E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Technomedia Limited
Mobile Version

ফরিদপুরের পঞ্চপল্লীর ঘটনাস্থল পরিদর্শনে ধর্মমন্ত্রী

২০২৪ এপ্রিল ২০ ১৮:৪৫:৪৮
ফরিদপুরের পঞ্চপল্লীর ঘটনাস্থল পরিদর্শনে ধর্মমন্ত্রী

রিয়াজুল রিয়াজ, ফরিদপুর থেকে : ফরিদপুরের মধুখালি উপজেলার ডুমাইন ইউনিয়নের পঞ্চপল্লীর ঘটনায় নিহতদের বাড়িতে গিয়ে পরিবারের সদস্যদের সান্ত্বনা ও সমবেদনা জানিয়েছেন বাংলাদেশ সরকারের ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান।

আজ শনিবার (২০ এপ্রিল) দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে ফরিদপুর মধুখালি উপজেলার চোপেরঘাট গ্রামে নিহতদের বাড়িতে যান মন্ত্রী।

সেখানে গিয়ে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন, তাদের খোঁজ খবর নেন এবং তাদের সান্ত্বনা ও সমবেদনা জানান মন্ত্রী। নিহত দুই ভাইয়ের বাবা মায়ের সঙ্গে কথা বলার সময় ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক বিচারের আশ্বাস দেন মন্ত্রী। এসময় মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে নিহতের পরিবারকে ২ লাখ টাকা সহায়তা দেন তিনি।

পরে চোপেরঘাট কবরস্থানে নিহত দুই ভাইয়ের কবর জিয়ারত করেন মন্ত্রী। এসময় তার ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব মু আ হামিদ জমাদ্দার, ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক মো. কামরুল আহসান তালুকদার, ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোর্শেদ আলমসহ প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাগণ ও স্থানীয় আওয়ামী লীগনেতা-কর্মীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। পরে মন্ত্রী ডুমাইন ইউনিয়নের পঞ্চপল্লী গ্রামে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ সময় স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। পরিদর্শন শেষে বিকেল সাড়ে ৪টায় ফরিদপুর জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে সম্প্রীতি রক্ষা কমিটির বিশেষ সভায় অংশগ্রহণ করেন ধর্ম মন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান।

এদিকে, পঞ্চপল্লীর ঘটনার বিষয়ে ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক মো. কামরুল আহসান তালুকদার বলেন, এ ঘটনায় ইতিমধ্যে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. আলী সিদ্দিকীর নেতৃত্বে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এবং ঘটনার তদন্ত প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

উক্ত ঘটনার মামলা বিষয়ে অবহিত করে ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোর্শেদ আলম জানান, এ ঘটনায় তিনটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। অজ্ঞাতনামা আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) ফরিদপুরের মধুখালি উপজেলার ডুমাইন ইউনিয়নের পঞ্চপল্লী গ্রামের বারোয়ারী মন্দিরে আগুনের ঘটনা ঘটে। এরপর এই আগুন দেওয়ার অভিযোগে মন্দিরের পাশের স্কুলে নির্মাণকাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের ওপর হামলা চালান স্থানীয়রা। হামলায় ২ শ্রমিক নিহত ও অপর ৫ শ্রমিক আহত হয়। এছাড়াও ওই ঘটনা নিয়ন্ত্রণে নিতে মধুখালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিরাজ হোসেনসহ ১০ জন পুলিশ সদস্যের আহতের খবর নিশ্চিত করে ফরিদপুর জেলা পুলিশ। এলাকাটি বর্তমানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন সংস্থার নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। গ্রেফতার এড়াতে এলাকাটি বর্তমানে প্রায় পুরুষ শূণ্য অবস্থায় আছে।

(আরআর/এসপি/এপ্রিল ২০, ২০২৪)

পাঠকের মতামত:

২৯ মে ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test