E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Technomedia Limited
Mobile Version

কালভার্টে সংযোগ সড়ক নেই, কবরস্থানে যাতায়াতে ৩ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ

২০২৩ ডিসেম্বর ০২ ১৪:১৫:৫০
কালভার্টে সংযোগ সড়ক নেই, কবরস্থানে যাতায়াতে ৩ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার কাশিয়ানী সদর ইউনিয়নের পোনা গ্রাম। এ গ্রামের কবরস্থানে যাতায়াত করতে কাশিয়ানী-রাহুথড় খালের উপর নবনির্মিত একটি কালভার্ট পার হতে হয় । কালভার্টটি নির্মাণ করেছে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি)। কালভার্টে  সংযোগ সড়ক এখনো নির্মিত হয়নি । 

তাই কাশিয়ানী ইউনিয়নের পোনা, কাশিয়ানী ও পিঙ্গলিয়া গ্রামের ৩০ হাজার বাসিন্দাকে কবরস্থানে যাতায়াতে দুর্ভোগের শিকার হতে হয়। কিছুদিন আগে সাহেব আলী নামে এক ব্যক্তি মৃত্যু বরণ করেন। তার মরদেহ দাফন করার জন্য কবরস্থানে নেওয়া পথে মরদেহ বহনকারি খাট নিয়ে পড়ে যায় স্বজনেরা। ওই ঘটনায় আহত হয় ৮ জন। এছাড়া প্র্রায়ই কালভার্টে ওঠানামা করতে গ্রামীবাসী পড়ে গিয়ে ছোটখাট দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে সংযোগ সড়ক নিমার্ণ করার দাবি করেছেন এলাকাবাসী। কতৃর্পক্ষ জানিয়েছে সংযোগ সড়কের জন্য টেন্ডার প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

গোপালগেঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার পোনা গ্রামে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, কাশিয়ানী-রাহথড় সড়কের পাশ দিয়ে একটি খাল প্রবাহমান রয়েছে। খালটি দখল ও দূষনে অস্তিত্ব বিলীন হওয়ার ইঙ্গিত দিচ্ছে। ওই খালের উপর নতুন কালভার্ট নির্মাণ করা হয়েছে । ওই কালভার্ট পার হয়ে কিছুদূর যেতেই বাদিকে কবরস্থান ও ডান দিকে ঈদগা। ৩ গ্রামের মানুষের কবরস্থান ও ঈদগাহে যাওয়ার একটি মাত্র পথ এটি।

ওই কালভার্টে কোন সংযোগ সড়ক নেই। যে কারণে যাতায়াতের সময় কালভার্টে ওঠা নামা কষ্টসাধ্য । সেখানে মরদেহ বয়ে নিয়ে যাওয়া আরো দুষ্কর।

পেনা গ্রামের নজরুল ইসলাম বলেন, কাশিয়ানী-রাহুথড় খালের উপর একটি কালভার্ট আছে । কালর্ভাটে কোন সংযোগ সড়ক নেই। কেউ মারা গেলে লাশ নিয়ে কবরস্থানে যেতে অনেক দুর্ভোগ পোহাতে হয়। লাশসহ বহনকারীরা পড়ে আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। কালাভার্ট পার হয়ে যাতায়াতে অনেকেই কালভার্ট থেকে পড়ে ছোট-খাট দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন।

এছাড়াও ঈদগাঁয়ে ঈদের নামাজ আদায় ও গ্রামবাসী নিত্য চলাচলে পোহাচ্ছেন ভোগান্ত। একটু বৃষ্টি হলেই কালভার্ট চলাচলের অনুপযোগি হয়ে পড়ে। তখন মানুষের দুর্ভোগের শেষ থাকে না। আমরা সংযোগ সড়ক নির্মোন করে এলাকাবাসীর দুর্ভোগ লাঘবের দাবি জানাচ্ছি।

পোনা গ্রামের মো. ফায়েকুজ্জামান বলেন, আগে নিজেদের তৈরি বাঁশ বা কাঠের সাঁকো দিয়ে খাল পার হয়ে গ্রামের মানুষ ঈদের নামাজ আদায় বা মরদেহ দাফন করতে কবরস্থানে যেতেন। কিন্তু কিছুদিন আগে বৃহত্তর ফরিদপুর সেচ এলাকা উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় প্রায় ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে কবরস্থান ও ঈদগাহে যাতায়াতের ভোগান্তি লাগবে বক্স কার্লভাট নির্মাণ করেছে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি)। কিন্তু কালভার্টে সংযোগ সড়ক নেই। তাই উল্টো ভোগান্তি বেড়েছে। একটু বৃষ্টি হলেই কালভার্টে উচু থেকে নিচে নামতে পারিনা। আমি কয়েকবার এখান থেকে পড়ে আহত হয়েছি। প্রায় এ ধরণের ঘটে দুর্ঘটনা। ইতিমধ্যে এলাকার প্রবীণরা বেশ কয়েকবার দুর্ঘটনা শিকার হয়েছেন। আমাদের ভোগান্তি লাগবে কার্লভাটটির সংযোগ সড়ক নির্মাণের অনুরোধ করছি।

গোপালগঞ্জ বিএডিসি’র নির্বাহী প্রকৌশলী আজিজুল ইসলাম বলেন, কাশিয়ানী উপজেলার পেনা গ্রামের কবরস্থানের পাশের সংযোগ সড়ক নির্মাণের জন্য উর্ধতন কতৃর্পক্ষকে জানানো হয়। কর্তৃপক্ষের নির্দেশে এবিষয়ে টেন্ডার আহবান প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। আশা করি অল্প সময়ের মধ্যে টেন্ডার আ্হবান সম্পন্ন হবে। এরপর সংযোগ সড়ক আমরা নির্মাণ করে দিতে পারব।

(এমএস/এএস/ডিসেম্বর ০২, ২০২৩)

পাঠকের মতামত:

০৫ মার্চ ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test