E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Technomedia Limited
Mobile Version

সাতক্ষীরাসহ সারা জেলায় মাসব্যাপি কর্মসূচি ঘোষণা

বেসিক ট্রেড স্কীল ডেভালপমেন্ট ফোরামের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি

২০২৪ এপ্রিল ১৭ ১৭:১৪:৪৮
বেসিক ট্রেড স্কীল ডেভালপমেন্ট ফোরামের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি

রঘুনাথ খাঁ, সাতক্ষীরা : শর্ট কোর্সের অনুমোদন বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে অব্যহত রাখার দাবিতে মানববন্ধন কর্মসুচি শেষে গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মানকলিপি পেশ করা হয়েছে। বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড অনুমোদিত বেসিক ট্রেড পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান সমূহের জাতীয় সংগঠন, বেসিক ট্রেড স্কীল ডেভেলপমেন্ট ফোরাম (বিটিএসডি ফোরাম) গত মঙ্গলবার গোপালগঞ্জ কালেক্টরেট চত্বরে মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করে।

মানববন্ধন কর্মসুচি চলাকালে বক্তব্য রাখেন, বিটিএসডি ফোরাম রাজশাহী বিভাগের নেতা মোঃ হানিফ খন্দকর, সংগঠনটির বগুড়া জেলা শাখার সভাপতি মোহাম্মদ আলী জাহিদ, যশোর জেলা কমিটির সম্পাদক ও যশোর শেখ হাসিনা আইটিপার্কের উৎসব টেকনোলজির ব্যবস্থাপনা পরিচালক অজয় দত্ত, সাতক্ষীরার বিশিষ্ট শিক্ষক নেতা অধ্যাপক ইদ্রিস আলী, গোপালগঞ্জ ড্যাফোডিল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ হারুণ-অর-রশিদ, বিটিএসডি ফোরাম গোপালগঞ্জ জেলা শাখার সদস্য ও সংগঠক মনোতোষ সরকার প্রমূখ।

বক্তারা বলেন, জাতীয় দক্ষতা মান বেসিক কোর্সটি কারিগরি বোর্ড থেকে অনুমোদন বাতিল করা হলে স্ব-অর্থায়নে প্রতিষ্ঠিত বেসিক কোর্স প্রতিষ্ঠানগুলো সম্পূর্ণ ধ্বংস হয়ে যাবে। নতুন করে ৫০ হাজার মানুষ বেকার হয়ে পড়বে। ফলে নতুন করে সমাজে বিশৃঙ্খলা বাড়বে।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, শর্টকোর্স বন্ধ হলে সরকারের ভিশন ও কারিগরি শিক্ষায় এনরোলমেন্ট ২০৩০ সালের মধ্যে ৩০ শতাংশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে ৫০ শতাংশ করার লক্ষমাত্রা অর্জন চরমভাবে বাধাগ্রস্থ হবে এবং দেশের অর্থনীতিতে ব্যাপক ক্ষতিকর প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

বিশ্বব্যাংক ও আইএলও’র অর্থায়নে পরিচালিত দক্ষতা প্রশিক্ষণ যা বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের শর্টকোর্স অনুমোদন স্বাপেক্ষে আরটিও (জঞঙ) প্রতিষ্ঠান এবং এনটিভিকিউএফ (ঘঞঠছঋ) প্রকল্প। ফলে শর্টকোর্স প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ হলে দক্ষতার সনদায়নের দীর্ঘ সূত্রিতা ও অনিশ্চায়তার কারণে দাতা সংস্থাসমূহ আমাদের দেশ হতে হাত গুটিয়ে নিতে পারে।

সমাবশের সভাপতির বক্তব্যে নিত্যানন্দ সরকার বলেন, এনএসডিএ’কে তথাকথিত ‘সনদায়ন কর্তৃপক্ষ’ করার স্থলে, জাপান-কোরিয়া-আমেরিকা-ভারত ইত্যাদি দেশের মতো এবং আমাদের দেশের ‘বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন’ এর মতো একটি ‘এপেক্স বডি’ হিসেবে দেশের সকল কারিগরি প্রতিষ্ঠান সমূহের কর্মকা- তত্ত্বাবধায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ণের দায়িত্ব দেয়া হোক।

বিটিএসডি ফোরাম নেতৃবৃন্দ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় টুঙ্গিপাড়ায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিসৌধে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ ও মাজার জিয়ারতের পর বিটিএসডি ফোরামের মাসব্যাপী গৃহীত ছয় দফা কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

কর্মসূচির মধ্যে প্রথম দফায় ১৬ এপ্রিল থেকে ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত সারা দেশে জেলা প্রশাসক এবং বিভাগীয় কমিশনারগণের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ, দ্বিতীয় দফায় ২৬ এপ্রিল থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত সারা দেশে বিটিএসডি ফোরামের দাবীর স্বপক্ষে প্রচারপত্র বিলি, পোস্টারিং, ব্যানার ও বিলবোর্ড প্রদর্শণসহ অনলাইন ক্যাম্পেইনিং।

তৃতীয় দফায় পহেলা মে থেকে ০৫ মে পর্যন্ত জাতীয় পত্রিকায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট আকুল আবেদন সম্বলিত বিজ্ঞাপন প্রকাশ। চতুর্থ দফায় ০৬ মে থেকে ১৫ মে পর্যন্ত সারা দেশে জেলা ও উপজেলাতে সংগঠনের দাবীর স্বপক্ষে ব্যানারসহ বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন।
পঞ্চম দফায় সারা দেশের সম্মানীত সংসদ সদস্যগণের সাথে সংলাপ ও বিটিইবি-এনএসডিএ বিতর্কের বিষয়টি সংসদে আলোচ্যসূচিতে আনার জন্য আবেদন করা এবং শেষ দফায় ১৬ মে জেলা নেতৃবৃন্দ এবং কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ যৌথসভা করে পরবর্তী বৃহত্তর নেতৃবৃন্দ সংগঠনের সদস্য সচিব ও পাবনার পাথ পাইন্ডারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. তোফাজ্জল হোসেন টুটুল পরিচালিত সভায় নেতৃবৃন্দ গভীর উদ্বেগ জানিয়ে কর্মসূচি ঘোষণা করবে।

(আরকে/এসপি/এপ্রিল ১৭, ২০২৪)

পাঠকের মতামত:

২২ মে ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test