E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

শিরোনাম:

রাজশাহী জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক গ্রেফতার

২০১৮ জুলাই ২২ ১৩:৫৫:১৬
রাজশাহী জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক গ্রেফতার

রাজশাহী প্রতিনিধি : রাজশাহী জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান মন্টুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার দিবাগত রাত পৌনে ২টার দিকে নগরীর রামচন্দ্রপুর এলাকার বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশের ভাষ্য, গত ১৭ জুলাই নগরীর সাগরপাড়া বটতলায় বিএনপির মেয়র প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের নির্বাচনী পথসভায় ককটেল হামলার মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাতে নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় পুলিশ বাদী হয়ে বিস্ফোরক আইনে মামলাটি করে।

তবে মন্টুর পরিবারের দাবি, পুলিশ মন্টুকে বাসা থেকে তুলে নিয়ে গেছে। তাকে কোথায় রাখা হয়েছে সে ব্যাপারে তারা জানেন না। পুলিশ এ সময় তার লাইসেন্সকৃত অস্ত্রটিও নিয়ে গেছে।

এ বিষয়ে রাজশাহী নগর পুলিশের মুখপাত্র ইফতেখায়ের আলম জানান, গত ১৭ জুলাই নগরীর সাগরপাড়া বটতলায় ককটেল হামলার মামলায় বিএনপি নেতা মতিউর রহমান মন্টুকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে আদালতে নিয়ে রিমান্ডের আবেদন করা হবে। দুপুর ১২টায় এনিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তারিত জানানোর কথা।

অন্যদিকে বিএনপির মেয়র প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল জানান, পুলিশ গভীর রাতে নগরীর রামচন্দ্রপুর এলাকার বাসা থেকে মন্টুকে ধরে নিয়ে গেছে। বিএনপি নেতা মন্টু সিটি নির্বাচনে দলীয় মেয়র প্রার্থীর পক্ষে প্রচার-প্রচারণায় গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করছিলেন বলে জানান বুলবুল।

প্রসঙ্গত, ১৭ জুলাই বেলা সাড়ে ১০টার দিকে নগরীর সাগরপাড়া বটতলা মোড়ে বুলবুলের নির্বাচনী পথসভা চলছিল। তাতে বক্তব্য রাখছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক রূহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু।

সেখানে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, বিভাগীয় সহসাংগঠনিক সম্পাদক শহীন শওকত, জেলা বিএনপির সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন তপু ও সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান মন্টু প্রমুখ।

এ সময় মুখোশ পরা ছয়জন দুর্বৃত্ত তিনটি মোটরসাইকেলে এসে সভাস্থলে পরপর তিনটি ককটেল ছুঁড়ে টিকাপাড়া সড়ক হয়ে পূর্বদিকে চলে যান। ককটেলগুলো বিকট শব্দে বিস্ফোরিত হলে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান, বেসরকারি টেলিভিশন বাংলাভিশনের রাজশাহী প্রতিনিধি পরিতোষ চৌধুরি আদিত্য এবং স্থানীয় স্বপন কর্মকার আহত হন। পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে চিকিৎসা নেন তারা।

এ ঘটনায় আরো ১০-১২ জন কর্মী আহত হয়েছেন বলে দাবি করছে বিএনপি। এ হামলায় আওয়ামী লীগ জড়িত বলেও দাবি করেছেন দলটির নেতারা। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করে বিএনপিই এ হামলা চালিয়েছে বলে পাল্টা অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগ নেতারা।

এ ঘটনায় পরে রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছে বিএনপি।

(ওএস/এসপি/জুলাই ২২, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test