E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Technomedia Limited
Mobile Version

আতংকের জনপদে পরিনত মাগুরার জগদল গ্রাম

২০২১ অক্টোবর ১৬ ১৯:৪৮:৪১
আতংকের জনপদে পরিনত মাগুরার জগদল গ্রাম

দীপক চক্রবর্তী, মাগুরা : নির্বাচনী প্রার্থীতাকে কেন্দ্র করে মাগুরা সদর উপজেলার জগদল গ্রামে সহিংসতায়  ৪ খুনের ঘটনায় গোটা গ্রাম জুড়ে চলছে আতংক। পুন: সহিংসতা ও লুটপাটের ভয়ে যে যার মত মালামাল নিয়ে বাড়ি ছাড়ছে।

শুক্রবার যে ৪ জন নিহত হয়েছেন তাদের মধ্যে রয়েছেন ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বর গ্রাম্য মাতবর সবুর মোল্লা, তার আপন ভাই কবির মোল্লা ও আপন চাচাতো ভাই রহমান মোল্লা, ২৫ বছরের যুবক ইমরান। এ ঘটনায় এখনো কোন মামলা হয় নি।

শনিবার জগদল গ্রামে গিয়ে দেখা গেছে, গোটা গ্রাম জুড়ে চলছে আতংক। জগদল গ্রামেই ৩ শতাধিক পরিবারের বসবাস। এ গ্রামের হাকিমের মোড়, সর্দারপাড়া, মাঝি বাড়ি, দমদমা পাড়াসহ বিভিন্ন এলাকায় রয়েছে পুলিশ প্রহরা। তবু অধিাকংশ বাড়ির পুরুষ মানুষ বাড়ি ছেড়েছে।

অন্যদিকে বাড়ির নারী সদস্যরা লুটপাট আতংক ও পুন:সংঘর্ষের ভয়ে ঘরের মালামাল নিয়ে অন্যত্র চলে যাচ্ছেন। জগদল সর্দার পাড়া এলাকার জাকির হোসেন,সায়েরা খাতুনসহ অন্যরা জানান, এলাকায় লোকজন নেই একথা ঠিক। কিন্তু এ ধরনের খুনের ঘটনার পর অতীতে অন্য এলাকার দুর্বৃত্তরা এলাকায় এসে বাড়ি ঘর লুটপাট করেছে। এ কারণে তারা বাড়িতে মালামাল রাখতে সাহস পাচ্ছেন না। নিহদের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। বিশেষ করে সবুর মোল্লাসহ একই পরিবারের ৩ জন খুন হওয়ায় গ্রামের গোটা মানুষ ভীড় করেছেন সেখানে। তবে উপস্থিতদের অধিকাংশই নারী।

এলাকায় মোড়ে মোড়ে পুলিশ প্রহরা দেখা গেছে। নিরপত্তার বিষয়ে সেখানে উপস্থিত মাগুরা সদর থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) মঞ্জুরুল আলম বলেন,‘আমরা গ্রামের সর্বসাধারণকে নিরাপত্তার ব্যবস্থা নিয়েছি। সাধারণ মানুষ যাতে আতংকিত হয়ে গ্রাম না ছাড়ে সে জন্যে সবাইকে অবহিত করছি। এলাকায় বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। যে কোন পুন:সহিংসতা প্রতিরোধে নজরদারী বহাল আছে’।

এদিকে সবুর মোল্লার স্ত্রী মেলিনা বেগমসহ পরিবারে দাবী চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলামের উপস্থিতিতে নজরুলসহ তার সমর্থেকেরা এ হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে। খুনিদের ফাঁসি দাবি করেন তারা।

এ বিষয়ে জগদল ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম বলেন,‘এটি মোল্লাদের গোষ্ঠীগত বিরোধ। আমি চেয়ারম্যান হবার আগে থেকেই চলছে। সামনে নির্বাচন, এ কারণে আমার প্রতিপক্ষরা এটির সাথে আমাকে জড়িয়ে কুৎসা রটাচ্ছে। অথচ আমি গত ১ মাস ধরে এটির মিমাংসার জন্য চেষ্টা করেছি। এমনটি সদর থানায় ডেকে নিয়ে মুচলেকা দেয়ার ব্যবস্থা পর্যন্ত নিয়েছি’।

সর্দারপাড়া মসজিদের ইমাম বাকি বিল্লাহ বলেন,‘ অনেক আগে থেকেই নজরুল মোল্লা ও সৈয়দ আলী হাসানের সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা চলছে। আমি শুক্রবার জুম্মার নামাজের সময় এ বিষয়ে বয়ান দিয়েছি। দু’পক্ষের কাছে করোজোড়ে শান্ত থাকা ও বিরোধে না জড়ানোর জন্য কাকুতি মিনতি করেছি। কিন্তু বিকালেই এ ঘটনা ঘটলো’।

এদিকে এলাকার সামাজিক দলাদলির বিষয়ে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এলাকায় প্রভাব বিস্তারের জন্য সরকার দলীয় নেতাদের নের্তৃত্বে পরস্পর বিরোধী একটি একটি সামাজিক দল গঠিত হয়ে থাকে। যেখানে আওয়ামীলীগ বিএনপি উভয় দলের সদস্যরাই থাকেন। এলাকার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মত বিরোধ সূত্রে তারা দ্বিধা বিভক্ত হয়ে একে অপরের ওপর ঝাপিয়ে পড়ে। বিশেষ ক’রে স্থানীয় নির্বাচনের সময় যা ভয়াবহ রুপ নেয়। শুক্রবারের সংঘর্ষটি সামাজিক দলাদলি নিয়ে সংঘটিত এরকমই একটি নৃশংস ঘটনা।

মাগুরা সদর থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) মোঃ মনজুুরুল আলম জানান , পুলিশের উপস্থিতেই দাফন সম্পন্ন হয়েছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। তবে পুনঃ সহিংসতা এড়াতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

(ডিসি/এএস/অক্টোবর ১৬, ২০২১)

পাঠকের মতামত:

০৭ ডিসেম্বর ২০২১

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test