E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Technomedia Limited
Mobile Version

মানবতার ফেরিওয়ালা মেহেরপুরের পৌর মেয়র মাহফুজুর

২০২১ জুলাই ১১ ১৫:২১:৩১
মানবতার ফেরিওয়ালা মেহেরপুরের পৌর মেয়র মাহফুজুর

এস এ সাদিক, মেহেরপুর : এলাকার অন্য জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক ব্যক্তিদের তুলনায় অনেক বেশি কর্মতৎপর মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানবতার ফেরিওয়ালা হিসেবে তিনি যে সাহস এবং মানবিক সহযোগিতার অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন তা সত্যিই প্রশংসনীয়। তাকে নিয়ে আমরা গর্ববোধ করি। মেয়র রিটনের মানবিক সহায়তা কার্যক্রম সত্যিই প্রশংসার যোগ্য।

করোনা আক্রান্ত চাদ আলীর স্ত্রী মিতা খাতুন বলেন, আমার স্বামী একজন ড্রাইভার। করোনার কারণে গণপরিবহন বন্ধ। বেকার হয়ে বসে আছে। এর ভিতরে সে আবার করোনা আক্রান্ত হয়েছে। একদিকে কর্মহীন অপরদিকে করোনায় আক্রান্ত সবমিলিয়ে কষ্টে দিনযাপন করছি। উপায় না পেয়ে মেয়রকে বিষয়টি জানালে তিনি নিজে এসে খাদ্য ও নগদ টাকা দিয়ে আমার পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন। নিজের মানুষ অনেকেই আছে, তবে এমন বিপদের দিনে মেয়েরকে ছাড়া কাউকে কাছে পাইনি। আল্লাহ যেন সারাজীবন মেয়রকে ভালো রাখে।

পৌর এলাকার ৪ নম্বর ওয়ার্ড নতুন পাড়ার গরীবুল্লাহ। গরীবুল্লাহর স্ত্রীর করোনা পজিটিভ হওয়ায় পরিবারটিকে লকডাউন করা হয়েছে। সে থেকে বাড়ির সকলেই মূলত গৃহবন্দী। কোন উপায়ান্তর না পেয়ে গরীবুল্লাহ বাড়ি থেকে পৌর মেয়রের জরুরি সেবাই ফোন দিয়ে খাদ্য সংকটের কথা জানানোর পরপরই পৌর মেয়র নিজে উপস্থিত থেকে খাবার সহ নগদ অর্থ প্রদান করেন।

এছাড়াও পৌর এলাকার বিভিন্ন ওয়ার্ডে করোনা আক্রান্তদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্য ও নগদ অর্থ পৌঁছে দেওয়া অব্যাহত রেখেছেন। একাধিক পৌরবাসীর সাথে আলাপচারিতায় তারা জানিয়েছেন, মেয়র রিটনের মানবিক সহায়তা কার্যক্রম সত্যিই প্রশংসার যোগ্য। করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাতদিন কর্মহীন মানুষের ঘরে ঘরে ছুটছেন।

করোনার শুরু থেকে সঙ্কটময় সময়ে পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের আনাচে কানাচে রাতদিন জনগণের পাশে থেকে খাদ্য, নগদ অর্থ ও জনসচেতনতা তৈরির কাজ করেছেন। ক্লান্তিহীন এ মানুষটি মেহেরপুর জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ও মেহেরপুর পৌরসভার মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটন। তার এসব কাজে বিশ্বাস ও কর্তব্যপরায়ন হিসাবে জনগণের আস্থা অর্জন করেছেন পৌর মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটন।

ব্যক্তিগত উদ্যোগে বিপুল সংখ্যক দিনমজুর, দুস্থ, কর্মহীন, হতদরিদ্র, অর্ধাহারে ও অনাহারে থাকা পরিবারের কাছে নগদ অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন । যা পৌরবাসীর মনে একজন মানবিক মেয়র হিসাবে তিনি আস্থা অর্জন করেছেন। নিজে মানুষের বাড়ি বাড়ি খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন।

চলমান করোনা মোকাবিলায় আক্রান্তদের ভয়ে যখন অধিকাংশ জনপ্রতিনিধি ও নেতাকর্মীরা জনগণের পাশে না দাঁড়িয়ে স্ব-ঘোষিত হোম কোয়ারেন্টাইনে অবস্থান করছেন, তখন নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাতদিন, রোদ-বৃষ্টি উপেক্ষা করে কর্মহীন মানুষের ঘরে ঘরে ছুটেছেন মেয়র। একজন করোনা যোদ্ধা হিসাবে দিনরাত জনগনের পাশে থেকে খাদ্য, নগদ অর্থ ও সচেতনতা তৈরীর কাজ করে যাচ্ছেন। সরকারের নির্দেশে যখন দেশব্যাপী কঠোর লকডাউন করা হয় তখন মেহেরপুর পৌরসভার মেয়র জনগনের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তিনিই একমাত্র জনপ্রতিনিধি যিনি এই সময়ে ঘরে বসে থাকেননি।

পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের আনাচে কানাচে মৃত্যুর ভয় উপেক্ষা করে ত্রাণ নিয়ে নিজেই ছুটেছেন কর্মহীন মানুষের বাড়ি বাড়ি। বর্তমানেও তিনি ছুটছেন করোনা আক্রান্তদের বাড়ি বাড়ি। পৌঁছে দিচ্ছেন খাদ্য ও নগদ অর্থ। করোনা আক্রান্ত পরিবারের জন্য খাদ্য ও নগদ অর্থ সহায়তার জন্য জরুরী সেবার মতো উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। আক্রান্ত পরিবার থেকে ফোন করলেই পৌছে যাচ্ছে খাবার ও নগদ অর্থ। মেয়র নিজেই বাড়ি বাড়ি গিয়ে পৌছে দিচ্ছেন খাবার ও নগদ অর্থ। করোনা আক্রান্তদের পরিবারের খাদ্য ও চিকিৎসা ব্যয়ে নগদ অর্থ পৌছে দিতে অক্লান্ত পরিশ্রম ও মেয়রকে সহযোগীতা করছে মেহেরপুর জেলা যুবলীগের সদস্যরা।

মেহেরপুর জেলা যুবলীগের নির্দেশে, গাংনী উপজেলা যুবলীগের নেতৃবৃন্দের উদ্যোগে করোনা কালীন সময়ে গাংনী বাজারে কর্মহীন মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী ও মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করা হয়। এসময় গাংনী উপজেলা যুবলীগের নেতৃবৃন্দ বলেন মহামারী করোনা কালীন সময়ে এই খাবার সামগ্রী বিতরণ চলমান থাকবে ইনশাল্লাহ।

(ওএস/এসপি/জুলাই ১১, ২০২১)

পাঠকের মতামত:

১৮ অক্টোবর ২০২১

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test