E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Walton New
Mobile Version

ফরিদপুরে শ্রী অঙ্গনে জগদ্বন্ধু সুন্দরের আবির্ভাব উৎসব সমাপ্ত

২০২৪ মে ২৪ ১৭:০৮:৫৩
ফরিদপুরে শ্রী অঙ্গনে জগদ্বন্ধু সুন্দরের আবির্ভাব উৎসব সমাপ্ত

রিয়াজুল রিয়াজ, ফরিদপুর : ফরিদপুর গোয়ালচামটে অবস্থিত শ্রীধাম শ্রী অঙ্গনে জগদ্বন্ধু সুন্দরের ১৫৪তম শুভ আবির্ভাব উৎসব সমাপ্ত হয়েছে। আজ শুক্রবার সকালে ৯ দিন ব্যাপী চলা সনাতন ধর্মাবলম্বী মহানাম সম্প্রদায়ের এই ধর্মীয় অনুষ্ঠান মহাপ্রসাদ বিতরণের মাধ্যমে শেষ হয়। 

এর আগে শুক্রবার সকালে নগর কীর্তন, জলকেলি কুঞ্জ ভঙ্গ এবং শ্রীধাম শ্রী অঙ্গন হতে একটি শোভাযাত্রা সহকারে নগর কীর্তন ফরিদপুর শহরের বিভিন্ন রাস্তা ঘুরে আবার শ্রী অঙ্গন প্রাঙ্গণে এসে শেষ হয়। যাতে অসংখ্য ভক্তবৃন্দ অংশগ্রহণ করে।

এছাড়া উৎসব উপলক্ষে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান ভক্তদের মধ্যে ‌ প্রসাদ বিতরণ, চিকিৎসা সামগ্রী বিতরণ, শরবত বিতরণ, মিষ্টান্ন বিতরণ সহ বিভিন্ন ধরনের কর্মসূচি গ্রহণ করে। উৎসব চলাকালে প্রতিদিন অসংখ্য ভক্তর আগমন ঘটে।

গত ১৬ মে থেকে শুরু হওয়া জগদ্বন্ধু সুন্দর এর ১৫৪ তম আবির্ভাব উৎসবে ধর্মীয় অনুষ্ঠানমালার মধ্যে ছিল শ্রীমৎ ভগবত গীতা পাঠ, প্রভু জগবন্ধু সুন্দরের অভিষেক, তারকব্রহ্ম নাম সংকীর্তন, মহানাম মহাকীর্তন, অষ্টকালীন লীলা কীর্তন, ধর্মীয় আলোচনা সভা, শ্রীশ্রী জগদ্বন্ধু সুন্দরের জীবনের উপরে আলোচনা, ‌শ্রীশ্রী রাধা গোবিন্দের অষ্টকালীন লীলা স্মরণ কীর্তন, কুঞ্জভঙ্গ নগর কীর্তন, জলকেলী ও মহোৎসব।

অনুষ্ঠানে অষ্টকালীন লীলা কীর্তন পরিবেশন করেন গোপেশ মোহন্ত, অমল ব্যানার্জি ‌ ‌ ও উত্তম সাহা। এবং নাম কীর্তন পরিবেশন করেন জয় গুরু সনাতন সম্প্রদায়, মহানাম সম্প্রদায়, কুলেশ্বরী সম্প্রদায়, বাসুদেব সম্প্রদায়, কৃষ্ণ মুরারী সম্প্রদায়, যুগল কিশোর সম্প্রদায়, নবনী বন্ধু সম্প্রদায়, সাধুসংঘ সম্প্রদায় ছাড়াও অসংখ্য ভক্তবৃন্দ।

উল্লেখ্য, ফরিদপুরের শ্রীধাম শ্রী অঙ্গন হিন্দু মহানাম সম্প্রদায়ের একটি আশ্রম। জগদ্বন্ধু সুন্দর ১৮৯৯ সালে এই শ্রীধাম শ্রী অঙ্গন প্রতিষ্ঠা করেন। এই আশ্রমটি বাংলাদেশের হিন্দু মহানাম সম্প্রদায়ের মূল কেন্দ্র হিসেবে পরিচিত। প্রতিবছর অন্যান্যের অনুষ্ঠানমালার ন্যায় জগদ্বন্ধু সুন্দর এর আবির্ভাব উৎসব ধুমধাম করে পালন করা হয় এই শ্রীধাম শ্রী অঙ্গন প্রাঙ্গণে।

ফরিদপুরের শ্রীধাম শ্রী অঙ্গন আশ্রমে ঘটেছিল মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের জঘন্যতম নারকীয় গণহত্যার একটি। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ চলাকালীন সময় পাকিস্তানি সেনাবাহিনী ৮ জন ব্রহ্মচারীকে ধর্মীয় প্রার্থনা করার সময় হত্যা করে এবং ওই সময় আশ্রমটিতে ব্যাপক ধ্বংস লীলা চালায়।

ফরিদপুর শহরের শ্রীধাম শ্রী অঙ্গনে ২১ এপ্রিল ১৯৭১ পাকিস্তানি সেনারা ব্রাশফায়ারে হত্যা করেছিলেন- নিদানবন্ধু ব্রহ্মচারী, কীর্তনব্রত ব্রহ্মচারী, কানাইবন্ধু ব্রহ্মচারী, বন্ধুদাস ব্রহ্মচারী, ক্ষিতিবন্ধু ব্রহ্মচারী, গৌরবন্ধু ব্রহ্মচারী, চিরবন্ধু ব্রহ্মচারী ও রবিবন্ধু ব্রহ্মচারীকে। দেশের জন্য প্রাণ দেওয়া ওই আট শহীদ ব্রহ্মচারীর স্বরণের শ্রী অঙ্গন প্রাঙ্গণে রয়েছে আটটি স্মৃতি স্তম্ভ।

এদিকে, শ্রীধাম শ্রী অঙ্গনে জগদ্বন্ধু সুন্দরের ১৫৪ তম শুভ আবির্ভাব উৎসব সুন্দরভাবে সমাপ্ত হওয়ায় ভক্তবৃন্দ, দর্শনার্থীবৃন্দ ও ফরিদপুর জেলা পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসন, সাংবাদিকবৃন্দ ও বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন- বাংলাদেশ মহানাম সম্প্রদায় কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও ফরিদপুর শ্রীধাম শ্রী অঙ্গনের সাধারণ সম্পাদক ড. নিকুঞ্জবন্ধু ব্রহ্মচারী।

(আরআর/এসপি/মে ২৪, ২০২৪)

পাঠকের মতামত:

১৪ জুন ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test