E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

বাগেরহাটে সাবেক ছাত্রলীগ নেতাসহ চারজনের করোনা শনাক্ত, ২২ বাড়ী লকডাউন

২০২০ জুন ০২ ১৭:০৫:৪৫
বাগেরহাটে সাবেক ছাত্রলীগ নেতাসহ চারজনের করোনা শনাক্ত, ২২ বাড়ী লকডাউন

বাগেরহাট প্রতিনিধি : বাগেরহাটে নতুন করে আরো চারজন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। করোনা আক্রান্ত এই চারজনের বাড়ী শরণখোলা, মোল্লাহাট ও চিতলমারী উপজেলায়। নতুন করে করোনা আক্রান্ত এই চারজনের বাড়ীসহ ২২টি বাড়ী মঙ্গলবার সকালে লকডাউন করা হয়েছে। এই চারজনের করোনা শনাক্তের মধ্যে দিয়ে জেলার করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাড়ালো ৩৪ জনে। এরমধ্যে দুইজন মারা গেলেন। আটজন সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। অন্যরা এখন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কেএম হুমায়ুন কবির এতথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নতুন করে করোনা আক্রান্তরা হলেন, বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলার খোন্তাকাটা ইউনিয়নের রাজৈর বাসস্টান্ড এলাকার বাসিন্ধা ঢাকা উত্তর ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি এবং বসিলা এলাকার ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ে সেকশন অফিসার আল-মামুন (২৯)।

দেশব্যাপী লকডাউনের শুরুরদিকে প্রায় দুই মাস আগে তিনি নিজ বাড়িতে চলে আসেন। গত ২৭ মে শরণখোলা হাসপাতাল তার নমুনা সংগ্রহ করে পরিক্ষার জন্য খুলনা মেডিক্যাল কলেজের পিসিআর ল্যাবে পাঠায়। সোমবার রাতে আইইডিসিআর থেকে তার করোনা পরিক্ষার রিপোর্ট পজেটিভ আসে। আক্রান্ত আল মামুনকে বাড়িতে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তার বাড়িসহ পাঁচটি বাড়ি লকডাউন করে করেছে উপজেলা প্রশাসন। এ নিয়ে শরণখোলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাড়ালো সাতজনে।

মোল্লাহাট উপজেলায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত দড়িয়ালা পশ্চিম পাড়া গ্রামের সোহেল কামাল (৩৬)। তার করোনা উপসর্গ দেখা দিলে গত ২৭ মে নমুনা সংগ্রহ করে পরিক্ষার জন্য খুলনা মেডিক্যাল কলেজের পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়। সোমবার রাতে আইইডিসিআর থেকে ঢাকার একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে কর্মরত কামালের করোনা পরিক্ষার রিপোর্ট পজেটিভ আসে। তাকে বাড়িতে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তার বাড়িসহ চারটি বাড়ি লকডাউন করে করেছে উপজেলা প্রশাসন।

চিতলমারী উপজেলায় নতুন করোনা আক্রান্ত দুইজন হচ্ছেন চর কচুড়িয়া গ্রামের শহিদুল ইসলাম হাওলাদার (২৭) ও নালুয়া গ্রামের হাবিবুর রহমান (৩৪)। তারা দুইজন ঢাকায় সিকিউরিটি গার্ডের কাজ করতেন। গত ২৬ মে তারা গ্রামের বাড়িতে আসলে করোনা উপসর্গ থাকায় হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ ২৭ মে তাদের নমুনা সংগ্রহ করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পাঠায়। সোমবার রাতে আইইডিসিআর থেকে তাদের করোনা পরিক্ষার রিপোর্ট পজেটিভ আসে। আক্রান্ত দুজনকে বাড়িতে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। শহিদুলের বাড়ীসহ ৫ বাড়ী ও হাবিবের বাড়ীসহ ৮ বাড়ী লকডাউন করে করেছে উপজেলা প্রশাসন।

(এসএকে/এসপি/জুন ০২, ২০২০)

পাঠকের মতামত:

০৫ জুলাই ২০২০

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test