E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Technomedia Limited
Mobile Version

দিনাজপুরে বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর আব্দুর রহিমের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

২০২১ সেপ্টেম্বর ০৪ ১৪:২৯:২৪
দিনাজপুরে বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর আব্দুর রহিমের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

শাহ্ আলম শাহী, দিনাজপুর : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত সাবেক সংসদ সদস্য প্রয়াত এ এম আব্দুর রহিমের পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে আজ।
দিনাজপুর সদরের জালালপুরস্থ এডভোকেট এম.আব্দুর রহিমের সমাধিস্থলে আজ শনিবার সকালে শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করেন সর্বস্তরের মানুষ। পরে প্রয়াত এডভোকেট এম আব্দুর রহিমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

এম.আব্দুর রহিম সমাজ কল্যাণ ও মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা কেন্দ্র আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রয়াত এডভোকেট এম.আব্দুর রহিমের ছেলে সুপ্রীম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি ইনায়েতুর রহিম, জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি,দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসি ড. মো. কামরুজ্জামান, জেলাপ্রশাসক খালেদ মোহাম্মদ জাকী, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বিপিএম এবং পিপিএম (বার), গবেষণা কেন্দ্রের সভাপতি এডভোকেট আজিজুল ইসলাম জুগলু, কার্যকরী সভাপতি সফিকুল হক ছুটু সাধারণ সম্পাদক চিত্ত ঘোষ, প্রেসক্লাবের সভাপতি স্বরূপ বক্সী বাচ্চু, সাধারণ সম্পাদক সুব্রত মজুমদার ডলারসহ প্রশাসনিক, বিচার বিভাগ, আইনজীবী, সাংবাদিক, সাহিত্য-সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক, স্বেচ্ছাসেবি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন পশ্চিমাঞ্চলীয় জোনের চেয়ারম্যান,ভাষা সৈনিক এডভোকেট এম আব্দুর রহিম বাংলাদেশের সংবিধান প্রণয়ন কমিটির অন্যতম সদস্য ছিলেন। তিনি ১৯৭০ সালে দিনাজপুর সদর ও চিরিরবন্দর (আংশিক) থেকে প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধে বিশেষ অবদানের জন্য ২০১৮ সালে তিনি স্বাধীনতা পদক পান।১৯৫৯ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবি ডিগ্রী অর্জন করার পর ১৯৬০ সালে আইনজীবী হিসেবে দিনাজপুর বারে আইন পেশা শুরু করেন।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ অন্যান্যদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত ঐতিহাসিক আগরতলা মামলার লিগ্যাল এইড কমিটির একজন সদস্য ছিলেন এম আব্দুর রহিম। ১৯৭১ এর মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে বৃহত্তর দিনাজপুর অঞ্চলের মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক হিসেবে অক্লান্ত পরিশ্রম করেন। মুক্তিযুদ্ধে তাঁর অবদান অবিস্মরণীয়।

দেশ স্বাধীন হওয়ার পর তিনি ১৭ই ডিসেম্বর সদ্য স্বাধীনপ্রাপ্ত দেশে পশ্চিম জোন-১ এর চেয়ারম্যান হিসেবে বগুড়া জেলার প্রশাসনিক দায়িত্ব গ্রহণ করেন এবং ১৮ডিসেম্বর সকাল ১১টায় দিনাজপুর গোর এ শহীদ বড় ময়দানে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রথম স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন।

স্বাধীনতার পর তিনি যুদ্ধবিদ্ধস্ত বৃহত্তর দিনাজপুর (দিনাজপুর, ঠাকুরগাঁও ও পঞ্চগড়) অঞ্চল পুণর্গঠনের আত্মনিয়োগ করেন এবং ত্রান ও পুনর্বাসন কমিটির চেয়ারম্যান এর দায়িত্ব পালন করেন। ৭৫ পরবর্তী সামরিক শাসকদের কোন প্রলোভনই তাঁকে বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক আদর্শ থেকে বিচ্যুত করতে পারেনি । ১৯৮৪ এবং ১৯৮৬ সালে সামরিক শাসন বিরোধী গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে সামরিক শাসক গোষ্ঠী তাঁকে গ্রেফতার করে দীর্ঘদিন কারাগারে আটক রাখে।

এমনি আদর্শবান, সৎ, নিরহষ্কার, নৈতিক মূল্যবোধ সম্পূন্ন রাজনীতিবীদ বর্তমান প্রজন্মের কাছে অনুস্মরণীয়। এম আব্দুর রহিম ১৯৯১সালে দিনাজপুর সদর আসন থেকে পুনরায় জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। একজন সৎ ও আদর্শবান রাজনীতিবিদ হিসেবে তিনি সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিত্ব। এডভোকেট এম আব্দুর রহিম জন্ম: ২১ নভেম্বর ১৯২৭। মৃত্যু: ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬।

(এসএএস/এএস/সেপ্টেম্বর ০৪, ২০২১)

পাঠকের মতামত:

১৮ অক্টোবর ২০২১

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test