E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Technomedia Limited
Mobile Version

অংকুর শিশু কিশোর সংগঠনের উদ্যোগ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ২৫ জনকে ‘শিল্পী ও অতিথি সম্মাননা স্মারক’ প্রদান

২০২৩ মার্চ ১৮ ১৮:২০:৩৭
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ২৫ জনকে ‘শিল্পী ও অতিথি সম্মাননা স্মারক’ প্রদান

গৌরাঙ্গ দেবনাথ অপু, ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে আড়ম্বরপূর্ণ এক নান্দনিক অনুষ্ঠানে জাতীয় ও স্থানীয় পর্যায়ের ২৫ জনকে 'শিল্পী ও অতিথি সম্মাননা স্মারক' প্রদান করা হয়েছে। স্থানীয় অংকুর শিশু কিশোর সংগঠনের উদ্যোগে গতকাল রাতে এই সম্মাননা ক্রেষ্ট আনুষ্ঠানিকভাবে সংবর্ধিত ব্যক্তিদের হাতে তুলে দেয়া হয়। অংকুর শিশু কিশোর সংগঠনের ফেসবুক পেইজ থেকে নিয়মিতভাবে প্রচারিত ফেসবুক লাইভে সঙ্গীতানুষ্ঠানের ১০০ পর্ব উদযাপন উপলক্ষে এই ব্যতিক্রমী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অংকুর শিশু কিশোর সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি আনিছুল হক রিপনের সভাপতিত্বে ও স্বাগত বক্তব্যের পর অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের উদ্বোধক একুশে পদকপ্রাপ্ত সঙ্গীত পরিচালক, স্বাধীন বাংলা বেতারের শব্দ সৈনিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা সুরস্রষ্টা শেখ সাদী খান।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই স্বাধীনতার এ মাসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুসহ সকল শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

অনুষ্ঠানে এই প্রথমবারের মতো জেলা সদরের ১০ জন স্থানীয় যন্ত্র শিল্পীকে ঘটা করে সংবর্ধনা প্রদান করে তাঁদের হাতে সম্মাননা ক্রেষ্ট ও নগদ ৫ হাজার (৪জন) ও ২ হাজার (৬জন) টাকা করে তুলে দেয়া হয়। পাশাপাশি অনুষ্ঠানের উদ্বোধকসহ আমন্ত্রিত ১৫ জন অতিথিকেও অংকুরের পক্ষ থেকে 'সম্মাননা ক্রেষ্ট' প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে 'শিল্পী সম্মাননা' পাওয়া ১০ জন স্থানীয় যন্ত্রশিল্পী হলেন- বাবুল মালাকার (তবলা), জয়নাল আবেদীন (হারমোনিয়াম), সুদীপ্ত সাহা মিঠু (তবলা), প্রদীপ কুমার মিত্র (তবলা), সাজ্জাদ হোসেন হেলাল (কীবোর্ড), আবদুর রাহিম (কীবোর্ড) প্রশান্ত সাহা (অক্টোপ্যাড), বায়েজিদ বোস্তামী (গীটার), স্বপন সাহা (পার্কেশন) ও নন্দন বিশ্বাস (তবলা)।

অন্যদিকে অনুষ্ঠানের আমন্ত্রিত যেই ১৫ জন অতিথিকে 'অতিথি সম্মাননা ক্রেষ্ট' প্রদান করা হয়, তাঁরা হলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সঙ্গীত পরিচালক শেখ সাদী খান, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও চলচ্চিত্র পরিচালক দেলোয়ার জাহান ঝন্টু, বিশিষ্ট গজল, উচ্চাংগ ও নজরুল শিল্পী শেখ জসীম, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির প্রাক্তন গীতিকার ও সুরকার শহীদুজ্জামান স্বপন, বিটিভির সঙ্গীত পরিচালক আলী মোসাদ্দেক মাসুদ, বিটিভির প্রযোজক (সঙ্গীত) মোহাম্মদ ফারুক, জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী সৈয়দ আশিকুর রহমান আশিক, বরেণ্য তবলাশিল্পী সঞ্জীব মজুমদার ও নজরুল একাডেমির প্রশিক্ষক সঙ্গীতশিল্পী সেলিম রেজা।

এছাড়াও অনুষ্ঠানের আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আবদুল কুদ্দুস, জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ রুহুল আমীন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জয়নাল আবেদীন, জেলা রেজিষ্ট্রার সরকার লুৎফুল কবির, সমাজসেবক, কবি ও গীতকার দেওয়ান দিদারুল আলম মারুফ ও ভারতের আগরতলা থেকে আগত ঈশ্বর পাঠশালা ট্রাস্টের সাধারণ সম্পাদক সুমন নাথের হাতেও 'অতিথি সম্মাননা ক্রেষ্ট তুলে দেয়া হয়। তবে এঁদের মধ্যে মোহাম্মদ রুহুল আমীন, সরকার লুৎফুল কবির ও মোহাম্মদ ফারুক অনুপস্থিত ছিলেন। এরমধ্যে মোহাম্মদ রুহুল আমীনের স্থলে জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. জিয়াউল হক মীর উপস্থিত হয়ে তাঁর পক্ষে 'অতিথি সম্মাননা' ক্রেষ্টটি গ্রহণ করেন।

এর আগে মঞ্চে ২৫ জন শিল্পী ও অতিথিকে অংকুরের পক্ষ থেকে উত্তরীয় পরিয়ে দিয়ে বরণ করে নেয়া হয়।

অনুষ্ঠানে সম্মাননা ক্রেষ্ট পাওয়া আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ ছাড়াও অন্যান্যের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক সামসুজ্জামান চৌধুরী কানন, জেলা শিল্পী সংসদের সভাপতি ও সিনিয়র সাংবাদিক আল আমীন শাহীন, অংকুরের উপদেষ্টা এডভোকেট হুমায়ুন কবির, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের শেষের দিকে পূর্ব নির্ধারিত আমন্ত্রিত ২৫ জন শিল্পী ও অতিথি ছাড়াও জেলার ৩৫ জন সঙ্গীত শিল্পীকে অংকুরের পক্ষ থেকে আলাদা করে শুভেচ্ছা স্মারক (ক্রেষ্ট) প্রদান করা হয়। সবশেষে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে এ ব্যতিক্রমী অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

তিন ঘন্টারও বেশী সময় ধরে চলা জমজমাট ও প্রাণবন্ত এই পুরো অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন দৈনিক বাংলা ৭১ এর বিশেষ প্রতিনিধি ও নবীনগরের কথার সম্পাদক গৌরাঙ্গ দেবনাথ অপু।

(জিডি/এসপি/মার্চ ১৮, ২০২৩)

পাঠকের মতামত:

২২ মে ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test