E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

স্বেচ্ছাসেবক দলের আংশিক কমিটির ঘোষণা দিলেন ফখরুল 

২০১৮ এপ্রিল ১৭ ১৫:৪৫:০৯
স্বেচ্ছাসেবক দলের আংশিক কমিটির ঘোষণা দিলেন ফখরুল 

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : সোমবার দুপুর আড়াইটার দিকে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নিজ বাসায় ঠাকুরগাঁও জেলা, পৌর ও সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আংশিক কমিটি ঘোষণায় উৎফুল্ল হয়ে উঠেছে স্বেচ্ছাসেবক দলের নতুন নেতা ও সমর্থক।

তবে কমিটি ঘোষণায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে সাবেক ছাত্র নেতাসহ জেলার রাজনৈতিক অঙ্গনে।বিএনপি'র কার্যালয় ব্যাতিরেখে নিজ বাসায় কমিটি ঘোষণাকে বাঁকা চোখে দেখছে অনেকেই।অভিযোগ উঠেছে সাবেক কিছু ছাত্রনেতাসহ অনেক ত্যাগী নেতাকে বাদ দিয়ে অপেক্ষাকৃত তরুণদের স্বেচ্ছাসেবক দলের গুরুত্বপূর্ণ পদে ঠাঁই দেওয়া হয়েছে।

নতুন আংশিক কমিটিতে যারা ঠাঁই পেয়েছে :

জাতীয়তাবাদী সেচ্ছাসেবক দল, ঠাকুরগাঁও জেলা কমিটি (আংশিক):

সভাপতি - মো. নুরুজ্জামান নুরু, সহ-সভাপতি - মো. আক্কাস আলী, সহ-সভাপতি - মো. জাহাংগীর আলম, সাধারণ সম্পাদক - মো. সোহেল রানা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক - মো. রাশেদুর রহিম রাশেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক - মো. রাশেদুল আলম বকুল।

জাতীয়তাবাদী সেচ্ছাসেবক দল, ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা কমিটি(আংশিক):

সভাপতি - মো. কাজী আজমগীর, সাধারণ সম্পাদক - মো. কামরুজ্জামান কামু, সাংগঠনিক সম্পাদক - মো. বুলেট, সাংগঠনিক সম্পাদক - মো. মামুনুর রশিদ মামুন।

জাতীয়তাবাদী সেচ্ছাসেবক দল, ঠাকুরগাঁও পৌরসভা কমিটি(আংশিক):

সভাপতি - মো. মন্জুরুল আলম (মন্জু), সাধারণ সম্পাদক - মো. মাহবুব আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক - মামুনুর রশিদ মামুন।

এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কিছু সাবেক ছাত্র ও ত্যাগীনেতার অভিযোগ দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন সংগ্রামে হামলা-মামলার শিকার হওয়া নেতাদের ঠকিয়ে এক শ্রেণীর সুবিধাবাদী নেতা মির্জা ফখরুলকে ভুল বুঝিয়ে এই কাজ করেছে।দলের স্বার্থে রাজনীতির স্বার্থে তারা মুখ খুলতে পারছেন না বলেও জানান। শুধু তাই নয় এই সুবিধা বাদীরা ইতিপূর্বে ২০০২সালে হঠাৎ করেই তরুণ নেতাদের দিয়ে জেলা ছাত্রদলের কমিটি গঠন করেছিল, যার দরুণ কিছুটা হলেও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল ছাত্রদল। কিছুদিন আগেই গঠিত জেলা ছাত্রদলের কমিটি নিয়ে হুলস্থুল পড়ে গিয়েছিল। এই বিতর্ক শুধু স্বেচ্ছাসেবক দল বা ছাত্রদলের নয়।প্রায় প্রতিটি কমিটিতে অপেক্ষাকৃত অযোগ্যদের সুযোগ করে দিয়ে ত্যাগী, দুঃসময়ের কান্ডারীদের অবহেলা করা হয়েছে। তাই জেলার রাজনৈতিক মহল মনে করেন বিএনপি ও তার অংগ সংগঠনগুলো সুবিধাবাদীদের অযৌক্তিক ব্যাখ্যা আর কথায় তৈরী হয়।

এদিকে স্বেচ্ছাসেবক দল ঘোষণাকালে বিএনপির জেলা পর্যায় ও সিনিয়র নেতারা উপস্থিত থাকলেও ছিলেন না কেন্দ্রিয় কমিটির কোন নেতাই। স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি শফিউল বারী বাবুসহ অনেক নেতাই এখন জেলে রয়েছেন। ঠিক এই মূহুর্তে কিসের বলে মির্জা ফখরুল বাসায় বসে কমিটি ঘোষণা করলেন তা নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা, কল্পনা।দীর্ঘ প্রায় দেড় যুগ ধরে স্বেচ্ছাসেবক দল আহ্বায়ক কমিটি দ্বারা পরিচালিত হয়ে আসছিল। কিন্তু সেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক হাসান মাহমুদ মামুন প্রায় দেড় যুগ আশায় থেকে অবশেষে হতাশ হলেন, যদিও তার কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।তবে ক্ষতিগ্রস্ত ও ত্যাগীনেতাদের অনেকেই হতাশা ব্যক্ত করেছেন।

মির্জা ফখরুল দীর্ঘদিন কেন্দ্রের দায়িত্ব পালনের কারণে ঠিকমত সময় দিতে পারেন না নিজ জেলায়,তাই সুবিধাবাদীদের কথায় প্রায় প্রতিটি কমিটিতে এমন ভুল করে যাচ্ছেন বলে বঞ্চিতরা নাম প্রকাশ না করার শর্তে অভিযোগ করেন।

মির্জা ফখরুল নিজ বাসায় কমিটি গঠন ও ঘোষণাকে রাজনৈতিক স্বেচ্ছাচারিতা বলে অভিমত করছেন জেলার রাজনৈতিক মহল।তারা মনে করেন ঠাকুরগাঁওয়ের ইতিহাসে সবচাইতে প্রিয় নেতা তিনিই। সকল দলের রাজনৈতিক নেতা-কর্মী ব্যক্তিগত ভাবে তাকে সন্মান ও শ্রদ্ধা করে। কিন্তু নিজ জেলাতেই স্বেচ্ছাচারিতা ও হেয়ালীপনা ভাবিয়ে তুলেছে নিজ দলেরই নেতা-কর্মীদের।

এ ব্যাপারে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ ব্যর্থ হলে কথা হয় জেলা বিএনপি'র সভাপতি সদর উপজেলা চেয়ারম্যান তৈমুর রহমানের সাথে।কমিটি কেমন হয়েছে এই প্রশ্নের জবাবে প্রথমে তিনি মুখ খুলতে চাননি।

পরে ভালো হয়েছে বলে মন্তব্য করেন।অনেক ত্যাগী নেতাই বঞ্চিত হয়েছে কিনা এই বিষয়ে প্রশ্ন করলে তিনি জানান, যেহেতু এখনো পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন হয়নি তাই জেলা, পৌর ও সদর উপজেলা কমিটিতে সুযোগ আছে নতুন করে যোগ করার।

নিজ বাড়িতে কমিটি ঘোষণাকে কি ভাবে দেখছেন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কয়েকদিন আগে তার "মা" মারা গিয়েছেন সেজন্যই তিনি এসেছিলেন তাছাড়া আজ ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবেন দেখে তার বাসাতেই আমরা বসেছিলাম।

(এফআইআর/এসপি/এপ্রিল ১৭, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

১৬ নভেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test