E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

কেন্দুয়ায় নতুন ঠিকানা পাচ্ছেন ৫০ ভূমিহীন পরিবার

২০২১ জানুয়ারি ২১ ২৩:১৪:৫৯
কেন্দুয়ায় নতুন ঠিকানা পাচ্ছেন ৫০ ভূমিহীন পরিবার

সমরেন্দ্র বিশ্বশর্মা, কেন্দুয়া (নেত্রকোণা) : মুজিব জন্ম শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ উপহার হিসেবে নতুন ঠিকানায় নতুন ঘর পাচ্ছেন নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলার ৫০ ভূমিহীন পরিবার। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নপূরণ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ভূমি ও গৃহহীন মানুষকে আধাপাকা ঘর তৈরি করে দেয়া হচ্ছে। ভূমি ও গৃহহীনদের নতুন ঠিকানার উদ্বোধন হবে ২৩ জানুয়ারি শনিবার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করবেন। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মইন উদ্দিন খন্দকার জানান, ২০২০ সালের ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষণা দিয়েছিলেন, মুজিব বর্ষে দেশে কোন মানুষ গৃহহীন থাকবে না। সে ঘোষনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ভূমিহীন ও গৃহহীন মানুষকে নতুন ঘর তৈরি করে দেয়ার কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে। মন্ত্রনালয়ের নির্দেশিকা অনুসরণ করে জেলা প্রশাসন নেত্রকোণা’র তত্বাবধানে কেন্দুয়া উপজেলা প্রশাসন নিখুঁত ভাবে সুবিধাভোগী নির্বাচন করেছেন।

যাদের নিজের কোন ভূমি ছিলনা, অন্যের বাড়িতে কিংবা আত্মীয়ের বাড়িতে থাকতেন সেই সব ভূমিহীন, অসহায়, বিধবা, স্বামী পরিত্যাক্তা, বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের অভিভাবক, হিজড়া জনগোষ্ঠি এই প্রকল্পের আওতায় এসেছেন বলে জানান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। কেন্দুয়া উপজেলার সান্দিকোনা ইউনিয়নের সান্দিকোনা গ্রামে ৬টি, পাইকুড়া ইউনিয়নে ১টি, কান্দিউড়া ইউনিয়নে ১৩টি, বলাইশিমুল ইউনিয়ন ১০টি, নওপাড়া ইউনিয়নে ৪টি, দলপা ইউনিয়নে ১২টি ও আশুজিয়া ইউনিয়নে ৪টি সহ মোট ৫০টি ভূমিহীন পরিবার পাচ্ছেন নতুন ঠিকানায় নতুন ঘর।

প্রত্যেক ভূমিহীন পরিবারকে ২শতাংশ জায়গার উপর দুটি শোবার কক্ষ, একটি বারান্দা, একটি রান্নাঘর ও একটি বাথরুম সম্বলিত ঘর দেয়া হচ্ছে। উপরে রঙিন টিন এবং নিচে পাকা অর্থাৎ সেমিপাকা প্রত্যেকটি ঘরের জন্য ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা বরাদ্দ দিয়েছে সরকার।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে আরো জানাযায়, ইউএনওর নেতৃত্বে সহকারি কমিশনার (ভূমি), উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা, এল জি ইডির উপজেলা প্রকৌশলী, ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধিগণ এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কার্যালয়ের ত্রাণ শাখার উপ-সহকারি প্রকৌশলীর সুষ্ঠু তদারকিতে গৃহ নির্মান কাজ সম্পন্ন হচ্ছে। ইতিমধ্যেই কাজের গুনগত মান তদারকির জন্য সরেজমিনে পরিদর্শন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

গত ২৪ নভেম্বর সান্দিকোনা গ্রামে গৃহনির্মান কাজের শুভ উদ্বোধন করেন, নেত্রকোণা-৩ আসনের এম.পি অসীম কুমার উকিল। ৫০টি পরিবারের মধ্যে ৪০ ভূমিহীন পরিবারকে খাস জমির বন্দোবস্ত দিয়েছে সরকার। বাকি ১০ ভূমিহীন পরিবারকে তাদের কোন আত্মীয় বা এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের দান করা জমির মধ্যে গৃহনির্মান করে দেয়া হচ্ছে।

ইউএনও মোঃ মইন উদ্দিন খন্দকার জানান, এসব পরিবারের স্বামী-স্ত্রীর নামে কবুলিয়াত দলিল এবং নামজারি সম্পাদন করে দেয়া হয়েছে। তাছাড়া উপকারভোগীদের গৃহে বিদ্যুৎ এবং সুপেয় পানির সুবিধা নিশ্চিত করতে কার্যক্রম চলছে। যেখানে ৪ বা ততোধিক ঘর নির্মান করা হচ্ছে, সেখানে উপজেলা প্রশাসনের অনুরোধে ইতিমধ্যে একটি করে ৬টি ডিপ টিউবওয়েল স্থাপনের জন্য বরাদ্দ দিয়েছেন নেত্রকোণা ৩ আসনের সংসদ সদস্য অসীম কুমার উকিল।

এদিকে উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় নেত্রকোণা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি কেন্দুয়া জোনাল অফিস নির্মানকৃত গৃহে বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

জানতে চাইলে ভূমিহীন পরিবারের মধ্যে সান্দিকোনা ইউনিয়নের বালুচর গ্রামের বিধবা রেখা আক্তার বলেন, কয়েক বছর আগে স্বামী হারিয়েছি। প্রতিবন্ধি (বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন) দুই ছেলে সন্তানকে নিয়ে অনেক কষ্টে দিন যাপন করছিলাম। থাকার জন্য কোন ঘর ছিলনা। ছিলনা মাথাগোজার ঠাই। এক টুকরো জায়গা আর একটি ঘর কিভাবে হবে এ নিয়ে শুধু ভাবতাম, আর ভাবতাম। যাতে সন্তানদের নিয়ে সুখে শান্তিতে ও নিরাপদে থাকতে পারি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমার সেই স্বপ্ন পূরণ করে দিয়েছেন। আমি পেয়েছি নিজস্ব জায়গা, পেয়েছি একটি আধা পাকা সুন্দর ঘর। আমি প্রধানমন্ত্রীর সু-স্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করি।

নেত্রকোনা-৩ আসনের সংসদ সদস্য অসীম কুমার উকিল বলেন, সারা দেশের মত কেন্দুয়া উপজেলায়ও কোন মানুষ গৃহহীন থাকবে না। সবার জন্য আবাসন এই প্রকল্পের আওতায় আসবেন সবাই। মুজিব জন্ম শতবর্ষে মানবিক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভূমি ও গৃহহীনদের যে ঘর নির্মান করে দেয়ার ব্যবস্থা করেছেন এজন্য আমার নির্বাচনী এলাকার পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানাই। প্রথম ধাপে ৫০টি পরিবার পাচ্ছেন নতুন ঠিকানায় নতুন ঘর। তাদের মুখে ফুটেছে সুখের হাসি। আমিও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সু-স্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করি।

(এসবি/এসপি/জানুয়ারি ২১, ২০২১)

পাঠকের মতামত:

০৪ মার্চ ২০২১

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test