E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Technomedia Limited
Mobile Version

ওবায়দুল কাদেরের গণসংযোগে হামলা, আহত ৩০

২০২৪ জানুয়ারি ০৪ ১২:৪৪:৩১
ওবায়দুল কাদেরের গণসংযোগে হামলা, আহত ৩০

স্টাফ রিপোর্টার : নোয়াখালী-৫ আসনের কবিরহাটে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের নৌকা মার্কার গণসংযোগে হামলার অভিযোগ উঠেছে। এতে কবিরহাট পৌরসভার সাবেক মেয়র আলাবক্স তাহের টিটুসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন।

বুধবার (৩ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত বাটইয়া ইউনিয়নের ভুঁইয়ারহাট বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

হামলায় আহতরা হলেন, নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি ডা. এ কে এম জাফর উল্যা, কবিরহাট পৌরসভার সাবেক মেয়র আলাবক্স তাহের টিটু, কবিরহাট উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবু জাফর আবীর, বৃহত্তর সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ফয়েজ উল্যাহ, উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক হোসেন, পৌরসভা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন, বাটইয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক এনায়েত হোসেন সোহাগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা ইসমাইল হোসেন সোলায়মান, ধানসিঁড়ি ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক সাদ্দাম, কাউন্সিলর জামসেদ, যুবলীগ নেতা তুহিন, কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম-সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনসহ কমপক্ষে ৩০ জন।

আহতদের মধ্যে ৮ জনকে কবিরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যান্যরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। হামলার সময় নৌকার প্রচারে ব্যবহৃত তিনটি মাইক্রোবাস ভাঙচুর করা হয়েছে।

সাবেক মেয়র আলাবক্স তাহের টিটু রাতে সংবাদ সম্মেলন করে বলেন, বেশ কয়েকদিন থেকে আমরা ওবায়দুল কাদের ভাইয়ের নৌকা মার্কার পক্ষে প্রচারণা চালিয়ে আসছি। বুধবার বিকেলে বাটইয়া ইউনিয়নের কাছারীহাট, ওটারহাট শেষ করে সন্ধ্যায় ভুঁইয়ারহাটে প্রচারণার সময় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন শাহীনের নেতৃত্বে আমাদের লোকজনের ওপর হামলা চালায়। এতে আমাদের অন্তত ৩০ জন কর্মী আহত হয়েছেন। এ বিষয়ে আমরা ওবায়দুল কাদেরের কাছে বিচার চাই।

অভিযোগ অস্বীকার করে বাটইয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন শাহীন বলেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীদের সঙ্গে কোনো প্রকার সমন্বয় না করে তারা নির্বাচনী প্রচারণায় এসে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের নিয়ে উসকানিমূলক বক্তব্য দেয়। আমরা ওবায়দুল কাদেরের প্রচারণা ও লিফলেট বিতরণ করতে করতে তাদের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় তাদের নেতাকর্মীরা আমাদের লোকজনের সঙ্গে ধাক্কাধাক্কি শুরু করে এবং কয়েকজনকে মারধর করে। এতে আমিসহ আমার ৪ জন নেতাকর্মী আহত হই।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ২৩ ডিসেম্বর নোয়াখালী-৫ (কোম্পানীগঞ্জ-কবিরহাটে) আসনের নৌকার প্রার্থী সংসদ সদস্য ওবায়দুল কাদের কবিরহাটে পথসভা করেন। ওইদিন ওবায়দুল কাদেরকে স্বাগত জানাতে গিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র জহিরুল হক রায়হান গ্রুপ ও সাবেক মেয়র আলাবক্স তাহের টিটু গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতি ও ধাওয়া পাল্টাধাওয়া হয়। স্থানীয় বিরোধের ওই ঘটনার জের ধরে পৌর মেয়র জহিরুল হক রায়হানের সমর্থক ইউপি চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন শাহীনের লোকজন নৌকার প্রচারণায় বাধা দেন।

কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবির বলেন, ‘ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেছে। নির্বাচনী প্রচারণার সময় আওয়ামী লীগের দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে বলে স্থানীয় লোকজন জানিয়েছে। এ সময় সংঘর্ষকারীরা কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করে। তবে এখনো কেউ লিখিত কোনো অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

(ওএস/এএস/জানুয়ারি ০৪, ২০২৪)

পাঠকের মতামত:

২২ মে ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test