Pasteurized and Homogenized Full Cream Liquid Milk
E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে গৃহবধূর শ্লীলতাহানির অভিযোগ

২০১৯ নভেম্বর ১৬ ১৬:৪৮:৩৫
প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে গৃহবধূর শ্লীলতাহানির অভিযোগ

মাগুরা প্রতিনিধি : মাগুরার শালিখা উপজেলা সদর আড়পাড়া সরকারি আইডিয়াল হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক একে এম খাইরুল  আলমের বিরুদ্ধে এক গৃহবূর শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছে।  বিচার চেয়ে ওই গৃহবধু মাগুরা জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করেছেন। ঘটনাটি জানাজানি হওয়ায় এলাকাবাসী পোষ্টারিং করে ওই প্রধান শিক্ষকের বিচার চেয়েছেন।  

উপজেলা সদর আড়পাড়া সরকারি আইডিয়াল হাই স্কুল মাঠের পশ্চিম পার্শ্বে আব্দুল হাকিমের ভাড়াটিয়া বাসায়।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ঘটনার দিন প্রধান শিক্ষক একে এম খাইরুল আলম স্কুলের প্রাঙ্গনে ক্যান্টিনের মালিক মোঃ আব্দুল্লাহকে নিয়ে ওই দিন সকাল ৭টার দিকে অর্তকিত ওই গৃহবধুর বাসায় ঢুকে প্রথমে তার মুখের পর্দা খুলতে বলে। এরপর তাকে জড়িয়ে ধরে শরীরে হাত দেওয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হলে জোর করে তাকে ঝাপটে ধরে। এ সময় মহিলাটির চিৎকারে ঘর মালিক সহ অন্যান্য ভাড়াটিয়ারা ছুটে আসলে প্রধান শিক্ষক পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে ভুক্তভুগি মহিলা বলেন বেশ কয়েক দিন আগে থেকেই সে আমাকে ডিস্টাপ করে আসতেছিলো। ঘটনার ধারাবাহিকতায় গতকাল সে আব্দুল্লাহ নামের এক হুজুরকে বাসার বাইরে দাড় করে রেখে কাউকে কিছু না বলে আমার বাসার ভিতরে ঢুকে আমাকে দেওয়ালের সাথে ঝাপটে ধরে এবং আমার শরীরের বিভিন্ন স্থানে স্পর্স করে এসময় আমি চিৎকার করলে বাড়িওয়ালা সহ আশপাশের লোকজন ছুটে আসলে সে আমাকে ছেড়ে পালিয়ে যায়। বিষয়টি নিয়ে আমি জেলা নির্বাহী প্রশাসকের নিকট লিখিত অভিযোগ করেছি। ঘটনাটি চারিদিকে ছড়িয়ে পড়লে প্রধান শিক্ষক একএম খাইরুল আলম কতিপয় শিক্ষক নিয়ে এসে আমার হাতে পায়ে ধরছেন। অসহায় মহিলাটি সাংবাদিকদের নিকট কান্নার স্বরে অভিযোগ করে বলেন ভাই ঘটনাটি আমার স্বামী বিদেশ থেকে জানতে পেরে আমাকে তালাকনামা দেওয়ার কথা বলছে। এখন আমি কি করবো ? কোথায় গেলে বিচার পাবো ? আপনারা কিছু একটা করেন। যাতে আমি সঠিক বিচার পায়।

এ ব্যাপারে বাসার মালিক আব্দুল হাকিম জানান বিষয়টি নিয়ে মহিলা জেলা প্রশাসক মহোদয়ের অভিযোগ করেছেন। তিনি অবশ্যই সঠিক বিচার করবেন। আমি আপনাদের কিছুই বলতে পারবোনা। অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক একে এম খাইরুল আলমকে না পেয়ে তার মুঠো ফোনে বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন ঘটনাটি মিথ্যা। তবে আপনারা যা শুনেছেন তা সত্যি নয়। যা ঘটেছে আমি লোকজন নিয়ে মহিলার কাছে মাফ চেয়ে নিয়েছি।

এদিকে গতকাল শালিখা উপজেলা সদর আড়পাড়া বাজারের বিভিন্ন গুরুত্ব পূর্ন এলাকায় ওই প্রধান শিক্ষকের বিচার চেয়ে কে বা কাহারা পোষ্টারিং করেছে।

এ ব্যাপারে মাগুরা জেলা প্রশাসক মোঃ আশরাফুল আলম মহোদয়ের সাথে কথা বললে তিনি বলেন বিষয়টি নিয়ে মহিলা লিখিত অভিযোগ করেছেন। আমি তদন্ত স্বাপেক্ষে ব্যবস্থা নিবো। এ বিষয়ে গৃহবধুর মামা আড়পাড়া গ্রামের মোঃ বাবর আলী বিশ্বাস ও আমিরুল বিশ্বাস বলেন ওই প্রধান শিক্ষক পূর্বেও ছাত্রীদের সাথে এমন ঘটনা ঘটিয়েছে। আমরা তার দৃষ্টান্ত মূলক জোর শাস্তির দাবি জানায়।

(ডিসি/এসপি/নভেম্বর ১৬, ২০১৯)

পাঠকের মতামত:

১১ ডিসেম্বর ২০১৯

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test