E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

সাতক্ষীরার সেই ইয়াছিন আলীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টা মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

২০২১ জানুয়ারি ১৮ ২৩:১৫:৫৩
সাতক্ষীরার সেই ইয়াছিন আলীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টা মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

রঘুনাথ খাঁ, সাতক্ষীরা : চাকরিসহ বিভিন্ন জিনিসপত্রের প্রলোভন দেখিয়ে এক গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে সাতক্ষীরা সদর উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের সহকারি ইনসট্রাক্টর ইয়াছিন আলীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। 

সাতক্ষীরার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের ভারপ্রাপ্ত বিচারক জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুল ইসলাম বাদির নারাজী আবেদন শুনানী শেষে এ পরোয়ানা জারির নির্দেশ দেন।

ইয়াছিন আলী আশাশুনি উপজেলার বড়দল গ্রামের মৃত আবু বক্কর ছিদ্দিকের ছেলে ও বর্তমানে শহরের মুনজিতপুরে বসবাস করেন।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, ইয়াছিন আলী একজন সুচতুর, ধুরন্ধর, পরসম্পদলোভী ও নাারী লোভী। ২০১৫ সালের ১২ জুলাই তিনি সাতক্ষীরা সদর রিসোর্স সেন্টারে সহকারি ইনসট্রাক্টর হিসেবে কর্মরত। মামলার বাদিকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে ওমান থেকে ২০১৮ সালের ১৩ মার্চ দেশে ফিরিয়ে আনেন ইয়াছিন। কু’প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় বাদির স্বামীকে পাইকগাছা থানার উপপরিদর্শক নাজমুল হুদাকে দিয়ে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে তিনটি মামলা দিয়ে জেলে পাঠানো হয়। জেলে পাঠানোর আগে স্বামীকে ছাড়িয়ে দেওয়ার শর্তে বাদির কাছ থেকে কয়েকটি অলিখিত নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে সাক্ষর করিয়ে নেওয়া হয়। বাদিকে খাগড়াছড়ি থানার একটি তদন্তাধীন মামলায় গ্রেপ্তার করিয়ে জেল খাটানো হয়। গত বছরের ২৬ অক্টোবর রাতে বাদির বাড়িতে যেয়ে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন ইয়াছিন আলী। বাদির অষ্টম শ্রেণীর পড়–য়া ছেলে জাপটে ধরলে তাকে কিল ঘুষি মেরে ইয়াছিন পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় ওই নারী বাদি হয়ে গত ২৯ অক্টোবর সাতক্ষীরার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। ভারপ্রাপ্ত নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোস্তাফিজুর রহমান মামলাটি তদন্ত করে ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আশাশুনি উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন। তদন্তকারি কর্মকর্তা শহীদুর রহমান গত গত ৮ ডিসেম্বর ঘটনা সত্য নয় মর্মে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন। তবে তিনি প্রতিবেদনের সঙ্গে সাক্ষীদের যে জবানবন্দি জমা দিয়েছেন তাতে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করা হয়।

এদিকে এ তদন্ত প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে বাদিপক্ষের আইনজীবী অ্যাড. আল আমিন গত ১৫ ডিসেম্বর আদালতে না রাজির আবেদন করেন। সোমবার শুনানী শেষে বিচারক শেখ মফিজুল ইসলাম ইয়াছিন আলীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির নির্দেশষ দেন।

বাদিপক্ষের আইনজীবী অ্যাড. আল আমিন গ্রেপ্তারি পরোয়ানার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

(আরকে/এসপি/জানুয়ারি ১৮, ২০২১)

পাঠকের মতামত:

২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test