E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

বাগেরহাট সদর হাসপাতালে জলাতঙ্ক ভ্যাকসিন সরবরাহ বন্ধ

২০১৪ এপ্রিল ৩০ ১৮:৪৭:৫৬
বাগেরহাট সদর হাসপাতালে জলাতঙ্ক ভ্যাকসিন সরবরাহ বন্ধ

বাগেরহাট প্রতিনিধি : বাগেরহাট সদর হাসপাতালে জলাতঙ্ক ভ্যাকসিন সরবরাহ বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়ছে রোগীরা। বিড়াল ও কুকুরের কামড়ে আক্রান্ত অসহায় রোগীরা বিনামূল্যে এই টিকা না দিতে পারায় তারা ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। আক্রান্ত অনেকে ২-৩ টিকা দিয়ে কোর্স সমাপ্ত করতে না পারায় বাইরে থেকে চড়া দামে কিনতে হচ্ছে ভ্যাকসিন রাবিপুর। গ্রামের সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের পক্ষে প্রায় ৩ হাজার টাকা মূল্যের  ফুল ডোজ ভ্যাকসিন ক্রয় করা সম্ভব নয়। বাগেরহাট সদর হাসপাতালে হঠাৎ করে জলাতঙ্ক রোগীদের জন্য রাবিপুর ভ্যাকসিন সরবরাহ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আক্রান্তরা দিশেহারা হয়ে পড়েছে।

বাগেরহাটের কচুয়া উপজেলার গোপালপুর গ্রামের আব্দুল হালিম (৭৫) এ প্রতিদেককে বলেন,‘গত ২২ মার্চ আমাকে কুকুরে কামড় দেয়। পরে এলাকাবাসির পরামর্শে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দেয়ার জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতালে আসি। সেখানের জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসকরা আমাকে একটি ভ্যাকসিন দেয় এবং একটি সিলিপ দেয়। আমি তাদের পরামর্শে পরপর ৩টি ভ্যাকসিন নেই। পরে ৪র্থ ভ্যাকসিন দেয়ার জন্য আসলে চিকিৎসকরা ভ্যাকসিন সরবরাহ নাই বলে জানিয়ে দেয়। আমার পক্ষে একটি ভ্যাকসিন ৬৪০ টাকায় ক্রয় করা সম্ভব হয়ে উঠে না। এভাবে ভ্যাকসিন না দিতে পারায় প্রতিনিয়ত ৫-৬ জন রোগী ফিরে যাচ্ছে। ব্যববহুল এই ভ্যাকসিনের সরবরাহের দাবি জানান সাধারণ মানুষ।
বাগেরহাট সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ও সেবিকারা জানান, জলাতঙ্ক রোগের জন্য ভ্যাকসিন রাবিপুর এপ্রিল মাসের প্রথম সপ্তাহে সরবরাহ বন্ধ হওয়ায় কুকুর ও বিড়ালের কামড়ে আক্রান্তদের ভ্যাকসিন দেয়া সম্ভব নয়।
বাগেরহাট সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) মো. মঈন উদ্দিন জানান, ২০১২ সালের ২২ মে থেকে সরবরাহ শুরু হওয়া জলাতঙ্ক রোগের জন্য ভ্যাকসিন প্রায় দুই বছর ধরে আক্রান্তদের দেয়া হতো। গ্রাম গঞ্জের সাধারণ মানুষ বিনামূল্যে এই ভ্যাকসিন পেত। বর্তমানে সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। পুনরায় সরবরাহ চালু হলে জলাতঙ্ক রোগীরা ভ্যকসিন পাবে।
(একে/এএস/এপ্রিল ৩০, ২০১৪)

পাঠকের মতামত:

২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test