E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Technomedia Limited
Mobile Version

টঙ্গীবাড়িতে ভুল চিকিৎসায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ

২০২৪ এপ্রিল ১৪ ১৫:৪৭:৩৩
টঙ্গীবাড়িতে ভুল চিকিৎসায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ

নবারুণ দাশগুপ্ত, টঙ্গীবাড়ী : মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়িতে ডক্টরস হসপিটাল নামক একটি ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলার বালিগাঁও বাজারের বালিগাঁও উচ্চ বিদ্যালয় ও বালিগাঁও আমজাদ আলী মহাবিদ্যালয় এর গেইটের স্ব-নিকটেই অবস্থিত ডক্টরস হসপিটালে ভুল চিকিৎসায় একটি রোগী মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এর আগেও পুর্ববর্তী সময়ে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যু সহ নানা অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে এই ডক্টরস হসপিটাল নামক ক্লিনিকটির বিরুদ্ধে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. প্রণয় মান্না দাস ঘটনাস্থল তথা ডক্টরস হসপিটালটিতে পরিদর্শন করে সিলগালা করে দিয়ে যান।

জানা যায়, শনিবার (১৩ এপ্রিল) বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে লৌহজং উপজেলার কলমা ইউনিয়নের বাসিরা গ্রামের বাসিন্দা লিটন দোকানদার (৪০) বুকে ব্যাথা অনুভব হলে তাৎক্ষনিক চিকিৎসার জন্য বালিগাঁও বাজারের ডক্টরস হসপিটালে আসেন। কর্তব্যরত ডা. মোঃ শরিফুল ইসলাম কোনোরকম পরিক্ষা-নিরিক্ষা ছাড়াই নার্সকে নির্দেশ করেন রোগীকে ইনজেকশন প্রয়োগ করতে। তখন রোগী নিজেই ইনজেকশন দিতে বারণ করলেও কর্তব্যরত চিকিৎসক রোগীর বারণকে তোয়াক্কা না করে নার্সকে দিয়ে পরপর চারটি ইনজেকশন প্রয়োগ করান রোগীর শরিলে। ইনজেকশন প্রয়োগের পর রোগীর শারিরিক অবস্থা অবনতি হলে রোগীকে ঢাকা রেফার্ড করা হবে বলতে বলতেই রোগী ব্যাথার যন্ত্রণায় দাপিয়ে মৃত্যুবরণ করলে ডা. শরিফুল ইসলাম তাৎক্ষণিক হসপিটাল থেকে পালিয়ে যায়।

রোগীর স্বজনরদের সুত্রে জানা যায়, ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় লিটন দোকানদার মারা গেছে। তিনি রাজধানীর নিউ মার্কেট এলাকার কাপরের ব্যবসায়ী ছিলেন। তিনি অত্র এলাকার মধ্যে একজন নম্র ও ভদ্র মানুষ ছিলেন। তার একমাত্র আয়ে সংসার চলতো, তার মৃত্যু অকল্পনীয়। তার মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে হসপিটালে ছুটে গিয়ে দেখি হসপিটালের সামনে থানা পুলিশ ব্যারিকেট দিয়ে রেখেছে, গেইট আটকিয়ে রেখেছে আমাদের ভেতরে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। ভেতরে প্রবেশ করতে চাইলে পুলিশ জানায়, ‘ভেতরে ঢুকার পার্মিশন নাই, ঢুকতে পারবেন না। ওসি স্যারের নির্দেশ আছে কাউকেই ভিতরে ঢুকতে দেয়া হবে না- যারা আছে ভিতরে তারাই থাকবে ভিতরে অন্য কেউ ঢুকতে পারবে না’।

নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে চাচাতো ভাই সাকিব বলেন, আমার চাচাতো ভাই লিটন দোকানদার। হঠাৎ বুকে ব্যাথা উঠলে তাকে চিকিৎসার জন্য বালিগাঁও ডক্টরস হসপিটালে নিয়ে যাওয়া হয়। ডিউটি ডাক্তার কোনোরুপ পরিক্ষা- নিরিক্ষা না করেই নার্সকে পরপর চারটি ইনজেকশন দিতে বললে আমার ভাই সাথে সাথে বারন করেন ইনজেকশন দিতে। তবুও বারণ না শুনে নার্স পরপর চারটি ইনজেকশনই তার শরিলে প্রয়োগ করলে ভাইয়ের অবস্থা আরো খারাপ হলে ডাক্তার বলেন ঢাকা রেফার্ড করা হবে, বলার সাথে সাথেই আমার ভাই মারা যান। এবং ডাক্তার বলেন আমি একটু আসতেছি বলেই ডাক্তার সেখান থেকে পালিয়ে যান। তার কিছুক্ষন পর হসটিটালের সকল স্টাপ ও মালিকপক্ষ পালিয়ে যায়। আমার ভাইকে অযথা ইনজেকশন দিয়ে হত্যা করা হলো এবং থানা পুলিশ, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আসলেও আমরা ভাই হত্যার কোনো সু-বিচার পেলাম না। আল্লাহর কাছে বিচার দিলাম তিনি যেন আমার ভাই হত্যার বিচার করেন। এর বেশি আর কিছু বলার নাই- হায়াত মউত তো আল্লাহর হাতেই।
এবিষয়ে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. শরিফুল ইসলাম শরিফকে ০১৮৬৭৮২৫৮১৩ নাম্বারে ফোন করলেও তিনি ফোন ধরেননি।

এ বিষয়ে ডক্টরস হসপিটাল নামক ক্লিনিকটির পরিচালক ফজলু রহমান (শেয়ার হোল্ডার) সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, ভুল চিকিৎসা নয়, রুগী ষ্টক করেছে। রুগীর স্বজনেরা তাকে বাড়ি নিয়ে গেছে।

এ বিষয়ে টঙ্গীবাড়ী থানা অফিসার ইনচার্জ মোল্লা শোয়েব আলীকে ০১৩২০০৯৩৪০০ নাম্বারে ফোন করলেও তিনি মোবাইল রিসিপ করেননি।

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. প্রণয় মান্না দাস বলেন, আমারা ক্লিনিক কর্তৃপক্ষের কাউকে পাইনি।সিলগালা করে দিয়ে এসেছি।

বালিগাও বাজাবে বিভিন্ন ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসার কারনে এমননি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেই চলছে। সিলগালা করে হলেও দুদিন পরে তা খুলে দেয়া হয়।এ নিয়ে এলাকার মানুষের মধ্যে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।

(ওএস/এসপি/এপ্রিল ১৪, ২০২৪)

পাঠকের মতামত:

২২ মে ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test