Pasteurized and Homogenized Full Cream Liquid Milk
E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

'দেশে কবরের ‘শান্তি’ বিরাজ করছে'

২০১৪ সেপ্টেম্বর ১১ ২০:৩০:২৯
'দেশে কবরের ‘শান্তি’ বিরাজ করছে'

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা : জনগণের ভাষা বুঝে ক্ষমতা থেকে সরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও দলের ঢাকা মহানগর কমিটির আহ্বায়ক মির্জা আব্বাস।

তিনি বলেছেন, দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে জনগণের ভাষা বুঝে অহিংস আন্দোলন করবে বিএনপি, সহিংস নয়। তাই তাদের (জনগণ) ভাষা বুঝে সময় থাকতে কেটে পড়ুন। মানুষ এখন মুক্তি চায়।

বৃহস্পতিবার বিকালে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে মির্জা আব্বাস এ আহ্বান জানান।

২০ দলীয় জোট ঢাকা মহানগর উদ্যোগে সংবিধান সংশোধন করে বিচারপতিদের অভিশংসনের ক্ষমতা জাতীয় সংসদের হাতে ন্যস্ত করার প্রতিবাদে সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

তিনি বলেন, সরকারের বিভিন্ন লোকজনের কথায় মনে হয় দেশের কিছুই হয়নি। অথচ দেশে কবরের ‘শান্তি’ বিরাজ করছে। মানুষের মনে ‘শান্তি’ নেই। সবাই অশান্তিতে আছে। জনগণ শান্তির জন্য লড়াই করছে। তাদের (জনগণ) দাবি মেনে নিয়ে নিরপেক্ষ নির্বাচন দিন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে মির্জা আব্বাস বলেন, জনগণ চায় আপনারা ক্ষমতায় থেকে চলে যান, তাহলে পড়ে আছেন কেন? জনগণের ভাষা বোঝে নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠ নির্বাচন দিয়ে সরে দাঁড়ান।

বিচারপতিতে অভিশংসন আইন প্রসঙ্গে মির্জা আব্বাস বলেন, আইন করে সবকিছু বন্ধ করতে পারবেন না। জনগণ অধিকার আদায়ে আন্দোলন করবেই। ওই আন্দোলনে জনতার ঢেউ নামবে। সেখানে বাধা দিতে আসবেন না।

অভিশংসন কেন? সরকারের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, যেখানে বিচারপতিদের স্বাধীনতা নেই,সেখানে অভিশংসন এলো কী করে? সরকার সব কিছুতেই তাড়াহুড়া করছে। জাতীয় সম্প্রচার নীতি, অভিশংসনের আইন তারপরে নাকি আরো আইনের পরিবর্তন করা হবে!

স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের সভাপতিত্বে ২০ দলীয় জোটের প্রতিবাদ সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, ড. আবদুল মঈন খান, ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ড. ওসমান ফারুক, যুগ্ম মহাসচিব আমান উল্লাহ আমান, বরকত উল্লাহ বুলু, সালাউদ্দিন আহমেদ, ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নাজিম উদ্দিন আলম, যুবদলের সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, বিএনপি ঢাকা মহানগরের সদস্য সচিব হাবীব-উন-নবী খান সোহেল, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক মীর সরফাত আলী সফু প্রমুখ বক্তব্য দেন।

২০ দলের নেতাদের মধ্যে বক্তব্য দেন, জামায়াতের প্রচার সম্পাদক অধ্যাপক তাসনিম আলম, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য মাওলানা আমিনুল ইসলাম, সেলিম উদ্দীন ভূঁইয়া, জাগপার সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান, বাংলাদেশ জমিয়তে ইসলামীর সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন আকরাম,ডেমোক্রেটিক দলের সাধারণ সম্পাদক সাইফুউদ্দিন মনি, মুসলিম লীগের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব জুলফিকার ইসলাম বুলবুল, ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভূইয়া, কমরেড সাইদ আহমেদ, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরানসহ ২০ দলের নেতারা।

(ওএস/অ/সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৪)

পাঠকের মতামত:

২৫ মে ২০১৯

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test