E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Technomedia Limited
Mobile Version

সুবর্ণচরে মধ্যযুগীয় কায়দায় গৃবধূকে নির্যাতনের অভিযোগ

২০২৩ নভেম্বর ২২ ১৭:৫৬:৪৯
সুবর্ণচরে মধ্যযুগীয় কায়দায় গৃবধূকে নির্যাতনের অভিযোগ

মোঃ ইমাম উদ্দিন সুমন, নোয়াখালী : নোয়াখালী সুবর্ণচরে মধ্যযুগীয় কায়দায় প্রবাসীর স্ত্রী ৩ সন্তানের জননীকে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটে সুবর্ণচর উপজেলার ২ নং চরবাটা ইউনিয়ন ৪ নং ওয়ার্ডের মধ্যম চরবাটা গ্রামের আবুলের বাপের বাড়ীতে।

ভুক্তভোগী নাহিদা আক্তার প্রকাশ রাহেনা বেগম বলেন, তার স্বামী মহিন উদ্দিন বিদেশ চলে যায়, সে থেকে সে শ্বশুর বাড়ীতে ৩ সন্তানকে নিয়ে বসবাস করে, বিভিন্ন সময় পুকুরে গোসল করতে গেলে ভাসুর জসিম উদ্দিন মোবাইল ফোনে তার গোসলের গোপন ভিডিও ধারণ করে, এবং ঐ ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছাড়িয়ে দেবার ভয় দেখিয়ে অনৈতিক প্রস্তাব দেয় এতে ভুক্তভোগী রাহেনা রাজি না হলে বিভিন্ন সময় তাকে নানা অযুহাতে মারধর করে।

গত ১৭ নভেম্বর (শুক্রবার) দুপুর ২ টায় জাকেরের পুত্র জসিম উদ্দিন (৩৯) (ভাসুর) হঠাৎ তার ঘরে প্রবেশ করে শ্লিলতাহানীর চেষ্টা করে এতে সে বাঁধা দিলে তাকে মারধর করে বিষয়টি সকলকে জানিয়ে দেবার হুমকি দিলে জসিম তাকে মারধর করে এবং হাত কামড়ে দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে সারা শরীরে নীলাফুলা জখম করে অজ্ঞান করে পেলে তার শৌর চিৎকারে পাশপাশের লোকজন সহ তার দেবর নিজাম উদ্দিন তাকে প্রথমে সুবর্ণচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে জেলা শহর মাইজদী ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। ৩ দিন চিকিৎসা শেষে বাড়ী ফেরেন রাহেনা তবে এখনো নির্যাতনের আঘাতে হাঁটতে পারেন না তিনি।

রাহেনার বড় বোন লাখি বলেন, ছোট বোনের স্বামী মাইন উদ্দিন বিদেশ যাবার পর থেকে ভাসুর জসিম উদ্দিন রেহেনার দিকে কুদৃষ্টি পড়ে, এ নিয়ে বহুবার আমার বোনের ওপর শারীরিক ও মানষিক নির্যাতন করা হয়। আমরা এর উপযুক্ত বিচার চাই। মামলা না করতে জসিম বিভিন্নভাবে হুমকি ধমকি দিচ্ছেনও বলে জানান তিনি।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর বোন বাদী হয়ে একটি মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানান। জসিমের শাস্তির দাবী জানান রাহেনার পরিবার ও তার স্বামী।

অভিযুক্ত জসিমের কাছে ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি অনৈতিক প্রস্তাবের কথা অস্বিকার করে, তবে মারধরের কথা স্বিকার করে বলেন, আমার বিষয়ে যা বলেছে সব মিথ্যা মারামারি হয়েছে আমার স্ত্রীর সাথে, তখন দুজনের মারামারি করলে রাহেনা আহত হয়, আমি কিছু করিনি।

চরজব্বর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি হুমায়ুন কবির কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এমন ঘটনা শুনিনি, কেউ জনাইওনি, তবে লিখিত অভিযোগ পেলে আইনত ব্যবস্থ গ্রহণ করা হবে।

(এস/এসপি/নভেম্বর ২২, ২০২৩)

পাঠকের মতামত:

০৫ মার্চ ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test