E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Technomedia Limited
Mobile Version

স্বনামধন্য ব্যক্তিদের জন্ম ও মৃত্যু দিবসে ‘স্মরণ অনুষ্ঠান’ করার প্রতিশ্রুতি নবীনগর পৌর মেয়রের

২০২৩ ফেব্রুয়ারি ০৬ ১৫:৩০:৫০
স্বনামধন্য ব্যক্তিদের জন্ম ও মৃত্যু দিবসে ‘স্মরণ অনুষ্ঠান’ করার প্রতিশ্রুতি নবীনগর পৌর মেয়রের

গৌরাঙ্গ দেবনাথ অপু, ব্রাহ্মণবাড়িয়া : এখন থেকে বিভিন্ন পেশার স্বনামধন্য পৌর নাগরিকদের জন্ম ও মৃত্যু দিবসে পৌরসভার পক্ষ থেকে ঘটা করে 'সেলিব্রেটি ও স্মরণ অনুষ্ঠান' করা হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর পৌরসভার মেয়র অ্যাডভোকেট শিব শংকর দাস।

গতকাল রবিবার রাতে পৌরসভার ভোলাচং বাজারের প্রবীণ চিকিৎসক ডা. তারাপদ চক্রবর্তীর ৯২-তম জন্মদিন উদযাপনের অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদানকালে মেয়র এ প্রতিশ্রুতি দেন।

এসময় মেয়র বলেন, এখন থেকে পৌর এলাকায় বসবাসরত স্বনামধন্য নাগরিকদের জন্ম ও মৃত্যু দিবসে পৌরসভার উদ্যোগে সেলিব্রেটি ও স্মরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। আর এজন্য তিনি প্রবীণ চিকিৎসক ডা. তারাপদ চক্রবর্তীর ৯২-তম জন্মদিন পালনের মধ্য দিয়েই কাজটি শুরু করেছেন উল্লেখ করে পরবর্তীতে উপস্থিত সকলের সহযোগিতাও চান। এ সময় তিনি উপস্থিত কয়েকজনকে এ বিষয়ে দায়িত্বও দেন।

নবীনগর পৌর এলাকার ভোলাচং গ্রামের বাসিন্দা ডা. তারাপদ চক্রবর্তীর নিজ বাড়িতে অনুষ্ঠিত জন্মদিনের এ ব্যতিক্রমী আয়োজনে প্রবীণ এই বিশিষ্ট চিকিৎসককে শুভেচ্ছা জানাতে স্থানীয় চিকিৎসক, সাংবাদিক, শিক্ষক, সংস্কৃতকর্মী, ব্যবসায়ী, সংগঠক ও বিভিন্ন পেশার প্রতিনিধিসহ সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত হয়েছিলেন।

জন্মদিনের ওই অনুষ্ঠানে প্রবীণ এই চিকিৎসকের ৯২ বছরের চিকিৎসা সেবায় অসামান্য অবদানের কথা উল্লেখ করে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর জসিম উদ্দিন, ডা. সুকুমার দাস, ডা. তারাপদ চক্রবর্তীর ছেলে ভোলাচং উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক পার্থ চক্রবর্তী, ফেণী থেকে আগত তাঁর জামাতা বিষ্ণুপদ চক্রবর্তী, সঙ্গীতশিল্পী বিভূ ভুষণ চৌধুরী, সিনিয়র শিক্ষক পার্থ পাল, শিক্ষক মো. আনোয়ার হোসেন, সাংবাদিক এস এ রুবেল, সাংবাদিক ও নাট্যকর্মী মো. নাছির চৌধুরী, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী অজয় বনিক, উজ্জ্বল বিশ্বাস উপেন, অপু সাহা প্রমুখ।

বক্তারা এরকম নান্দনিক ও ব্যতিক্রমী আয়োজনের ভূয়সী প্রশংসা করে ডা. তারাপদ চক্রবর্তীর শতায়ু কামনা করেন।
পরে মেয়র শিব শংকর দাস উপস্থিতি সকলকে সাথে নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে ডা.তারাপদ চক্রবর্তীর ৯২তম জন্মদিনের কেইক কাটেন। এসময় তাঁর পরিবারের সদস্যরাও মেয়রের পাশে উপস্থিত ছিলেন।

এসময় ৯৩ বছরে পদার্পণ করা প্রবীণ নাগরিক ডা. তারাপদ চক্রবর্তী আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন। তিনি বলেন,'যারা আমার এই শেষ বেলায় জন্মদিনের এরকম চমৎকার আয়োজন করেছেন, আমি আমার পরিবারের পক্ষ থেকে পুত্রতুল্য মেয়রসহ সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। পাশাপাশি এ ধরণের আয়োজন যেন অন্যদের জন্মদিনেও করার এমন উদ্যোগ নেয়া হয়, স্নেহধন্য পৌরপিতার কাছে সেই দাবি করছি।

পুরো অনুষ্ঠানটির প্রাণবন্ত সঞ্চালনা করেন দৃষ্টিনন্দন এ আয়োজনের উদ্যোক্তা, দৈনিক বাংলা ৭১ এর বিশেষ প্রতিনিধি, নবীনগরের কথার সম্পাদক গৌরাঙ্গ দেবনাথ অপু।

প্রসঙ্গত, ডা. তারাপদ চক্রবর্তীর জন্মদিনে সাংবাদিক গৌরাঙ্গ দেবনাথ অপু তার নিজের ফেসবুকে "মাননীয় মেয়র সমীপে বিনীত একটি প্রস্তাবনা" শীর্ষক একটি আবেগঘন পোস্টে লিখেছিলেন, 'ডা. তারাপদ চক্রবর্তী। নবীনগর পৌরসভার ভোলাচং বাজারের প্রবীণ খ্যাতিমান চিকিৎসক। তিনি নবীনগরের সংস্কৃতি অঙ্গণের সুপরিচিত মুখ, পার্থ চক্রবর্তীর (শিক্ষক) বাবা।

৯২ বছর পেরিয়ে আজ এই প্রবীণ জনহিতৈষী ডা. তারাপদ চক্রবর্তী ৯৩ বছরে পদার্পণ করেছেন। তাই মাননীয় মেয়র মহোদয়ের কাছে আমার বিনীত প্রস্তাবনা- এলাকার প্রবীণ নাগরিকদের জন্ম ও মৃত্যু দিবসে নবীনগর পৌরসভার পক্ষ থেকে ছোট্ট করে ঘরোয়াভাবে হলেও একটি আনুষ্ঠানিক 'সেলিব্রেটি স্মরণ অনুষ্ঠান' করা যায় কিনা? সেটি বিবেচনা করার জন্য পৌরপিতা পরম শ্রদ্ধেয় শিব শংকর দাস প্রিয় শিবুদার সুদৃষ্টি কামনা করছি।

এরপরই মেয়র এডভোকেট শিব শংকর দাসের নির্দেশে ভোলাচংয়ের স্থানীয় দুই সাংবাদিক নাছির চৌধুরী ও এস এ রুবেলের ব্যবস্থাপনায় ডা. তারাপদ চক্রবর্তীর জন্মদিনে রাতে ওই নান্দনিক আয়োজনটি করা হয়।

(জিডি/এসপি/ফেব্রুয়ারি ০৬, ২০২৩)

পাঠকের মতামত:

২১ মে ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test