E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Technomedia Limited
Mobile Version

আওয়ামীলীগ নাকি মহাজোট

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ আসনে শেষ পর্যন্ত কে পাচ্ছেন মনোনয়ন ? 

২০২৩ নভেম্বর ২০ ১৪:০৭:৪৭
ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ আসনে শেষ পর্যন্ত কে পাচ্ছেন মনোনয়ন ? 

বিশেষ প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া : সব জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর) আসন থেকে শেষ পর্যন্ত 'নৌকা' প্রতীকে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন কে পাচ্ছেন? সেটি নিয়ে এখন এলাকার সর্বত্রই আলোচনার ঝড় বইছে।

তবে নানা হিসেব নিকেশ কষে মহাজোট ঠিক রাখতে শেষ পর্যন্ত 'নৌকা' প্রতীকের পরিবর্তে এ আসনে মহাজোট থেকে (লাঙ্গল) কোন প্রার্থী দেয়া হয় কিনা! সেটি নিয়েও এখন চলছে নানা আলোচনা।

বিশেষ করে গতকাল রবিবার রাষ্ট্রপতির সঙ্গে রওশন এরশাদ দেখা করার পর থেকেই এ আসনে মহাজোটের প্রার্থী দেয়ার বিষয়টি নতুন করে আবার সরব আলোচনা হচ্ছে।

খোঁজ নিয়ে সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর) আসনে এবার 'নৌকা' প্রতীকে আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থী হিসেবে দু'জনের নামই এলাকার সর্বত্র সবচেয়ে বেশী আলোচিত হচ্ছে। এঁরা হলেন আওয়ামীলীগ দলীয় বর্তমান সংসদ সদস্য বিশিষ্ট শিল্পপতি মোহাম্মদ এবাদুল করিম বুলবুল এবং নবীনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্তমান সভাপতি, আরেক বিশিষ্ট শিল্পপতি, সাবেক সংসদ সদস্য ফয়জুর রহমান বাদল।

তবে এ দু'জনের পাশাপাশি ঢাকা মহানগর দক্ষিণের প্রথম যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট কাজী মোর্শেদ হোসেন কামাল ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক, সাবেক ছাত্রনেতা (জিএস) ব্যারিষ্টার জাকির আহাম্মদের নামসহ এক ডজনেরও বেশী আওয়ামীলীগ দলীয় প্রার্থীর নাম এ আসনে এলাকায় বেশ আলোচিত হচ্ছে।

অন্যদিকে এ আসনে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে জাতীয় পার্টির সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য ও এরশাদ ট্রাস্টের চেয়ারম্যান, বর্তমান বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদের মুখপাত্র কাজী মো. মামুনূর রশীদ এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা জাসদের (ইনু) সভাপতি এডভোকেট আক্তার হোসেন সাঈদের নামও আলোচনায় রয়েছে।

এদিকে গতকাল রবিবার দুপুরে আসন্ন নির্বাচনের নানা বিষয় নিয়ে কথা বলতে এ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী জাতীয় পার্টি নেতা কাজী মামুনূর রশীদকে সঙ্গে নিয়ে রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিনের সঙ্গে বিরোধী দলের নেত্রী রওশন এরশাদ বঙ্গবভনে যাওয়ার পরই এ আসনে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে কাজী মামুনের নামটি আবারও নতুন করে এলাকায় এখন বেশ জোরে সোরেই আলোচনা হচ্ছে।

তবে আওয়ামীলীগের স্থানীয় নেতাকর্মীরা বলছেন, এ আসনটি নৌকার ঘাঁটি হিসেবেই সকল মহলে সুপরিচিত। এখানে নৌকার কোন বিকল্প হবে না। সুতরাং এ আসনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ছাড়া মহাজোট থেকে অন্য কোন প্রতীকে প্রার্থী দেয়া হলে, স্থানীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকেরা সেটি শেষ পর্যন্ত কতটা মেনে নেবে, সবার আগে দলীয় হাই কমান্ডকে অবশ্যই সেটি বিবেচনায় রাখতে হবে।

এ বিষয়ে দ্বিধাবিভক্ত স্থানীয় আওয়ামীলীগের তৃণমূলে থাকা একাধিক নেতাকর্মী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন,'আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস, শেষ পর্যন্ত নবীনগর আসনে নৌকা প্রতীকেই মনোনয়ন দেয়া হবে। আর নৌকার প্রার্থী হিসেবে আওয়ামীলীগ দলীয় প্রার্থী বুলবুল ভাই, নয়তোবা বাদল ভাই মনোনয়ন পাবেন। এক্ষেত্রে রানিং এমপি হিসেবে হয় শিল্পপতি বুলবুল ভাই আর নয়তো অতীতে এলাকার উন্নয়ন ও জনপ্রিয়তার দিক বিবেচনায় বাদল ভাইকে শেষ পর্যন্ত এ আসনে মনোনয়ন দেয়া হবে। সেক্ষেত্রে নৌকা যিনি পাবেন, আমরা তাঁর পক্ষেই কাজ করবো।'

তবে মহাজোটের নানা হিসাব নিকাশ কষে নৌকা প্রতীকের আলোচিত এ দুই প্রভাবশালী হেভিওয়েট প্রার্থীকে টপকে শেষ পর্যন্ত হয়তো মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে জাতীয় পার্টি (রওশন পন্থী) থেকে কাজী মো. মামুনূর রশীদই যদি এ আসনে চূড়ান্ত মনোনয়ন পেয়ে যান, তাহলে তেমন আশ্চর্য হওয়ারও কিছু থাকবেনা বলে স্থানীয় পর্যবেক্ষকেরা এ প্রতিবেদকের কাছে মত প্রকাশ করেছেন। এর কারণ হিসেবে তারা বলছেন, নিকট অতীতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর) এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল আশুগঞ্জ) এই দুটি আসন থেকে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে দু'জন এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন। যাঁদের একজন ছিলেন জাসদের (ইনু) এবং অন্যজন ছিলেন জাতীয় পার্টির।

এদিকে এ নিয়ে আজ সোমবার সকালে এ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী আলোচিত এ তিন প্রার্থী মোহাম্মদ এবাদুল করিম বুলবুল (নৌকা), ফয়জুর রহমান বাদল (নৌকা) ও কাজী মো. মামুনূর রশীদের (লাঙ্গল) বক্তব্য নিতে তাঁদের সাথে বারবার মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও কথা বলা যায়নি।

উল্লেখ্য, এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এ আসন থেকে আওয়ামীলীগের দলীয় ৯ জন প্রার্থী মনোনয়ন ফর্ম কিনেছেন বলে একাটি সূত্র জানায়।

(জিডিএ/এএস/নভেম্বর ২০, ২০২৩)

পাঠকের মতামত:

০৪ মার্চ ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test