E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Technomedia Limited
Mobile Version

গাজীপুরে কারখানা মালিকের অস্ত্র মহড়া, গণপিটুনিতে আহত চার

২০২২ অক্টোবর ০৩ ০১:১৭:২৯
গাজীপুরে কারখানা মালিকের অস্ত্র মহড়া, গণপিটুনিতে আহত চার

আশজাদ রসুল সিরাজী, গাজীপুর : গাজীপুরের বোর্ডবাজার এলাকায় শনিবার রাতে অস্ত্রসহ মহড়া দিতে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছেন মালিকপক্ষ। উভয় পক্ষের মারামারিতে এ সময় কমপক্ষে চারজন আহত হয়েছে। আহতদের স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শ্রম আইন বাস্তবায়ন নিয়ে বোর্ড বাজার এলাকার ন্যাশনাল কেমিক্যাল ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি লিমিটেড এর মালিকপক্ষের সাথে কারখানায় কর্মরত শ্রমিকদের বেশ কিছুদিন ধরে ঝামেলা চলছিল।

এ নিয়ে গত আগস্ট মাসে সরকার, মালিকপক্ষ এবং শ্রমিকপক্ষ এক লিখিত চুক্তিতে আবদ্ধ হয়। কিন্তু মালিকপক্ষ এরপরও চুক্তি মোতাবেক কাজ করছিলেন না। শনিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে কারখানার মালিক এম. এন. এইচ.বুলুসহ আট-নয় জন কারখানায় অস্ত্রসহ মহড়া দিতে গেলে তারা শ্রমিক গণপিটুনির শিকার হন।

রবিবার (২ অক্টোবর) সরজমিনে গেলে ওই কারখানার শ্রমিক মনু জানায়, শনিবার রাত সোয়া আটটার দিকে আমরা কয়েকজন বসে নিজেদের মধ্যে কথা বলছিলাম। হঠাৎ করেই কয়েকটি গাড়ি আমদের গা ঘেঁষে কারখানার ভেতরে ঢুকে যায়। পরে গাড়ির ভিতর থেকে কারখানার মালিক বুলুসহ আরো কয়েকজন (অস্ত্রসহ) বাইরে এসে আমাদেরকে কারখানা থেকে বেরিয়ে যেতে বলে। আমরা কারণ জানতে চাইলে মালিক বুলু আমার শরীরে অস্ত্র তাক করে বলে কথা বললে প্রাণে মেরে ফেলব হুমকি দিয়ে এলোপাথাড়ি মারধর করতে থাকে। এতে শ্রমিকরা আতঙ্কিত হয়ে পরে। অস্ত্র নিয়ে মালিক পক্ষের মহড়া এবং হুমকীসহ মারধরের সংবাদ বাহিরে ছড়িয়ে পড়লে বাহিরে থাকা শ্রমিকরা সংগঠিত হয়ে মালিক পক্ষের উপর হামলা করে এবং গণপিটুনি দিলে মালিকপক্ষ পালিয়ে যায়।

মারপিটে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ৪ জন আহত হয়। পরে আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

মনু আরো জানায়, শ্রম আইন বাস্তবায়নে গত আগষ্ট মাসে সরকার, মালিক ও শ্রমিক পক্ষের সাথে ছয়দফা চুক্তি স্বাক্ষর করে। ওই সমঝোতা চুক্তি লংঘন করে গতরাতে শ্রমিকদের অস্ত্র ঠেকিয়ে ভয় ভীতি দেখিয়ে কারখানা থেকে বের করে দিয়ে কারখানা বন্ধের নোটিশ টানিয়ে দেয়াই ছিল মুলত মালিক পক্ষের উদ্দেশ্য।

এব্যাপারে কারখানার শ্রমিক ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আলী বলেন, সরকার ও কারখানার মালিক পক্ষের সাথে গত আগষ্ট মাসে ছয়দফা দাবীর প্রেক্ষিতে একটি এিপক্ষীয় চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

এ ব্যাপারে আলোচনা করার জন্য গতকাল মালিকপক্ষ কারখানার সকল শ্রমিকদের বিকাল চারটায় থাকতে বলে। কিন্তু মালিকপক্ষ আসে নাই। এরপর কারখানায় কর্মরত ১০জন শ্রমিক রেখে আমরা সকলেই যারযার বাড়িতে চলে আসি। এর পরে রাতে দুটি গাড়িতে করে মালিকসহ কয়েকজন কারখানার ভিতর প্রবেশ করে এবং জেনারেটর অপারেটরসহ কারখানায় থাকা শ্রমিকদের মারধর করে বাহিরে বের করে দেয়। এতে আমাদের দুইজন শ্রমিক গুরুতর আহত হয়। এব্যাপারে গাজীপুর মেট্রোপলিটনের গাছা থানায় একটি অভিযোগ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে কারখানা মালিক এম. এন এইচ.বুলু বলেন, আমি আমার অফিসের ম্যানেজার এবং বডিগার্ডসহ আরও কয়েকজন কারখানায় আসি। এরপর পঞ্চাশ জন লোক আমাদের উপর হামলা করে। আমি কোন মত চলে আসতে পারলেও আমার কয়েকজন কর্মচারী মারাত্মকভাবে আহত হয়, পরবর্তীতে তাদেরকে বিভিন্ন হাসপাতালে ভতি করা হয়েছে।

অস্ত্র প্রদর্শনের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার নিজের লাইসেন্স করা অস্ত্র আছে। আমি সেটি সঙ্গে নিয়ে গিয়েছিলাম।

এ ব্যাপারে গাজীপুর মেট্রোপলিটনের গাছা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইব্রাহিম হোসেন বলেন, উক্ত ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে, তদন্তের পরে সত্য জানা যাবে।

(এআরএস/এএস/অক্টোবর ০৩, ২০২২)

পাঠকের মতামত:

০৭ ডিসেম্বর ২০২২

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test