E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

তীব্র স্রোত ও ফেরি স্বল্পতায় দৌলতদিয়া ঘাটে যানবাহনের দীর্ঘ সাড়ি

২০১৭ আগস্ট ১০ ১২:৪০:২৫
তীব্র স্রোত ও ফেরি স্বল্পতায় দৌলতদিয়া ঘাটে যানবাহনের দীর্ঘ সাড়ি

দেবাশীষ বিশ্বাস, রাজবাড়ী : তীব্র স্রোত ও ফেরি স্বল্পতার কারণে দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে যানবাহনের দীর্ঘ সাড়ি রযেছে। পদ্মায় পানি বৃদ্ধি ও স্রোতের কারণে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল ব্যহত হচ্ছে।

বিআইডব্লিউটিসির বাণিজ্য শাখার সহকারী ব্যবস্থাপক মোঃ শফিকুল ইসলাম জানান, উজান থেকে নেমে আসা পানি প্রবাহের কারণে নদীতে তীব্র স্রোত সৃষ্টি হয়েছে যে কারণে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ফেরি পারাপারে স্বাভাবিকের চেয়ে দ্বিগুণের চেয়ে বেশি সময় লাগছে। বাড়তি সময় লাগার কারণে ফেরির ট্রিপ সংখ্যা কমে যাচ্ছে যে কারণে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

সরেজমিনে প্রতিবেদন সংগ্রহের সময় দেখা যায়, নদী পারাপারের অপেক্ষায় ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে আছে বিভিন্ন ধরনের যানবাহন। বাস এবং পণ্যবাহী ট্রাকসহ বিভিন্ন যানবাহনের চালক ও যাত্রীদের পোহাতে হচ্ছে চরম দূর্ভোগ। পণ্যবাহী অনেক কাঁচামাল জাতীয় পণ্য নষ্ট হচ্ছে যাচ্ছে।

ফরিদপুর থেকে ছেড়ে আসা গোল্ডেন লাইনের চালক জানান, ফেরি ঘাটে তীব্র যানজটের কারণে ফেরিতে যাত্রী আসছে না। তিনি জানান ফেরিঘাটে প্রায়ই তিন চার কিলোমিটার যানজট লেগেই থাকে। আর এই তিন-চার কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে ৪ থেকে ৫ ঘন্টা সময় লাগে।

সাতক্ষীরা থেকে ছেড়ে আসা জে আর পরিবহনের যাত্রী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুট দেশের বৃহত্তম একটি নৌরুট। এখান দিয়ে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের লক্ষ লক্ষ মানুষ আসা যাওয়া করে। এখানের পরিস্থিতি সরকারের ভাবমূর্তির উপর প্রভাব ফেলে। তিনি জানান, দৌলতদিয়া ঘাটে এসে এখানের পরিস্থিতি অন্য স্থানে বর্ণনা করলে সেটা সরকারের সফলাতার খাতায় একটি ব্যর্থতা যোগ হয়।

মাগুরা থেকে ছেড়ে আসা ট্রাক চালক মোঃ আতাউর রহমান বলেন, এখানে দুই বার যানজটের কবলে পড়তে হয়। তিনি জানান ফেরি ঘাটে আসলে দীর্ঘ যানজটের লাইন থাকবে যেখানে সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট হবে সেটা ঢাকতেই নিমতলা থেকে আমাদের আটকানো হয়। সেখানে প্রায়ই এক-দুই কিলোমিটার যানজট লেগে থাকে। এখান থেকে ৫-১০ টি ট্রাক ছেড়ে দৌলতদিয়া যানযটের সাথে যুক্ত করা হয়। সেক্ষেত্রে মাগুরা থেকে ছেড়ে আসার পর নিমতলা একদিন ঘাটে একদিন বা দুই দিন সময় গেলে যায় ফেরির নাগাল পেতে।

নাম প্রকাশ না করার হানিফ পরিবহনের যাত্রী জানান তিনি প্রতি বৃহস্পতিবার অফিস করে মাগুরা আসতেন কিন্তু এই অবস্থার জন্য আসা হয় না। তিনি জানান দৌলতদিয়াতে হয় ঘাট ভাঙ্গা না হয় ফেরি স্বল্পতা। আর সব ঠিক থাকলে বলে তীব্র স্রোতোর কারণে এই দুর্ভোগ।

বিআইডব্লিউটিসির বানিজ্য শাখার সহকারী ব্যবস্থাপক মোঃ শফিকুল ইসলাম বলেন, আমাদের ফেরিবহরে ১৫ টি ফেরি রয়েছে যার মধ্যে ১৪ টি ফেরি চলাচল করছে একটি ফেরি মেরামতের জন্য পাটুরিয়া রয়েছে।

(ডিবি/এসপি/আগস্ট ১০, ২০১৭)

পাঠকের মতামত:

২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test