E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Technomedia Limited
Mobile Version

লৌহজংয়ের মূর্তমান আতঙ্ক, কে এই রনি বিশ্বাস?

২০২৪ মার্চ ১০ ১৭:২১:০০
লৌহজংয়ের মূর্তমান আতঙ্ক, কে এই রনি বিশ্বাস?

স্টাফ রিপোর্টার : মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার খিদিরপাড়া ইউনিয়নের সুভরিয়া গ্রামের রবি বিশ্বাস এর ছেলে রনি বিশ্বাসের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসা ও রাতের আঁধারে সাধারণ মানুষদের দেশীয় অস্ত্র দিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে টাকা পয়সা লুটের অভিযোগ উঠেছে। এতে আতঙ্কে রয়েছে সুভরিয়া এলাকাবাসী।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কয়েকদিন আগে সুভরিয়া গ্রামের মৃত তাইজুদ্দিন এর ছেলে মোহাম্মদ রুহুল আমিন রাতে কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে রাস্তায় দেশীয় অস্ত্র নিয়ে তাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে টাকা পয়সা লুক করার চেস্টা করা হলে রুহুল আমিন তাকে চিনে ফেললে সে তাৎক্ষনিক পালিয়ে যায়।

আরো জানা যায়, গত কয়েকমাস আগেও এই রনি বিশ্বাস এলাকায় বহিরাগত ছেলেদের নিয়ে মটরসাইকেল মহরা দিয়ে স্থানীয় কয়েকজনের উপর হামলা চালালে তৎকালিন সময়ও এ নিয়ে দেনদরবার বসে বিষয়টি মিমাংশা করা হয়। এবং তাকে স্থানীয় ভাবে সতর্ক করাও হয় যাতে একই ভুল দ্বিতীয়বার না করে সে।

সংবাদ সংগ্রহে বিভিন্ন তথ্য উঠে আসে এই রনি বিশ্বাসের নামে। সে রাতের আধারে বহিরাগত ছেলেদের নিয়ে এলাকায় ঘুরাফেরা ও দেশীয় মদ বিক্রি ও বিভিন্ন এলাকায় মদ নিজে মটরসাইকেলে করে বিক্রি করে আসে এবং উপজেলার কনকসার ইউনিয়নেও সে দেশীয় মদ মটরসাইকেল ও বিভিন্ন ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সা দিয়ে পাঠিয়ে বিক্রি করে থাকে।

গোপন সুত্রে আরো জানা যায়, এই রনি বিশ্বাসের সাথে স্থানীয় প্রভাবশালী মহলেরও যোগসুত্র রয়েছে তাদের ছায়ায় রনি বিশ্বাস এসব করে আসছে এলাকায় এমনটাই ধারনা করছে সুভরিয়া এলাকাবাসী।

সুভরিয়া এলাকার মুক্তিযোদ্ধা বাজারের একজন দোকানদার বলেন, রনি বিশ্বাসের সাথে কনকসার ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি বখাটে গ্রুপের সাথে সম্পর্ক থাকায় সে তাদের সুভরিয়া গ্রামে এনে রাতের আধাঁরে দেশীয় মদ বিভিন্ন জায়গায় বিক্রি করছে এবং কেউ দেখে ফেললে বা মুখ খুললে দেয়া হচ্ছে প্রাণনাসের হুমকি। এ বিষয়ে তার পরিবারের কেউ কিছু বলতে গেলে সেখানেও গায়ে হাত তোলা হয়। গভীর রাতে রাস্তায় চলাফেরা করে এবং রাতে ব্যবসা বানিজ্যে করে পায়ে হেটে আসা লোকজনদের টার্গেট করে পথ আটকিয়ে দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে লুফে নিচ্ছে সর্বস্ব। আমরা এই রনির হাত থেকে মুক্তি চাই।

অপরদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় বেশ কয়েকজন জানান, রনি বিশ্বাস এলাকার প্রভাবশালী ত্রাশ তাই তার ব্যাপারে কিছু বলতে গেলে সে জানতে পারলে আমাদের মহা বিপদ হবে। তার বন্ধু বান্ধব নিয়ে আমাদের পরিবারের উপর হামলা হবে। এই রনি আমাদের গ্রামটাকে একেবারে ধুলোয় মিশিয়ে দিয়েছে। আমরা চাই তার কঠিন বিচার হোক। এলাকাকে মাদক মুক্ত করা হোক এবং তার সন্ত্রাসী কর্মকান্ড বন্ধ করা হোক যাতে কেউ সাহস না পায় এসব করতে।

রাতের আধাঁরে রনি বিশ্বাসের ছিনতাই কর্মকান্ডের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া একই এলাকার রুহুল আমিন বলেন, আমি গরিব মানুষ তাই রনিকে কিছু বলার বা করার শক্তি আমার নেই। আমি চেয়ারম্যান কে জানিয়েছি কিন্তু এখনো কোন বিচার পাইনি। ভয়ে কারো কাছে মুখ খুলে কিছু বলতেও পারছি না যদি কিছু করে বসে। এলাকার মুরব্বীরা আমাকে বলেছে চুপচাপ থাকতে তারা রনিকে শেষবারের মতো সতর্ক করেছে যাতে এমনটা আর না হয়।

এ বিষয়ে রনি বিশ্বাসের সাথে কথা বললে তিনি জানান, রুহুল আমিন আমার নামে যে তথ্য দিয়েছে তা সম্পুর্ণ মিথ্যা। মুল বিষয়টা হচ্ছে আমি পুজোর অনুষ্ঠান শেষ করে আনুমানিক রাত্র ৩-৪ টার দিকে মটরসাইকেল চালিয়ে বাড়ি ফিরছিলাম সাথে দুজন ভাগিনাও ছিল আমার। পথে হঠাৎ চোখে পড়লো কেউ একজন হাতে বস্তা ও মুখ গামছা দিয়ে বাধা। ভাবলাম চোর- টোর হবে হয়তো তাই রাস্তায় দাড় করিয়ে পরিচয় জানতে চাই তখন সে মুখ খুলে পরিচয় দিলে আমি তাকে ছেড়ে দেই কারণ সে আমাদের এলাকার ছেলে।

(এনডি/এসপি/মার্চ ১০, ২০২৪)

পাঠকের মতামত:

২২ মে ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test