E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

পিরোজপুরে মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

২০১৬ নভেম্বর ১৫ ১৮:১৮:০৭
পিরোজপুরে মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

অভিজিৎ রাহুল বেপারী : পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়ায় আব্দুস সালাম খান (৬২) নামে এক মুক্তিযোদ্ধা ও অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুর দুইটার  দিকে  নিজ ভান্ডারিয়া মডেল সরকারি  প্রাথমিক  বিদ্যালয় মাঠে জানাজাস্থল হতে ওই মুক্তিযোদ্ধার লাশ উদ্ধার করে ভাণ্ডারিয়া থানা পুলিশ।

ওই মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যার পর সড়ক দুর্ঘটনায় আহত বলে ভূয়া নাম ঠিকানা দিয়ে ভান্ডারিয়া হাসপাতালে রেখে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। পরে সংবাদ পেয়ে তার স্বজনরা হাসপাতাল থেকে তাকে বাড়ী নিয়ে যাওয়া পর তিনি মারা যান। সোমবার বিকালে ওই মুক্তিযোদ্ধা পার্শ্ববর্তী ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার সাতুরিয়া গ্রামের আমতলা ঈদগাহ মাঠসংলগ্ন বকুলতলা এলাকায় দুই দফা হামলার শিকার হন।

নিহত মুক্তিযোদ্ধা আবদুস সালাম ভান্ডারিয়ার ভিটাবাড়িয়া ইউনিয়নের উত্তর শিয়ালকাঠি গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে । সে তিন সন্তানের জনক।

থানা ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, মুক্তিযোদ্ধা আবদুস সালাম নিজ ভাণ্ডারিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক হিসেবে সম্প্রতি অবসর নেন। তিনি এলাকায় একাধীক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। সর্ব শেষ ভান্ডারিয়ায় নিজ পিতার নামে মরহুম আব্দুর রহমান খান কিন্ডারগার্টেন নামে সম্প্রতি তিনি একটি স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন। ওই স্কুলে শিক্ষিকা নিয়োগ সংক্রান্ত কাজে সোমবার দুপুরে রাজাপুরের সাতুরিয়ায় গ্রামের মরিয়ম আক্তার মুক্তা নামে এক স্কুল শিক্ষিকার বাড়িতে যান।

বিকালে স্থানীয় ইউপি সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান বাচ্চু ও তার সহযোগি শাহ আলম হাওলাদার নামে দুই ব্যাক্তি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালামকে ডেকে নিয়ে গ্রামের আমতলা ঈদগাহ মাঠের কাছে ওই মুক্তিযোদ্ধার ওপর হামলা চালায়। পরে হামলাকারীরা তাকে গুরুতর অবস্থায় ভাণ্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

এসময় হামলাকারীরা ওই মুক্তিযোদ্ধা সড়ক দুর্ঘটনায় আহত বলে হাসপাতালে তার ভূয়া নাম ঠিকানা লিখে রেখে চলে যায়। স্বজনরা সংবাদ পেয়ে হাসপাতাল থেকে তাকে আহত অবস্থায় বাড়ী নিয়ে যাওয়া পর তিনি মারা যান। পুলিশ সড়ক দুর্ঘটনা নয় ওই মুক্তিযোদ্ধা হত্যাকােণ্ডর শিকার হয়েছেন গোপনে এরকম অভিযোগ পেয়ে ভাণ্ডারিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ কামরুজ্জামান তালুকদার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল কুদ্দুস মঙ্গলবার দুপুরে নিজ ভান্ডারিয়া মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে জানাজাস্থল থেকে নিহত মুক্তিযোদ্ধার লাশ উদ্ধার করে।

শিক্ষিকা মরিয়ম আক্তার মুক্তা জানান, নিহত সালাম খান তার পিতার নামে প্রতিষ্ঠিত আবদুর রহমান কিন্ডারগার্টেন আমি চাকুরি করতাম আমার দুর সম্পর্কে মামা হন তিনি । তিনি একজন ভাল মানুষ ছিলেন তাকে অন্যায়ভাবে আমার গ্রামে বসে তাকে পিটিয়ে আহত করে দুর্বৃত্তরা এবং তারাই তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে রাজাপুর উপজেলার সাতুরিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. সিদ্দিকুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ওই মুক্তিযোদ্ধাকে মারধর করা হয়েছে বলে শুনেছি। পরে কি হয়েছে তা কেউ জানায়নি।

ভাণ্ডারিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ কামরুজ্জামান তালুকদার জানান, দুর্বত্তরা ওই মুক্তিযোদ্ধার ওপর হামলা চালিয়ে আহত করেছে। গোপনে এমন সংবাদ পেয়ে জানাজাস্থল থেকে ভান্ডারিয়া থানাপুলিশ উদ্ধার করে রাজাপুর থানা পুলিশের কাছে লাশ হস্তান্তর করেছেন। তার পাজরসহ ও শরীরে বিভিন্ন স্থানে রক্ত জখম রয়েছে। এছাড়া মুখের কয়েটি দাত উপড়ে যায়। ঠোঁট রক্তাক্ত ও ফুলা। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

রাজাপুর থানার অফিসার ইন চার্জ মনিরুল গিয়াস জানান, এ ঘটনায় নিহতের ছেলে সামসূল ইসলাম মুরাদ হোসেন বাদি হয়ে ৫ জনকে চিহ্নিত এবং ৩/৪জন অজ্ঞাতনামা আসামী রেখে রাজাপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। লাশ ঝালকাঠী মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

(এআরবি/এএস/নভেম্বর ১৫, ২০১৬)

পাঠকের মতামত:

২০ নভেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test