E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

কেন্দুয়ায় সরকারি ধান ক্রয়ে কৃষকের তালিকা প্রণয়ণে দূর্নীতি, বহাল তবিয়তে খাদ্য পরিদর্শক 

২০২০ জুন ০২ ১৮:৫৩:৩২
কেন্দুয়ায় সরকারি ধান ক্রয়ে কৃষকের তালিকা প্রণয়ণে দূর্নীতি, বহাল তবিয়তে খাদ্য পরিদর্শক 

সমরেন্দ্র বিশ্বশর্মা, কেন্দুয়া (নেত্রকোনা) : কেন্দুয়া উপজেলায় সরকার নির্ধারিত ১০৪০/- (এক হাজার চল্লিশ) টাকা মন দরে ধান ক্রয়ের জন্য লটারীতে কৃষক নির্বাচন করা হয়। ২৫ হাজার টাকার বিনিময়ে নির্বাচিত কৃষকের তালিকা পাল্টাতে গিয়ে ফেঁসে গেলেন উপজেলা খাদ্য পরিদর্শক ওয়াহেজুর রহমান।

উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক শামসুদ্দিন আহমেদ জানান, লটারীতে নির্বাচিত কৃষকদের তালিকা টাকার বিনিময়ে পরিবর্তন করার অভিযোগে খাদ্য পরিদর্শককে শোকজ করা হয়। কিন্তু এর জবাব সন্তোষজনক না হওয়ায় উপজেলা খাদ্য কমিটির সভাপতি ইউএনও আল-ইমরান রুহুল ইসলাম পরিদর্শকের বিরুদ্ধে বিভাগীয় শাস্তি গ্রহণের জন্য জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক বরাবর চিঠি দিয়েছেন। তবে খাদ্য পরিদর্শক ওয়াহেজুর রহমান নিজ কর্মস্থলে এখনও বহাল তবিয়তে আছেন।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন কর্মকর্তা মর্জিনা আক্তার জানান, বোরো সংগ্রহ অভিযানের জন্য কৃষক নির্বাচনে গত ১৩ মে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে লটারী অনুষ্ঠিত হয়। ৮ হাজার ৪ শ কৃষকের মধ্যে লটারীতে ২ হাজার ৩শ ১৭ জন কৃষক নির্বাচিত হন। কিন্তু টাকার বিনিময়ে ২ শতাধিক নির্বাচিত কৃষকের নাম পরিবর্তন করে অনির্বাচিত কৃষকদের নাম তালিকায় অর্ন্তভূক্তি করে চূড়ান্ত করেন খাদ্য পরিদর্শক ওয়াহেদুর রহমান। এ বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের চোখে ধরা পড়লে তিনি নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ খবিরুল আহসানকে তদন্তের নির্দেশ দেন।

তদন্ত কর্মকর্তা সহকারী কমিশনার ভূমি মোঃ খবিরুল আহসান মঙ্গলবার জানান, তদন্তকালে কৃষকের তালিকা প্রণয়নে অনিয়ম দূর্নীতি বিষয়টির সত্যতা মিলেছে। তদন্ত প্রতিবেদন উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট ইতিমধ্যেই জমা দেয়া হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আল-ইমরান রুহুল ইসলাম এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অভিযুক্ত খাদ্য পরিদর্শক ওয়াহেজুর রহমানের বিরুদ্ধে বিভাগী শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক বরাবর চিঠি দেয়া হয়েছে। তাছাড়া পুনরায় লটারীর মাধ্যমে কৃষক নির্বাচনের জন্য খাদ্য পরিদর্শকের কাটাছেড়া তালিকা সংশোধনের জন্য উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার মাধ্যমে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক শামসুদ্দিন আহমেদ বলেন, খাদ্য পরিদর্শক কর্মস্থলে থাকলেও তার বিরুদ্ধে খুব সহসাই বিভাগীয় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সঞ্জয় মোহন দত্ত বলেন, এ ঘটনাটি আমাদের জন্য খুবই লজ্জার বিষয়। তবে এ ঘটনার সঙ্গে যিনি জড়িত তাকে অবশ্যই শাস্তি পেতে হবে।

(এসবি/এসপি/জুন ০২, ২০২০)

পাঠকের মতামত:

১১ জুলাই ২০২০

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test