছের পোনাসহ প্রায় ১৪ লাখ টাকা খরচ করেন ওই বাওড়ে।

স্থানীয় ইউনিয়ন অওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান গাজী, সাবেক উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছাঃ মেলিনা আনোয়ার ময়না, আমিনুর গাজী, হাসান সরদারসহ একটি মহল বাওড়ে মাছ চাষ করতে হলে তাদেরকে পাঁচ লাখ টাকা দিতে হবে বলে দাবি করে। টাকা না দিলে তারা মাছ চাষ করতে দেবেনা বলে জানায়। এমনকি বাওড় দখল করবে বলেও তাদেরকে হুমকি দেয়।

এ ঘটনায় সমিতির সভাপতি বাবলু বিশ্বাস গত ১১ সেপ্টেম্বর জেলা প্রশাসকের কাছে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। নিজের ও পরিবারের সদস্যদের জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন করেন সদস্য শচীন বিশ্বাস। এসব খবর জানকে পেরে সমিতির সদস্য শচীন বিশ্বাসকে গত ১১ সেপ্টেম্বর বুধবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে পাকুড়িয়া গ্রামের ব্রাক অফিসের সামনে মাসুমের চায়ের দোকানে বসে থাকাকালিন দাবিকৃত পাঁচ লাখ টাকা না দেওয়ায় মান্নান, জয়, রিপন, কুদ্দুস, মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী ময়না খাতুন, নিত্যজিৎ বিশ্বাসসহ কয়েকজন লোহার রড দিয়ে শচীনের ডান পা ভেঙে গুড়িয়ে দেয়। দু’ হাত, পিট ও কোমর পিটিয়ে জখম করে। পরে তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

সোমবার নির্যাতিতের মেয়ে বিপ্রতি বিশ্বাস বাদি হয়ে মান্নান, ময়নাসহ পাঁচজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা তিনজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন। এরপরপরই থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনির উল গিয়াসের নেতৃত্বে পুলিশ অবিযান চালিয়ে ময়না ও নিত্যজিকে গ্রেপ্তার করে।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচারনা করেন সিএসআই আব্দুল কুদ্দুস, আইনজীবী তাপস দাস, অ্যাড.দুর্গাপদ ঘোষ।

আসামীপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাড, শাহ আলম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. রেজায়ানউদ দৌলা সবুজ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. ইউনুছ আলী, সাবেক পিপি অ্যাড, ওসমান গণিসহ একডজন আইনজীবী।

(আরকে/এসপি/সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৯)

পাঠকের মতামত:

২০ অক্টোবর ২০১৯

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test