E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

‘ঐক্য করে তেলের সঙ্গে জল মেশানোর অপচেষ্টা ব্যর্থ হবে’

২০১৮ অক্টোবর ১৬ ১৫:০৮:৪০
‘ঐক্য করে তেলের সঙ্গে জল মেশানোর অপচেষ্টা ব্যর্থ হবে’

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপির নতুন ঐক্যকে তেলের সঙ্গে জল মেশানোর সঙ্গে তুলনা করেছেন ওবায়দুল কাদের। বলেন, ‘ঐক্য করে তেলের সঙ্গে জল মেশানোর অপচেষ্টা ব্যর্থ হবে।’

মঙ্গলবার বনানীতে বিআরটিএর নতুন ভবন পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

গত ১৩ অক্টোবর বিএনপি, কামাল হোসেনের জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া, জেএসডি ও নাগরিক ঐক্য নিয়ে গঠন করা হয়েছে ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট’। এই ঐক্যে থাকার কথা ছিল বিকল্পধারার বদরুদ্দোজা চৌধুরীরও। তবে শেষ মুহূর্তে তিনি ছিটকে যান।

কাদের বলেন, ‘ইতোমধ্যে বদরুদ্দোজা চৌধুরীকে বের করে দেওয়া হয়েছে। এ ধরনের ঐক্য তেলে আর জলে মেশানোর অপচেষ্টা মাত্র, এই অপচেষ্টা ব্যর্থ হবে।’

‘কামাল হোসেন গণফোরাম করেও সাড়া পায় নিয়ে এখানে বিএনপির সাথে ঐক্য করেও সাড়া পাবেন না।’

কাদের মনে করেন, কামাল হোসেনের আসল উদ্দেশ্য শেখ হাসিনাকে হঠানো। আর এই ঐক্যের নেতা তারেক রহমান।

‘কামাল হোসেনের আসলে শেখ হাসিনাকে হঠানোর জন্য তারেক জিয়ার নেতৃত্ব মেনে নিতেও কোন আপত্তি আছে বলে মনে করি না। কারণ এই ধরনের ঐক্যটা আসলে কে চালাবে? মূল দল হচ্ছে বিএনপি। আর বিএনপি চালায় কে?’

‘বিএনপির চেয়ারপারসন এখন জেলে। ভাইস চেয়ারম্যান হচ্ছেন তারেক রহমান। তারেক রহমানের অঙ্গুলি হেলনেই চলবে এটা। লন্ডন থেকে দলেরও নেতৃত্ব দিচ্ছে এবং এই জোটেরও নেতৃত্ব কলকাঠি নাড়বেন তারেক রহমান। সেখান ড. কামাল হোসেন সাহেব এটা নিজে ভালো করেই জানেন।’

ইসিতে মাহবুব তালুকদারের ভিন্নমতই গণতন্ত্র

নির্বাচন কমিশনে কমিশনার মাহবুব তালুকদারের ভিন্নমতকে গণতন্ত্রের সৌন্দর্য হিসেবেই দেখছেন কাদের। এ সংক্রান্ত এক প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘একজনের ভিন্নমতই গণতন্ত্র। সেখানে সিদ্ধান্ত হয় সংখ্যাগরিষ্ঠের ভিত্তিতে।’

নির্বাচন কমিশন যখন আগামী জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার প্রস্তুতি নিচ্ছে, সে সময় কমিশনে মাহবুব তালুকদারের অবস্থান তুমুল আলোচনা তৈরি করেছে। একবার ইভিএম ব্যবহার নিয়ে এবং সবশেষ সোমবার কথা বলতে না দেয়ার অভিযোগ তুলে ‘নোট অব ডিসেন্ট’ জানিয়ে কমিশনের সভা বর্জন করেন তিনি। আর বিএনপি তার অবস্থানের প্রশংসা করে কমিশন পুনর্গঠনের দাবি জানিয়েছে।

তবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘নোট অব ডিসেন্ট যে কেউ দিতে পারে। নিরাপত্তা পরিষদে পাঁচজন সদস্য আছে এর মধ্যে একজন বিরোধিতা করতেই পারে। মেজরিটি যা বলবে তাইতো বৈঠকের সিদ্ধান্ত হবে, এটাই স্বাভাবিক। আর কেউ বিরোধিতা করবে এটাই তো গণতন্ত্র। এটা কোন প্রতিবন্ধকতা নয়।’

‘আর এটার নির্বাচন কমিশনের পুনর্গঠনের কোন যৌক্তিকতা নয়।’

রাষ্ট্রপতি সার্চ কমিটির মাধ্যমেই নির্বাচন কমিশনে নিয়োগ দিয়েছেন জানিয়ে কাদের এও বলেন, ‘বিএনপির কথামতই করা হয়েছে।’

(ওএস/এসপি/অক্টোবর ১৬, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

১৯ নভেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test