E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Technomedia Limited
Mobile Version

কিশোরগঞ্জে বর্তমান চার এমপির বাইরে নতুন দুই মুখ

২০২৩ নভেম্বর ২৭ ১৮:৩৪:০৪
কিশোরগঞ্জে বর্তমান চার এমপির বাইরে নতুন দুই মুখ

সোহেল সাশ্রু, কিশোরগঞ্জ : আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় মনোনয়ন বোর্ড রোববার জেলার ৬টি আসনের প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করেছে। এদের মধ্যে চারজন আছেন বর্তমান এমপি। একজন বর্তমান এমপিকে বাদ দিয়ে নতুন একজনকে প্রার্থী করা হয়েছে। আর নিজেদের দখলের বাইরে থাকা একটি আসনেও প্রার্থী ঘোষণা করা হয়েছে।

কিশোরগঞ্জ-১ (সদর-হোসেনপুর) আসনে বর্তমান এমপি শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলামের মেয়ে সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপিকে এবারও প্রার্থী করা হয়েছে। তবে এই আসনে গণতন্ত্রী পার্টির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ও জেলা কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট ভূপেন্দ্র ভৌমিক দোলনও মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। তিনি জোটগত মনোনয়ন দাবি করেছেন। এছাড়া জাকিয়া নূর লিপির বড়ভাই মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ সাফায়েতুল ইসলামও ২২ নভেম্বর রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। আবার তাঁর ছেলে সৈয়দ নাফিজ নজরুল রাইয়ানও ২৩ নভেম্বর রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন।

কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনে বর্তমানে এমপি আছেন সাবেক আইজিপি নূর মোহাম্মদ। তাঁকে বাদ দিয়ে এবার মনোনয়ন দেয়া হয়েছে সাবেক অতিরিক্ত ডিআইজি বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলাসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আব্দুল কাহার আকন্দকে। এই আসনে বিএনপির সাবেক দুইবারের এমপি মেজর (অব.) আখতারুজ্জামানও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মাঠে নেমেছেন।

কিশোরগঞ্জ-৩ (করিমগঞ্জ-তাড়াইল) আসনে বর্তমানে এমপি আছেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু। একাদশ সংসদ নির্বাচনে এই আসনে প্রথমে মনোনয়ন দেয়া হয়েছিল করিমগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক নাসিরুল ইসলাম খান আওলাদকে। পরবর্তীতে সমঝোতার স্বার্থে আওলাদকে প্রত্যাহার করিয়ে আসনটি মুজিবুল হক চুন্নুকে ছেড়ে দেয়া হয়েছিল। এবারও আওলাদকে প্রার্থী ঘোষণা করা হয়েছে।

কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম) আসনে সাবেক রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের জ্যেষ্ঠ পুত্র বর্তমান এমপি রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিককে আবারও মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।
কিশোরগঞ্জ-৫ (বাজিতপুর-নিকলী) আসনে বর্তমান এমপি আফজাল হোসেনকেই আবারও মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

কিশোরগঞ্জ-৬ (ভৈরব-কুলিয়ারচর) আসনে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমানের ছেলে বর্তমান এমপি বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনকেই আবারও মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।
এতদিন অনেক আসনেই অর্ধডজন বা তারও বেশি সম্ভাব্য প্রার্থী মাঠ চষে বেড়িয়েছেন। জনসংযোগের নামে বড় বড় সভা-সমাবেশ করেছেন। পুরো নির্বাচনী এলাকায় প্রচুর বিলবোর্ড, প্লাকার্ড আর ফেস্টুন ঝুলিয়েছেন। দেয়ালে দেয়ালে সাঁটিয়েছেন পোস্টার আর স্টিকার। এখন পুরো নির্বাচনী এলাকায় এক ধরনের থমকে যাওয়া পরিবেশ বিরাজ করছে। তবে কিশোরগঞ্জসহ সারা দেশেই এখন আলোচনার ঝড় তুলছেন কিশোরগঞ্জ-২ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী, বিএনপির সাবে দুইবারের এমপি মেজর (অব.) আখতারুজ্জামান। তিনি তারেক রহমানসহ দলের শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে কঠোর ভাষায় সমালোচনা করে নিজেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিয়ে মাঠে নেমেছেন। ফলে জেলাবাসীর দৃষ্টি এখন কিশোরগঞ্জ-২ আসনের দিকে।

আবার কিশোরগঞ্জ-৩ আসনের প্রার্থী নাসিরুল ইসলাম আওলাদের ভাগ্য নিয়েও জনমকে কৌতুহল রয়েছে। এবারও কি তাঁকে শেষ পর্যন্ত জাতীয় পার্টির সঙ্গে সমঝোতার স্বার্থে সরে দাঁড়াতে হয় কি না, সে বিষয়টিই কৌতুলহের কেন্দ্রে।

কিশোরগঞ্জ-১ আসন থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করা সাফায়েতুল ইসলাম বলেছেন, দলীয় মনোনয়ন ঘোষণার পর তিনি এলাকার বিভিন্ন মহল থেকে ক্রমাগত ফোন পাচ্ছেন। সবাই চান তিনি যেন নির্বাচন করেন, একজন শক্ত মানুষ দরকার। তিনি ৩০ নভেম্বরের আগেই কিশোরগঞ্জে এসে সবার সঙ্গে পরামর্শ করে একটি সিদ্ধান্ত নেবেন বলে জানিয়েছেন।

কিশোরগঞ্জ-২ আসনের প্রার্থী আব্দুল কাহার আকন্দ বলেছেন, ‘এই আসনে আরও বেশ কয়েকজন মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। আমি সবার কাছেই যাব। সবার সহযোগিতা চাইবো। আশা করি সবাই দলের জন্য কাজ করবেন এবং এই আসনে আমি জয়লাভ করবো।’ বর্তমান এমপি নূর মোহাম্মদের প্রতিক্রিয়া জানার জন্য তাঁকে ফোন করলেও তিনি রিসিভ করেননি।

কিশোরগঞ্জ-৩ আসনের প্রার্থী নাসিরুল ইসলাম আওলাদ বলছেন, এবার জাতীয় পার্টির সঙ্গে কোন সমঝোতা হবে না। নেত্রী বলে দিয়েছেন, এবার প্রতিযোগিতা হবে। ৫০ ভাগের বেশি ভোট কেন্দ্রে আনতে হবে। কাজেই এবার আলাদা আলাদা নির্বাচন হবে।

(এসএস/এসপি/নভেম্বর ২৭, ২০২৩)

পাঠকের মতামত:

০৪ মার্চ ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test