E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Technomedia Limited
Mobile Version

একজন জনপ্রিয় ‘মানবিক ইউএনও’র বিদায়

২০২৩ ডিসেম্বর ০৮ ১৩:২৯:১০
একজন জনপ্রিয় ‘মানবিক ইউএনও’র বিদায়


সঞ্জীব কুমার দাস, কাপাসিয়া : একজন জনপ্রিয় ‘মানবিক ইউএনও’ হিসেবে পরিচিতি নিয়েই গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলা থেকে বৃহস্পতিবার বিদায় নিয়েছেন ইউএনও একেএম গোলাম মোর্শেদ খাঁন। যোগদানের কিছু দিনের মধ্যেই নিজ গুণে সর্বস্তরের মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছিলেন তিনি।

উপজেলাবাসী একজন সৎ- সজ্জন, কর্মঠ, জনবান্ধব ও দক্ষ অফিসারকে হারিয়ে আজ। একেএম গোলাম মোর্শেদ খাঁন ৩৩ তম বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের একজন সদস্য। তিনি ২০২১ সালের ৩ আগষ্ট ইউএনও হিসেবে কাপাসিয়ায় যোগদান করেছিলেন। মাঠ পর্যায়ে সরকারের নির্দেশনা বাস্তবায়নে কাজ করা জনপ্রিয় এই কর্মকর্তা সততা,দক্ষতা ও আন্তরিকতা দিয়ে কাপাসিয়াবাসীর ভালবাসা জয় করে নিয়েছিলেন, বিদায়লগ্নে প্রশংসায় ভাসছেন তিনি।

যার লোভ লালসার উর্ধ্বে থেকে নিজ প্রতিষ্ঠানকে গড়ে তোলেন জনবান্ধব ও বিপদগ্রস্ত মানুষের আশ্রয়স্থল। এদের মধ্যে কাপাসিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একেএম গোলাম মোর্শেদ খাঁন নেহাতেই কোন কম ছিলো না। অনেকের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে অনেক আলোচিত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ,ভেজালবিরোধী অভিযান,পরিবেশ রক্ষার অভিযান, অবৈধ মাটিকাটা, বালু উত্তোলন, বাল্যবিবাহ, ইভটিজিং প্রতিরোধে বেশ ভালো প্রশংসা কুড়িয়েছেন এই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।তাঁর বন্ধু সুলভ আচরন ও কর্মদক্ষতায় পরিবর্তন এনে দিয়েছে উপজেলা পরিষদের প্রশাসনিক কার্যক্রম ও সার্বিক চিত্র।

সাধারণ মানুষের সাথে প্রশাসনের সেতুবন্ধন সৃষ্টি করে জেলা প্রশাসনের ভাবমূর্তি উজ্জল করেছেন তিনি। বান্ধবপূর্ন এই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কর্মকাণ্ডে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন উপজেলার জনপ্রতিনিধি, গণমাধ্যমকর্মী ও সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। বন্ধসুলভ ও তরুন অভিভাবক হয়ে দক্ষ প্রশাসক হিসেবে উপজেলার সব শ্রেণি-পেশার মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছিলেন তিনি। কাপাসিয়া প্রেসক্লাব সভাপতি সঞ্জীব কুমার দাস বলেন, তিনি জনবান্ধব মানুষ ছিলেন।

অল্প সময়ের মধ্যে উপজেলার সকল শ্রেণি পেশার মানুষের মন জয় করেছিলেন। নিম্নশ্রেণি থেকে উচ্চপদস্থ লোক খুব সহজে তার কাছে যেত পারত। কোন ঘটনাঘটলে তাৎক্ষণিকভাবে ব্যবস্থা গ্রহণ করতেন। এছাড়া তার বিদায় বেলায় উপজেলার কয়েকজন ইউপি চেয়ারম্যান মাহবুবল আলম, ইকবল হোসেন, আবদুল ওহাব কান খোকার সাথে কথা হলে তারা বলেন, টাকার জন্য নয়, তিনি মানুষকে সেবা দেওয়ার জন্য দৌঁড়াতেন। তার কর্মের কথা উপজেলাবাসী মনে রাখবে। প্রত্যেকটি মানুষের কথা তিনি মনোযোগ দিয়ে শুনতেন ও সমস্যা সমাধানে আন্তরিকভাবে চেষ্টা করতেন। সারাক্ষণ উপজেলার উন্নয়ন নিয়ে ভাবতেন। তিনি সৎ, উদ্যামী ও কর্মঠ ছিলেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একেএম গোলাম মোর্শেদ খাঁন বলেন, স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী শহীদ বঙ্গতাজ তাজউদ্দীন আহমদ এর সুযোগ্য কন্যা স্থানীয় সংসদ সদস্য, জেলা প্রশাসক, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক এবং সমাজের বিশিষ্টজনেরা সব সময় আমার কাজে সহযোগিতা করছেন। আমি আপনাদের কথা ভুলবো না। রাষ্ট্র ও জনগনের কাজ পরিচালনা করতে গিয়ে আমার অগোচরে কেউ যদি কষ্ট পেয়ে থাকেন তাহলে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। এই যাবার বেলায় উপজেলাবাসীর কাছে আমি দোয়া কামনা করছি। এই এলাকার মানুষের জন্য সবসময় আমার থাকবে অবিরাম ভালোবাসা। সকলের দোয়া চাই।

(এসকেডি/এএস/ডিসেম্বর ০৮, ২০২৩)

পাঠকের মতামত:

০১ মার্চ ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test