E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

সোহেল মাহবুব’র তিনটি কবিতা

২০১৮ জুন ০১ ১৮:০৪:২৩
সোহেল মাহবুব’র তিনটি কবিতা







 

তৃষ্ণার সুরেলা বাঁশি

ভালোবাসি বলতেই বুকের ভেতর ভীষণ ঝড় বইয়ে গেল
এদিক-সেদিক করে দিল দু’পাড়
ঠোঁটে প্রগাঢ় তৃষ্ণা, আমি তার হাত ধরে বলি
চল তোমার গলায় আমার প্রথম অগ্নিমালা সাজাই
এক নিশ্বাসে সে আমার সমস্ত জল বুকে নেয়, বলে
আমার ঠোঁটে দারুচিনির গন্ধ, চল সন্ধ্যা বিলাই...

আমার কত ভেবে দেখিনি, তার টসটসে আঠারো,
চোখে কুমারী বাতি, দীঘল আলোয় বেজে ওঠে নদীর ঘুঙুর,
কথার তালে দোলে ঠোঁটের খাঁজকাটা পাহাড়
শ্বেত পাথরের ঘর্ষণে জেগে ওঠে জন্মের প্রাচীন কুসুম
তার ছোঁয়াতেই আমার জল ও অনল একসাথে জ্বলে ওঠে।

থেমে থেমে ঝড় ওঠে, অন্ধ অরণ্যের ডগায় প্রচুর বৃষ্টিপাত
ভালোবাসতে শুধু ভালোবাসতেই ছুটে আসে
কৈশোর ছড়ানো সিদ্ধি লতা।
সেই আমার লালনীল অন্ধকার
শরীর ভর্তি ইতিহাস নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা রেশমী সূতায় বোনা
গোলাপী আকাশ...

রাতচর পাখি

সে দিন আমার কাছ থেকে দস্যুতা আশা করেছিলে
আমি বুঝিনি, কোনো ঝর্নার জলে লুণ্ঠিত হবার মত
এতটা সাহস ছিল না আমার, কিন্তু মুগ্ধতা চেয়েছিলাম
অন্ধ মালার প্রথম চুম্বনের মত...

তাকিয়ে থাকতাম দূরে, অথচ কাছেই কেউ একজন
চুল ছড়িয়ে বসে থেকেছে সংকোচ করে ছুঁতে পারিনি
যখন আকাশের কোলে মাথা রেখে সূর্যটা চোখ বুজছিল
তখন তুমি আমার প্রেমিক শাবকের গলায় চুড়ি
পরানোর জন্য ফুলের কাছ থেকে গন্ধ চাইছিলা
সে সময় কোথা থেকে যে সন্ধ্যা এলো আমি তাও বুঝিনি

এখন আমি রাত্রিচর
মরুময় এসব রাতে অন্ধ পাখির মত খুঁজি
তোমার অসমাপ্ত চুম্বন
পৃথিবী দেখে আমি বসে থাকি প্রকাশ্যে ঝর্নায় ভিজতে
হয়ত তুমি এসে বলবে
এই দেখো অক্ষত রেখেছি রোমাঞ্চিত যমুনা...

উজান

ছাদের কার্নিশ থেকে রেলিং বেয়ে ঝুলে পড়েছে শাড়ি
যেন বিল্ডিংটার খোলা বুক ঢেকে রাখা তার খুব জরুরী।

প্রবল স্রোত উছলালেও জীবনের নদী উজানে যায় না
এক গলা রোদ্দুরে পুড়ে যায় ঘাস উড়ে যায় তাজা দিন,
লাল রক্তের ভেতর চেঁচিয়ে জোঁক সাদা জল কী পায় না?
নরম বুকের মাঝে উঁকি মেরে যেন শোধ করে খুশির ঋণ।

সকাল দুপুর সন্ধ্যা গড়িয়ে রাত হলে ফিরে আসে জোনাকী
স্মৃতির রোদ মুখে মেখে বাগানে বসে মৃৎ শিল্প গড়ে জোছনা
ঝড়ের নখে আকাশ ছিঁড়ে, শো-কেসে আটকে থাকা সয় কী?
উরুর খাদে নেতিয়ে পড়ে মৌমাছি সাগরে ধোয় মনের আঙিনা।

বহমান মাঝির সুর না পেয়ে মেঘের ফাটলে গুমরে মরে জল
পুষ্ট বোধের সীমায় সীমায় এবার ফল ফোটে পথ চলে অবিচল।

পাঠকের মতামত:

২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test